শিরোনাম :
গোদাগাড়ীতে ১০লাখ টাকার হেরোইন-সহ ৩জন মাদক কারবারী গ্রেফতার নগরীর তালাইমারীতে গাঁজা কারকারী মল্লিক গ্রেফতার রাজশাহীতে প্রস্তাবিত বঙ্গবন্ধু রিভার সিটি নিয়ে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত রুয়েটকে স্মার্ট বিশ্ববিদ্যালয় হিসেবে রুপান্তর করতে হলে সকল ক্ষেত্রে সুশাসন প্রতিষ্ঠা করা জরুরী চিপস্ খাওয়ানোর প্রলোভন দেখিয়ে ৬ বছরের নাবালিকাকে ধর্ষণ চেষ্টা: আসামি নাইম গ্রেফতার এইচএসসি পরীক্ষা উপলক্ষ্যে আরএমপি’র নোটিশ জারি তানোরে ক্লুলেস হত্যা মামলার পলাতক আসামি ইকবাল গ্রেফতার কৃষিতে বির্পযয়ের আশঙ্কা তানোরে চোরাপথে আশা মানহীন সারে বাজার সয়লাব বাঘায় বাবুল হত্যা মামলায় চেয়ারম্যানসহ ৭ জনকে রিমান্ড শেষে কারাগারে প্রেরণ সিংড়ায় ক্যান্সারে আক্রান্ত ২২ ব্যক্তির মাঝে চেক বিতরণ
নারায়ণগঞ্জে তিন নারীকে গাছে বেঁধে চুল কেটে এবং জুতার মালা পরিয়ে নির্যাতন

নারায়ণগঞ্জে তিন নারীকে গাছে বেঁধে চুল কেটে এবং জুতার মালা পরিয়ে নির্যাতন

মতিহার বার্তা ডেস্ক : যৌনকর্মী আখ্যা দিয়ে বাড়িতে হামলা চালিয়ে লুটপাটের একদিন পর রোববার নারায়ণগঞ্জে তিন নারীকে গাছে বেঁধে, চুল কেটে এবং জুতার মালা পরিয়ে নির্যাতন করা হয়েছে।

রোববার বিকেল সাড়ে তিনটার দিকে বন্দর উপজেলার দক্ষিণ কলাবাগ খালপাড় এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।

নির্যাতিতা তিন নারী হলেন— মফিজ উদ্দিনের মেয়ে ফাতেমা বেগম ওরফে ফতেহ (৫০), বন্দর শাহী মসজিদ এলাকার বাছেদ আলীর মেয়ে আসমা বেগম (৩৫) ও বুরুন্দি এলাকার বকুল মিয়ার স্ত্রী বানু বেগম (৩০)।

এর আগে শনিবার প্রভাবশালী তিন ব্যক্তির নেতৃত্বে এদের বাড়িতে হামলা চালিয়ে লুটপাট করা হয়।

স্থানীয়দের অভিযোগ, নির্যাতিতা নারীরা যৌনকর্মী যদি হয়েও থাকে তাহলে তাদেরকে ওই ভাবে গাছের সাথে বেঁধে মধ্যযুগীয় কায়দায় নির্যাতন করার অধিকার কারোর নেই। প্রভাবশালী মহল পরিকল্পিত ভাবে এঘটনা ঘটিয়ে ওই নারীদের বাড়িঘর লুটপাটও করেছে। কিন্তু পুলিশ এখনও কোনো ধরনের পদক্ষেপ গ্রহণ করেনি।

অবশ্য পুলিশের ভাষ্য, যারা এ ধরনের কাজ করেছেন তাদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

সরেজমিনে কলাবাগ খালপাড়ে নির্যাতনের শিকার ফাতেমা বেগমের বাড়িতে গিয়ে দেখা যায়, তার বাড়ি ঘর এবং ঘরের প্রতিটি আসবাবপত্র ভাংচুর করা হয়েছে।

সোহাগ বলেন, যে ঘটনাটি ঘটেছে তা পূর্ব পরিকল্পিত। আমাদের ঘরে থাকা সাড়ে ৬ লাখ টাকা ও সকল জিনিসপত্র লুট করে নিয়ে গেছে। আমার বাড়ি তছনছ করে ফেলেছে।

সোহাগ জানান, যদি তার মা কোনো অপরাধমূলক কাজে জড়িত থাকতেন তাহলে তাকে শাস্তি দেয়ার জন্য আইন। কিন্তু তারা শনিবার যা করেছে তা অত্যন্ত অন্যায়।

এ বিষয়ে বন্দর থানার ওসি মো. রফিকুল ইসলাম বলেন, পতিতাবৃত্তির মতো কোন বিষয় থাকলে থানায় অবহিত করলে আমরা আইনগত ব্যবস্থা নিতাম। এভাবে কেউ আইন নিজের হাতে তুলে নিতে পারেন না। এর জন্য পুলিশ আছে, প্রশাসন আছে।

তিনি বলেন, ওই ঘটনায় আহতের উদ্ধার করে চিকিৎসা দেয়া হয়েছে। নির্যাতনকারীদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।

মতিহার বার্তা ডট কম – ১৭ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯

খবরটি শেয়ার করুন..

Leave a Reply