শিরোনাম :
গোদাগাড়ীতে ১০লাখ টাকার হেরোইন-সহ ৩জন মাদক কারবারী গ্রেফতার নগরীর তালাইমারীতে গাঁজা কারকারী মল্লিক গ্রেফতার রাজশাহীতে প্রস্তাবিত বঙ্গবন্ধু রিভার সিটি নিয়ে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত রুয়েটকে স্মার্ট বিশ্ববিদ্যালয় হিসেবে রুপান্তর করতে হলে সকল ক্ষেত্রে সুশাসন প্রতিষ্ঠা করা জরুরী চিপস্ খাওয়ানোর প্রলোভন দেখিয়ে ৬ বছরের নাবালিকাকে ধর্ষণ চেষ্টা: আসামি নাইম গ্রেফতার এইচএসসি পরীক্ষা উপলক্ষ্যে আরএমপি’র নোটিশ জারি তানোরে ক্লুলেস হত্যা মামলার পলাতক আসামি ইকবাল গ্রেফতার কৃষিতে বির্পযয়ের আশঙ্কা তানোরে চোরাপথে আশা মানহীন সারে বাজার সয়লাব বাঘায় বাবুল হত্যা মামলায় চেয়ারম্যানসহ ৭ জনকে রিমান্ড শেষে কারাগারে প্রেরণ সিংড়ায় ক্যান্সারে আক্রান্ত ২২ ব্যক্তির মাঝে চেক বিতরণ
ভিক্ষার ৪০ হাজার টাকা মসজিদে দান করলেন বাঘার প্রতিবন্ধী ভিক্ষুক শেফালি

ভিক্ষার ৪০ হাজার টাকা মসজিদে দান করলেন বাঘার প্রতিবন্ধী ভিক্ষুক শেফালি

ভিক্ষার ৪০ হাজার টাকা মসজিদে দান করলেন বাঘার প্রতিবন্ধী ভিক্ষুক শেফালি
ভিক্ষার ৪০ হাজার টাকা মসজিদে দান করলেন বাঘার প্রতিবন্ধী ভিক্ষুক শেফালি

বাঘা প্রতিনিধি: রাজশাহীর বাঘায় প্রতিবন্ধী শেফালি খাতুন নামের এক ভিক্ষুক ৪০ হাজার টাকা মসজিদে দান করেছেন। শেফালি দিনে দিনে ভিক্ষা করে দফায় দফায় টাকা জমিয়ে মসজিদে দান করেন।

জানা যায়, ৭ মাসের অন্তস্বত্তা অবস্থায় স্বামীর সংসার থেকে বিছিন্ন হয়ে যায় শেফালি। তারপর থেকে ভিক্ষার কাজে নেমে পড়ে। শেফালির ১৫ বছরের একটি পুত্র সন্তান রয়েছে। সেও মাঝে মধ্যে দিনমুজুরের কাজ করে। এদিকে তিনি ভিক্ষা করে সংসার চালিয়ে দিনে দিনে জমানো ৪০ হাজার টাকা দান করেন বাঘা পৌর এলাকার দক্ষিন গাওপাড়া জামে মসজিদে। তিনি তোতলাভাবে কথা বলেন। লাঠির উপর ভর করে চলাফেরা করে। ভিক্ষুক শেফালির বাড়ি উপজেলার গড়গড়ি ইউনিয়নের ব্রাম্মনডাঙ্গা গ্রামে।

বুধবার (১৮ নভেম্বর) তার বাড়িতে গিয়ে দেখা গেল ঘরের দরজা তালাবদ্ধ। তার চাচাতো ভাইয়ের স্ত্রী রঞ্জনা জানান, ভিক্ষার উদ্দেশ্য বাড়ি থেকে সকালে বের হয়, ফিরে সন্ধ্যায়। বাবার মৃত্যুর পর পৈত্রিক সূত্রে পাওয়া প্রায় ১ কাঠা জমিতে ঘর তুলে কোন রকমে বসবাস করে। তার পরেও নিজের চিন্তা না করে ভিক্ষার জমানো টাকা মসজিদে দিয়েছে। তবে তার জমি থাকলেও পায়নি প্রধানমন্ত্রীর বিশেষ বরাদ্দের সরকারি ঘর। তার প্রতিবন্ধী ভাতার কার্ড রয়েছে।

পরে বাঘা বাজারে শেফালির সাথে কথা হলে তিনি জানান, সংসার চালিয়ে অবশিষ্ট টাকা গ্রামের গোরস্থান, মসজিদে মাইক, ফ্যান কেনার জন্য টাকা দান করেছি। আমার ইচ্ছা এবার ভিক্ষা করে নিজের সংসারে খরচ করে যা বাঁচবে, সেই টাকা জমিয়ে মাদরাসা ও এতিমখানায় দিব। আল্লাহর ঘরে দান করলে পরকালে শান্তি পাওয়া যাবে।

গড়গড়ি ইউনিয়নের ব্রাম্মনডাঙ্গা গ্রামের রেজাউল ইসলাম জানান, শেফালির বাবা মসলেম উদ্দিন প্রামানিক ছিলেন দিনমজুর। মায়ের মৃত্যুর পর বেড়ে উঠেন বাবার আশ্রয়ে। বাবা বেঁচে থাকতে বিয়ে দিয়েছিলেন, মানষিক ভারসাম্যহীন এক ছেলের সাথে। এই বিয়ের ৭ মাসের অন্তস্বত্তা অবস্থায় স্বামীর সংসার থেকে বিছিন্ন হন। তার পর থেকে ভিক্ষা শুরু করে।

বাঘা পৌরসভার দক্ষিন গাওপাড়া গোরস্থান জামে মসজিদ কমিটির সভাপতি সামসুজ্জোহা সরকার ও মসজিদের সার্বিক ত্বত্তাবধায়ক মোয়াজ্জেম হোসেন, রফিকুল ইসলাম জানান, দফায় দফায় ৪০ হাজার টাকা দিয়েছে শেফালি। সেই টাকা দিয়ে মসজিদের মাইক, ফ্যান ও টাইলসের কাজ করা হয়েছে।

এ বিষয়ে গড়গড়ি ইউনিয়নের চেয়ারম্যান রবিউল ইসলাম জানান, শেফালি ভিক্ষা করে সংসার চালায়। পাশাপাশি অবশিষ্ট জমানো টাকা সমজিদে দান করেছে শুনেছি। তবে তাকে পরিষদ থেকে সহযোগিতা করা হয়।

মতিহার বার্তা ডট কম: ১৮ নভেম্বর ২০২০

খবরটি শেয়ার করুন..

Leave a Reply