শিরোনাম :
গোদাগাড়ীতে জমি সংক্লান্ত বিরোধের জেরে প্রতিপক্ষের হামলায় আহত ২ রাজশাহী মহানগরীতে ডাকাত দলনেতা গ্রেফতার রাজশাহী মহানগরীর ফ্লাইওভার নির্মাণ কাজ পরিদর্শন করলেন রাসিক মেয়র গোদাগাড়ীতে নদী ভাঙ্গনে ক্ষতিগ্রস্থ পরিবারের মাঝে খাদ্য সহায়তা দিলেন জেলা প্রশাসক রাজশাহীতে নাশকতার মামলায় বিএনপির চার নেতা গ্রেপ্তার, আহত ১ মেসিরা হারুন বা জিতুন, ব্রাজিল বিশ্বকাপ জিতলে বেশি খুশি হবেন আর্জেন্টিনার কোচ! রান্না করা খাবার গরম করে খান? কোন খাবারগুলি দু’বার গরম করলে মারাত্মক বিপদ হতে পারে? কিশোরীর পাকস্থলীতে ৩ কেজি চুল! বৃদ্ধের পেট থেকে পাওয়া গেল ১৮৭ টি কয়েন! লাগবে না টাকা, লাগবে না কার্ড, নেই চুরির ভয়, কেনাকাটা জন্য অভিনব উপায় বেছে নিলেন যুবক
পাক ড্রোন, ক্ষেপণাস্ত্র ছুড়ে নামালো ভারতীয় বায়ুসেনা

পাক ড্রোন, ক্ষেপণাস্ত্র ছুড়ে নামালো ভারতীয় বায়ুসেনা

আন্তর্জাতিক ডেস্ক : রাজস্থানের বিকানেরের নাল সেক্টরে সীমান্ত পেরিয়ে ঢুকে পড়ে একটি পাকিস্তানি ড্রোন। জানা গিয়েছে, বায়ুসেনার র‍্যাডারে ড্রোনটি ধরা পড়তেই বায়ুসেনার সুখোই-৩০ এমকেআই যুদ্ধবিমান ক্ষেপনাস্ত্র ছুড়ে সেটিকে ধ্বংস করে। এএনআই সূত্রে খবর, ধ্বংসের পরে ড্রোনটি ভারতীয় সীমান্তে না পড়ে পাক সীমানায় ফোর্ট আব্বাস-এর কাছে গিয়ে পড়ে।সংবাদসংস্থা এএনআই সূত্রে খবর, সোমবার সকাল সাড়ে ১১টা দিকে এ ঘটনা ঘটে।

তবে ভারত ও পাকিস্তান, কোনও দেশেরই বায়ুসেনার তরফে এ ব্যাপারে কোনও মন্তব্য করা হয়নি। এটিই প্রথম নয়, এর আগে ২৮ ফেব্রুয়ারি গুজরাতের কচ্ছ এলাকায় একটি ড্রোন নামিয়েছিল পাকিস্তান। সেই ড্রোনটিকেও গুলি করে নামিয়েছিল ভারতীয় সেনা।

সেনা সূত্রে খবর, ২৮ ফেব্রুয়ারি, বেলা ১১টা নাগাদ গুজরাতের কচ্ছ সীমান্তে নানঘাটাদ গ্রামে একটি ড্রোন দেখতে পান নিরাপত্তারক্ষীরা। সঙ্গে সঙ্গে সেই ড্রোনকে গুলি করে নামান তাঁরা। গ্রামের বাসিন্দারা জানিয়েছেন, হঠাৎ করেই একটা জোরালো শব্দ শুনতে পান তাঁরা। তড়িঘড়ি সেখানে গিয়ে ড্রোনের ধ্বংসাবশেষ দেখতে পান গ্রামবাসীরা। যদিও তখনও এই ড্রোনের কথা স্বীকার করেনি পাকিস্তান।

২৮ ফেব্রুয়ারি ভোররাতে মিনিট পনেরোর অপারেশনেই নিয়ন্ত্রণ রেখার ওপারে খাইবার-পাখতুনখোয়া অঞ্চলে জঙ্গি শিবির একেবারেই নিশ্চিহ্ন করে দেয় ভারতীয় বায়ুসেনা। মুজফ্‌রাবাদ সেক্টর দিয়ে নিয়ন্ত্রণ রেখা পার করে পাক অধিকৃত কাশ্মীরে প্রবেশ করে ভারতীয় বায়ুসেনার মিরাজ ২০০০ বিমান। বালাকোটের দূরত্ব সেখান থেকে প্রায় পঞ্চাশ মাইল। এক হাজার কেজি ওজনের বোম দিয়ে উড়িয়ে দেওয়া হয় বালাকোটের সমস্ত জঙ্গি শিবির। গুঁড়িয়ে দেওয়া হয় একের পর এক জইশ ই মহম্মদের লঞ্চপ্যাড। মাসুদ আজহারের সংগঠনের কন্ট্রোল রুম আলফা-৩ ও ধ্বংস করে দেওয়া হয়।

এই আক্রমণের পরেই সীমান্তে জারি করা হয়েছে সতর্কতা। পরের দিনই ২৪টি পাক যুদ্ধবিমান ভারতীয় আকাসসীমায় ঢোকার চেষ্টা করলে ভারতীয় ৮টি যুদ্ধবিমান তাদের তাড়া করে পিছু হটায়। এই লড়াইয়ে একটি পাক এফ-১৬ যুদ্ধবিমান ও একটি ভারতীয় মিগ-২১ বাইসন জেট ধ্বংস হয়। পাক সেনার হাতে আটক হন উইং কম্যান্ডার অভিনন্দন বর্তমান। ৬০ ঘণ্টা পরে পাকিস্তান থেকে ছাড়া হয় তাঁকে।

তারপরেও সীমান্ত অশান্ত। কাশ্মীরের প্রতিদিনই নিরাপত্তারক্ষীদের সঙ্গে জঙ্গিদের গুলির লড়াই চলছে। নিয়ন্ত্রণরেখা পেরিয়ে পাক রেঞ্জার্স লাগাতার যুদ্ধবিরতিচুক্তি লঙ্ঘন করে গুলি চালাচ্ছে। ফলে নতুন ৪০০টি বাঙ্কার বানিয়েছে ভারতীয় সেনা। তারমধ্যেই এ বার ফের পাক ড্রোন দেখা গেল ভারতীয় আকাশে।

মতিহার বার্তা ডট কম ০৪মার্চ ২০১৯

খবরটি শেয়ার করুন..

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *