শিরোনাম :
গোদাগাড়ীতে ১০লাখ টাকার হেরোইন-সহ ৩জন মাদক কারবারী গ্রেফতার নগরীর তালাইমারীতে গাঁজা কারকারী মল্লিক গ্রেফতার রাজশাহীতে প্রস্তাবিত বঙ্গবন্ধু রিভার সিটি নিয়ে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত রুয়েটকে স্মার্ট বিশ্ববিদ্যালয় হিসেবে রুপান্তর করতে হলে সকল ক্ষেত্রে সুশাসন প্রতিষ্ঠা করা জরুরী চিপস্ খাওয়ানোর প্রলোভন দেখিয়ে ৬ বছরের নাবালিকাকে ধর্ষণ চেষ্টা: আসামি নাইম গ্রেফতার এইচএসসি পরীক্ষা উপলক্ষ্যে আরএমপি’র নোটিশ জারি তানোরে ক্লুলেস হত্যা মামলার পলাতক আসামি ইকবাল গ্রেফতার কৃষিতে বির্পযয়ের আশঙ্কা তানোরে চোরাপথে আশা মানহীন সারে বাজার সয়লাব বাঘায় বাবুল হত্যা মামলায় চেয়ারম্যানসহ ৭ জনকে রিমান্ড শেষে কারাগারে প্রেরণ সিংড়ায় ক্যান্সারে আক্রান্ত ২২ ব্যক্তির মাঝে চেক বিতরণ
কারাগারে কয়েদিদের নিম্নমানের খাবার প্রদান, দুদকের অভিযান

কারাগারে কয়েদিদের নিম্নমানের খাবার প্রদান, দুদকের অভিযান

কারাগারে কয়েদিদের নিম্নমানের খাবার প্রদান, দুদকের অভিযান
কারাগারে কয়েদিদের নিম্নমানের খাবার প্রদান, দুদকের অভিযান

নিজস্ব প্রতিবেদক: কাশিমপুর কারাগারে অভিযান চালিয়েছে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক) ।

বুধবার (১২ জানুয়ারি) প্রধান কার্যালয়ের উপপরিচালক সালাম আলী মোল্লার নেতৃত্বে অভিযান পরিচালনা করেছে এনফোর্সমেন্ট একটি টিম।

দুদক এনফোর্সমেন্ট ইউনিট থেকে ১০টি অভিযোগের বিষয়ে পদক্ষেপ গ্রহণ করা হয়েছে।

ক্যান্টিনের খাবারের দাম বেশি রাখা এবং সঠিকভাবে চিকিৎসা সেবা প্রদান না করার অভিযোগের সত্যতা অনুসন্ধানে জন্য দুর্নীতি দমন কমিশন অভিযানটি করে। এসময়

কাশিমপুর কারাগারের দায়িত্বপ্রাপ্ত কর্মকর্তাদের সাথে নিয়ে কারাগারে রান্নাঘর, ক্যান্টিন ও হাসপাতাল পরিদর্শন করেন এবং অভিযোগ সংশ্লিষ্ট বিষয়সমূহ খতিয়ে দেখেন তারা।

দায়িত্বপ্রাপ্ত কর্মকর্তারা টিমকে জানান, এই খাবার সরকারী খাদ্য গুদাম থেকে সরবরাহ করা হয়। তারা এখানে শুধু রান্না করেন। তবে খাবারেরর মান পূর্বের তুলনায় সন্তোষজনক হলেও রান্নাঘরটি বেশ অপরিষ্কার। ক্যান্টিনের খাবার কার্ডের মাধ্যমে বিতরণ করা হয় তবে কার্ডের বিপরীতে টাকা জমার সময় অতিরিক্ত টাকা নেওয়ার অভিযোগ পাওয়া যায়।

দুদক টিম কারা হাসপাতাল পরিদর্শনকালে দেখতে পায় সেখানে তাদের নিজস্ব কোনো ডাক্তার এবং নার্স নেই। একজন ডাক্তার প্রেষণে কর্মরত আছেন। হাসপাতাটি উচ্চ সংক্রমণ ঝুকিপূর্ণ এলাকা হওয়া সত্বেও স্বাস্থ্যবিধি সঠিকভাবে পালন করা হচ্ছে না । কারারক্ষীদের যোগসাজশে কিছু কয়েদিদের মোবাইল ফোন ব্যবহারের প্রাথমিক সত্যতা পেয়েছে। স্ক্যানিং-এর মাধ্যমে একটি মোবাইল ফোন উদ্ধার করা হয়েছে।

এক্ষেত্রে কারাগারে রান্নাঘর পরিষ্কার পরিচ্ছন্ন রাখা, খাবারের মানোন্নয়ন, প্রায় দুহাজার কারাবন্দীর জন্য পর্যাপ্ত ডাক্তার নার্সসহ সকল আধুনিক চিকিৎসা সুবিধাসহ আলাদা ৫০-১০০ শয্যার হাসপাতাল নির্মাণ এবং কারাগারে কয়েদিদের মোবাইল ফোন সরবরাহে বিষয়ে দায়ীদের বিরুদ্ধে বিভাগীয় ব্যবস্থা গ্রহণের সুপারিশসহ বিস্তারিত প্রতিবেদন দাখিল করবে এনফর্সমেন্ট।

মতিহার বার্তা / ইএবি

খবরটি শেয়ার করুন..

Leave a Reply