শিরোনাম :
ভলকানাইজিং দোকান পেয়ে ঘুরে দাঁড়ানোর স্বপ্ন দেখছে বিশাল রাবির ‘এ’ ইউনিটের সাবজেক্ট চয়েস শুরু পেটের ‘মৌচাক’ ভাঙা হবে কী ভাবে, চিন্তায় চিকিৎসকেরা আধ কিলোমিটার উঁচু, তিন কিলোমিটার পরিধি! ঝুলন্ত শহর তৈরি হচ্ছে দুবাইয়ে? প্রায়ই মাথা যন্ত্রণায় ভোগেন? ঘরোয়া উপায়ে কী ভাবে মিলবে স্বস্তি প্রেমিকার দু’ লক্ষ টাকার ব্যাগে প্রস্রাব প্রেমিকের! আদালতের নির্দেশে দিতে হল ক্ষতিপূরণ পার্টিতে হুল্লোড়ে ব্যস্ত প্রধানমন্ত্রী! ফিনল্যান্ডের আকাশসীমায় ঢুকে পড়ল রুশ যুদ্ধবিমান রাজশাহীতে উৎসবমুখর পরিবেশে পালিত হলো শুভ জন্মাষ্টমী আমি এনজিও খুলতে আসিনি, বিনোদনের জন্য ছবি করি: তাপসী ভারত মহাসাগরে ঘাঁটি গড়েছে চিনা নৌবাহিনী!
রোজ গ্রিন টি খেয়েও সুফল পাচ্ছেন না? কখন, কী ভাবে খাবেন

রোজ গ্রিন টি খেয়েও সুফল পাচ্ছেন না? কখন, কী ভাবে খাবেন

রোজ গ্রিন টি খেয়েও সুফল পাচ্ছেন না? কখন, কী ভাবে খাবেন
রোজ গ্রিন টি খেয়েও সুফল পাচ্ছেন না? কখন, কী ভাবে খাবেন

মিজানুর রহমান: গ্রিন টি-এর স্বাস্থ্য উপকারিতা নিয়ে বলা বাহুল্য। তবে সুফল পেতে কখন খাবেন, তা জানা প্রয়োজন।

ওজন নিয়ন্ত্রণে রাখতে অনেকেই বেছে নেন গ্রিন টি। শুধু তো রোগা হওয়া নয়, শরীরের ছোটখাটো সমস্যা এড়াতেও গ্রিন টি-এর জুড়ি মেলা ভার। তবে কখন, কী ভাবে এবং কতটা খাওয়া জরুরি— তা জেনে নেওয়া প্রয়োজন। খালি পেটে ঘুম থেকে উঠে গ্রিন টি কিংবা রাতে ঘুমাতে যাওয়ার আগে গ্রিন টি খাওয়া মোটেও স্বাস্থ্যকর নয়।

‘আমেরিকান জার্নাল অব মেডিসিন’-এ প্রকাশিত বেশ কয়েকটি গবেষণাপত্র বলছে, অন্যান্য চায়ের মতো গ্রিন টি শরীরে জারিত হয় না। তাই এই চা অন্য চায়ের তুলনায় স্বাস্থ্যকর। গ্রিন টি শরীরে খারাপ কোলেস্টেরল ‘এলডিএল’ জমতে দেয় না। রক্তনালিতে এই সব ফ্যাট জমলে রক্ত সঞ্চালনে বাধা পায়।

মেটাবলিজিমের মাত্রা বাড়িয়ে দিতে, দ্রুত ফ্যাট ঝরাতে সাহায্য করে গ্রিন টি। এই চা পলিফেনল ও ফ্ল্যাভোনয়েডের মতো অ্যান্টি-অক্সিড্যান্টে পরিপূর্ণ, যা রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়াতে সাহায্য করে। ত্বক ও চুলের স্বাস্থ্যের জন্য দারুণ উপকারী গ্রিন টি। যদি গ্রিন টি নিয়ম মেনে খাওয়া যায়, তা হলে আরও দ্রুত মিলবে সুফল।

১) অনেকেই মনে করেন, ভরপেট খাবার খাওয়ার সঙ্গে সঙ্গে গ্রিন টি খেলে শরীরের ক্যালোরি নাকি অনেকটাই ঝরে যায়। এই ধারণা মোটেই ঠিক নয়। প্রোটিন পরিপাক হতে শরীরের একটি নির্দিষ্ট সময় লাগে। সেই সময়টি শরীরকে দিতে হবে। গ্রিন টি এই প্রক্রিয়ায় ব্যাঘাত সৃষ্টি করে। খাওয়ার পর এই চা না খাওয়াই ভাল।

২) খালি পেটে গ্রিন টি খাওয়া ঠিক নয় একেবারে। খালি পেটে এই চা খেলে পাকস্থলীতে অ্যাসিডের মাত্রা বেড়ে যায়। ফলে হজমে গন্ডগোল হয়। তাই সকালে হালকা কিছু খেয়ে তার পরেই এই চা খান।

৩) অনেকেই সকালে চা খাওয়ার পর ওষুধ খান। গ্রিন টি খাওয়ার পর ওষুধ খাবেন না। ওষুধের মধ্যে থাকা রাসায়নিক যৌগ গ্রিন টি-র সঙ্গে বিক্রিয়া করে বদহজমের সমস্যা হতে পারে।

৪) তাড়াহুড়োয় গ্রিন টি-তে চুমুক দিলে লাভ হয় না। আয়েশ করে ধীরে ধীরে এই চা খেলে তবেই বিপাক হার বাড়বে।

খবরটি শেয়ার করুন..

Leave a Reply

Your email address will not be published.