পাকিস্তান সীমান্ত চিনা বাহিনী মোতায়েন, উদ্বেগ ভারতের

পাকিস্তান সীমান্ত চিনা বাহিনী মোতায়েন, উদ্বেগ ভারতের

আন্তর্জাতিক ডেস্ক : ভারতের উদ্বেগ বাড়াল চিন। সেনাবাহিনীর একটি ফোর্সকে পাকিস্তানে মতায়েন করল বেজিং।

বিভিন্ন সংবাদমাধ্যমে প্রকাশিত খবরে বলা হয়েছে, পাকিস্তানের সিন্ধু প্রদেশে চিনের একটি সেনাদল মোতায়েন করা হয়েছে। মূলত ভারত-পাকিস্তান অর্থনৈতিক করিডর বা সিপিইসি’র নিরাপত্তার লক্ষ্যে এই বাহিনীকে পাক-ভারত আন্তর্জাতিক সীমান্ত থেকে মাত্র ৯০ কিলোমিটার দূরে মোতায়েন করা হয়েছে।

যা যথেষ্ট চিন্তার কারণ ভারতের কাছে। যদিও ভারতীয় সীমান্তরক্ষী বিএসএফ তাদের সীমান্তের নিকটবর্তী এলাকায় চিনা সেনাদের গতিবিধি লক্ষ্য করছে এবং নজর রাখছে বলে জানা গিয়েছে। এদিকে, এর আগে, তিন হাজার কিলোমিটার করিডরের নিরাপত্তায় পাকিস্তান ১৭ হাজার সেনা মোতায়েন করেছে।

ভারতের প্রাক্তন এক সেনা কর্মকর্তা অবসরপ্রাপ্ত মেজর জেনারেল হারশা কাকার রাশিয়ান একটি সংবাদমাধ্যমকে জানিয়েছেন, চিনের সেনাদল মোতায়েন ভারতের জন্য যথেষ্ট চিন্তার। প্রয়োজনে পাকিস্তানের বিরুদ্ধে ভারত কোনও সেনা অভিযান চালাতে গেলে চিনের এই বাহিনী বাধা হয়ে দেখা দিতে পারে বলে আশঙ্কা প্রকাশ করেছেন তিনি।

অবশ্য, এই বাহিনী মোতায়েনের মধ্যে দিয়ে বেজিং-ইসলামাবাদ সম্পর্ক আরও ঘনিষ্ঠ হওয়ার আভাসই পাওয়া যাচ্ছে বলেও স্বীকার করেন। পাশাপাশি এই বাহিনী মোতায়েন প্রসঙ্গে পাকিস্তানের কঠোর সমালোচনা করে তিনি দাবি করেন, তার ভাষায়, সুস্থ মাথার কোনও দেশ এই ধরণের মোতায়েনের অনুমতি কখনই দেবে না। কীভাবে পাকিস্তান তা মেনে নিল তা নিয়ে প্রশ্ন তোলেন তিনি।

প্রসঙ্গত, সিপিইসি’র আওতাধীন কোটি কোটি ডলারের প্রকল্পগুলির কাজ চলছে এখন পাকিস্তানে। প্রাথমিক ভাবে এই সমস্ত প্রকল্প খাতে ৪৬ বিলিয়ন ডলার ব্যয় হবে বলে উল্লেখ করা হলেও বর্তমানে এই ব্যয়ের হিসাব ৬২ বিলিয়ন ডলারও অতিক্রম করেছে। আর সেই নিরাপত্তার কারণেই পাকিস্তানের মাটিতে বিপুল পরিমাণ সেনাবাহিনী মোতায়েনে অনুমতি দিয়েছে ইমরান খান সরকার।

মতিহার বার্তা ডট কম ১৬ এপ্রিল ২০১৯

খবরটি শেয়ার করুন..

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *