শিরোনাম :
চাঁনাচুর ফ্যাক্টরীতে ৫০হাজার টাকা চাঁদা দাবি, র‌্যাবের জালে দুই ভুয়া সাংবাদিক রাজশাহী মহানগরীতে ইভটিজার, শ্লীলতাহানী এবং হত্যা চেষ্টাকারী তিন লম্পট গ্রেফতার ধনী হওয়ার নেশায় ৫০০ মোটরসাইকেল চুরি রাজশাহী মহানগরীতে পুলিশের অভিযানে গ্রেফতার ১৭ হিসাব-নিকাশ করেই ভোজ্য তেলের দাম সমন্বয় করা হবে: বাণিজ্যমন্ত্রী সক্ষমতার মধ্যেই জনগণকে কাঙিক্ষত সেবা দেওয়ার পরামর্শ বাদশার গৃহকর্মী নেয়ার সময় বীমা করার নিয়ম চালু হচ্ছে, সৌদি আরবে চীনের ক্ষেপণাস্ত্রকে চ্যালেঞ্জ করতে বললেন মার্কিন সপ্তম নৌবহরের অধিনায়ক রোনালদোকে নিয়ে করা খবরের ৯০ ভাগই মিথ্যা! এশিয়া কাপে ভারত-পাক ম্যাচের অনলাইন টিকিট শেষ
রাজশাহী নগরীতে বাসাবাড়িতে নারী দিয়ে ফিটিংয়ের পাশাপাশি চলছে রোড ফিটিংয়েরও কাজ!

রাজশাহী নগরীতে বাসাবাড়িতে নারী দিয়ে ফিটিংয়ের পাশাপাশি চলছে রোড ফিটিংয়েরও কাজ!

ফিটিংবাজ মাসুম শেখ

নিজস্ব প্রতিবেদ: রাজশাহী নগরীতে নারী দিয়ে ব্ল্যাকমেইল বা ফিটিংয়ের ঘটনা পুরোনো হলেও এখন শুরু হয়েছে রোড ফিটিংয়ের কাজ। খবর নেই প্রশাসনের কাছে!

এ সিন্ডিকেটের পাতা ফাঁদে কেউ পা বাড়ালেই গুনতে হচ্ছে লক্ষাধিক টাকা। নয়লে মারধরের পাশাপাশি অন্তরঙ্গনের ভিডিও ধারণ করে ফেসবুকে ছেড়ে দেয়া তাদের কাছে মামুলি ব্যাপার।
গত বৃস্পতিবার দুপুরে বোয়ালিয়া থানা এলাকার শিরোইল পুরোনো বাসটার্মিনালের পুকুর পাড়ে দুইজন ব্যক্তিকে রোড ফিটিং দিয়ে বসিয়ে রাখে প্রায় ঘন্টাখানেক।

এর আগে তারা ওই দুই ব্যক্তিকে শিরোইলে এক মহিলার বাসায় ঢুকানোর চেষ্টা করে ব্যার্থ হয় ফিটিংবাজরা। প্রথমে নেয়া হয় ৩০ হাজার টাকা পরে আবার বিকাশের মাধ্যমে নেয়া হয় ২০ হাজার টাকা। দুই ধাপে হাতিয়ে নেয়া হয় ৫০ হাজার টাকা বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে।

ওই দুই ব্যক্তির বাড়ি ঢাকা শহরে। ওই সিন্ডিকেটের এক সদস্য পর্দা ফাঁস করে বলেন, গতকাল ঢাকার দুই ব্যক্তিকে ফোনের মাধ্যমে ডাকেন রিনা অরফে রানী।

শিলা নামের এক মেয়েকে তাদের হাতে তুলেদেন তিনি। শিলা মাসুমের কথামতো ওই দুই ব্যক্তিকে শিরোইল এক মহিলার বাসায় নিয়ে যাওয়ার পথে ঘিড়ে ফেলে মাসুম, আশিক, মুন্না ও সিজার। তারা শিলাকে জিজ্ঞাসা করে এ লোক দুটি কে? শিলা বলে তারা আমাকে কাজের জন্য নিয়ে যাচ্ছে। তারপর শুরু হয় তাদের মারমুখি আচারণ। লোক দুটিকে ভয়ভীতি দেখিয়ে বিকাশের মাধ্যমে হাতিয়ে নেয়া হয় ৫০ হাজার টাকা। এ টাকা গতকাল রাতেই ভাগ করা হয় রিনার বাসায়। এবাদেও ফিটিংবাজরা বিভিন্ন কৌশলে খদ্দরের কাছ থেকে হাতিয়ে নিচ্ছে লাখ লাখ টাকা।

রাজশাহী নগরীতে এমন একটি গ্রুপ তৈরি করে সিন্ডিকেট চালাচ্ছে বোয়ালিয়া থানাধীন হাদির মোড় বৌবাজার এলাকার মো: মাসুম শেখ (৩৮) নামরে এক ব্যক্তি ও রিনা অরফে রানী নামের এক নারী (৪০)। রাজশাহীর বিভিন্ন থানায় আছে মাসুমের বিরুদ্ধে একাধিক মামলাও। এর পূর্বে এঘটনায় একাধিকবার জেলে গেলেও ছাড়েনি পুরোনো পেশা।

এছাড়া এ সিন্ডিকেটের মূল হোতাও এরা দুইজন। রিনা, শিলা, সাথী, অন্তরা, শাকিলা,আয়েশা, আশা, মুন্নি ও লাভলি নামের একাধিক মেয়ে আছে এ গ্রুপে। রিনার কাজ মোবাইল ফোনে ও ফেসবুকের মাধ্যমে (শিকার) সংগ্রহ করা।

মাসুমের সাথে আলোচনা করে শিকারকে সুবিধামত সাধুর মোড়, বিনোদপুর, শিরোইল বা নওদাপাড়া এলাকার ডিসি শাহমখদুম কার্যালয়ের পিছন সাইডে একটি ফ্লাট বাড়িতে নিয়ে যাওয়া। শিকারের পছন্দমত নারীকে দিয়ে রুমে মধ্যে মধুচন্দ্রিমায় পাঠিয়ে দেয়া তারপর বাহির দিয়ে শিকল তুলে দেয়া। রিনার কাজ শেষ!

তারপর শুরু হয় মাসুমের কারিশমা। এক এক করে প্রবেশ করে আশিক, মুন্না ও সিজার নামের তিন ব্যক্তি। সিজার রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল (রামেকে) চাকরি করে বলে জানিয়েছে একটি সুত্র।

প্রথমে শুরু হয় ভিডিও ধারণ তারপর কেড়ে নেয়া হয় শিকারের মোবাইল, করা হয় পরিবারের কাছে ফোন। চাওয়া হয় মোটা অংকের টাকা। আর এ টাকা চলে আসে ওই সকল সিমে যে সিমগুলি আগের শিকারের কাছে কেড়ে নেয়া। পাসওয়ার্ডও জানা আছে তাদের।
এ টাকা ক্যাশ করে ভাগ করা হয় রিনার অরফে রাণীর ফ্লাট বাড়িতে। তার বাড়ি ডিসি শাহমখদুম কার্যালয়ের পিছন সাইডে ।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে বোয়ালিয়া থানার অফিসার ইচার্জ ওসি নিবারন চন্দ্র বর্মন বলেন, এ বিষয়ে খোজ খবর নেয়া হচ্ছে, থানার প্রত্যেক অফিসারকে বলে দেয়া হয়েছে। এ ফিটিংবাজদের গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে বলেও জানান তিনি।

মতিহার বার্তা ডট কম: ১৬ অক্টোবর ২০২০

খবরটি শেয়ার করুন..

Leave a Reply

Your email address will not be published.