নগরীতে মাদক সেবনে নিষেধ করায় দুই যুবককে হাতুর পিটা, রামেক ভর্তি

নগরীতে মাদক সেবনে নিষেধ করায় দুই যুবককে হাতুর পিটা, রামেক ভর্তি

নগরীতে মাদক সেবনে নিষেধ করায় দুই যুবককে হাতুর পিটা, রামেক ভর্তি
নগরীতে মাদক সেবনে নিষেধ করায় দুই যুবককে হাতুর পিটা, রামেক ভর্তি

স্টাফ রিপোর্টার: বাসা বাড়িতে মাদক সেবনে নিষেধ করায় মামুন (২৫) ও সুজন (২৬) নামের দুই যুবককে হাতুর ও রড দিয়ে পিটিয়েছে ইসরাফিল (২৫) নামে এক মাদক সন্ত্রাসী ও তার সহযোগীরা। এঘটনায় রাজিবের মুখের চোয়াল ও সামনের দাঁত ভেঙে গেছে বলে জানা গেছে।

আহত মামুন শিরোইল কলোনী ৩ নং গলির মৃত আনোয়ার হোসেনের ছেলে ও সুজন ছোট বনগ্রাম পশ্চিমপাড়া (বিজিবি কাঁচাবাজার) এলাকার মৃত আবুল হোসেনের ছেলে।

আহত মামুন

আজ (২৮ এপ্রিল) বুধবার দুপুর একটার দিকে নগরীর পাওয়ার হাউজ মোড়ে এই ঘটনা ঘটেছে। মারাত্মক আহত অবস্থায় মামুন ও সুজনকে উদ্ধার করে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ (রামেক) হাসপাতালের ৮ নং ওয়ার্ডে ভর্তি করা হয়েছে।

মুখে ও মাথায় আঘাতের কারণে মামুনের নাক দিয়ে রক্ত ঝরছে। এদের মধ্যে মামুনের অবস্থা  সঙ্কটাপন্ন বলে জানিছেন কর্তব্যরত চিকিৎসক। বর্তমানে মৃত্যুর সাথে লড়ছে সে।

আহত সুজন জানান, চন্দ্রিমা থানাধীন ছোট বনগ্রাম পশ্চিম পাড়া এলাকার ইউসুফ শেখের পুত্র ইসরাফিল একজন সন্ত্রাসী এবং মাদক ব্যবসায়ী। তার বিরুদ্ধে মাদক বিক্রি ও মাদক সেবনের অভিযোগ রয়েছে।

সে সম্প্রতি ছোট বনগ্রাম পশ্চিম পাড়া এলাকায় সুজনের বাসা ভাড়া নেয়। আর এ ভাড়াবাসায় ইসরাফিলের সহযোগীদের নিয়ে চলত মাদক সেবন ও ব্যবসা।

আজ বুধবার দুপুরে মাদক সেবনরত অবস্থায় সুজন ও তার বন্ধুরা হাতেনাতে ধরে ইসরাফিলদের। পরে স্থানীয়দের সামনে তাকে বাসাটি ছেড়ে দেয়ার কথা বলে।

এতে ক্ষীপ্ত হয়ে ইসরাফিল ও তার সহযোগী পরশ (২৮) ইব্রাহীম (৩২) ও রবিউলসহ অজ্ঞাত ১০/১২ জন যুবক পরিকল্পিতভাবে পাওয়ার হাউজ মোড়ে তাদের ঘিরে ধরে এবং হাতুর, রড, জিআই পাইপ ও লাঠিসোটা নিয়ে হামলা চালায়।

জানতে চাইলে চন্দ্রিমা থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) সিরাজুম মনির বলেন, এ পর্যন্ত থানায় কেউ অভিযোগ দিতে আসেনি। অভিযোগ পেলে হামলাকারীদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে বলে জানান তিনি।

মতিহার বার্তা / ইএবি

খবরটি শেয়ার করুন..

Leave a Reply

Your email address will not be published.