নগরীর ২৩ নং ওয়ার্ড সুসংগঠিত করেছেন তরুণ নেতা রনি

নগরীর ২৩ নং ওয়ার্ড সুসংগঠিত করেছেন তরুণ নেতা রনি

নিজস্ব প্রতিবেদক (শিমুল): তরুণ নেতৃত্ব হাল ধরায় সুসংগঠিত হয়েছে রাজশাহী নগরীর ২৩ নং ওয়ার্ড আওয়ামীলীগ নেতাকর্মীরা। ২৩ নং ওয়ার্ড আ’লীগের সাধারণ সম্পাদক মোঃ মোহেদি হাসান রনি দায়িত্ব নেয়ার পর দলের ত্যাগী ও পুরাতন নেতাকর্মীদের তিনি উজ্জিবিত করেন।

বঙ্গবন্ধুর আদর্শ ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার উন্নয়নের কথা তিনি সকল ওয়ার্ডবাসীর মাঝে তুলে ধরেন। তার একান্ত প্রচেষ্টা ও সাংগঠনিক দক্ষতায় সবাইকে ঐক্যবদ্ধ করেছেন। তার নের্তৃত্বে গড়ে ওঠা নেতা-কর্মীদের নিয়ে মেয়র নির্বাচনে এএইচএম খায়রুজ্জামান লিটনকে বিপুল ভোটের ব্যবধানে জয়লাভ করান তিনি। বর্তমানে তিনি ২৩ নং ওয়ার্ডকে আ’লীগের ঘাঁটি হিসেবে পরিচিতি লাভ করিয়েছেন।

জানা গেছে, গত বছরের মার্চে তাকে আ’লীগ কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য ও নগর সভাপতি এবং রাসিক মেয়র এএইচএম খায়রুজ্জামান লিটন, সহ-সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা মীর ইকবাল, নগর আ’লীগের সাধারণ সম্পাদক মো ডাবলু সরকার, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক নাইমুল হুদা রানা ও ২৩ নং ওয়ার্ড আ’লীগ সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা জহির উদ্দিন জসি মোঃ মোহেদি হাসান রনিকে ২৩ নং ওয়ার্ড আ’লীগের সাধারণ সম্পাদক হিসেবে দায়িত্ব ভার দেন।

দায়িত্ব পাওয়ার পর থেকেই তিনি ওই ওয়ার্ডের সকল নবীণ-প্রবীণ নেতাকর্মীদের নিয়ে ৫টি মহল্লা কমিটি গঠন করেন। এছাড়াও সবসময় ওয়ার্ডবাসীর সাথে নিরবিচ্ছিন্ন যোগাযোগ বজায় রেখেছেন।

জানতে চাইলে টিকাপাড়া এলাকার বাসিন্দা সোয়াদ জানান, প্রতিটি ওয়ার্ডে রনির মতো তরুণ নের্তৃত্ব থাকা প্রয়োজন। তারা সহজেই যে কোন ধরনের সমস্য সমাধান এবং সাহায্য এগিয়ে আসতে পারে।

পঞ্চবর্টি এলাকার বাসিন্দা মিলন বলেন, রনি তিনি একজন অত্যান্ত নরম মনের মানুষ। তার সাথে সহজেই কথা বলা যায়। যে কোন সময় তাকে ডাকলে পাশে পাওয়া যায় এবং তার কাছে সমস্যা নিয়ে আসলে দ্রুত সমাধান করে দেন।

শেখের চক এলাকার শ্রী জয় বলেন, পূর্বে অনেক নেতা ছিলো এই ওয়ার্ডে কিন্তু তারা কোন উপকারে আসেনি। অথচ অল্প কয়েকদিন আগে যোগ্য ব্যাক্তি হিসেবে রনিকে ওয়ার্ডের দায়িত্ব দেওয়ার পর থেকে আমরা এই নেতাকে সর্বসময় ডাকলেই কাছে পাই। আমাদের এলাকার সমস্যার কথা জানালে তিনি দ্রুত সমাধান করে দেন। এই এলাকায় তার অনেক অবদান রয়েছে। কিছু দিন পূর্বে রাসিক মেয়র লিটনের সহযোগীতায় তিনি এই ওয়ার্ডে ৫টি টিউবয়েল বসিয়েছেন। তাই আমরা নেতা হিসেবে এই তরুণ নেতা রনিকে পছন্দ করি।

জানতে চাইলে ২৩ নং ওয়ার্ড আ’লীগের সাধারণ সম্পাদক মোঃ মোহেদি হাসান রনি বলেন, আমি ছাত্রলীগ ও সেচ্ছাসেবক লীগের মাধ্যমে সক্রিয়ভাবে আওয়ামীলীগের রাজনীতির সাথে জড়িত ছিলাম। যার কারনে বিগত ২০১৩ সালে জামাত-বিএনপির ক্যাডাররা আমার উপর হামলা চালায়।

শুধু হামলা করেই ক্ষান্ত হননি তারা আমার অফিস পুড়িয়ে দেয়, অফিসের সামনে থাকা মোটরসাইকেলও পুড়িয়ে দেয় হামলাকারীরা। তারপর থেকে আমাকে ফোনে এবং প্রকাশ্যে জামাত-বিএনপির ক্যাডাররা প্রাণনাশের হুমকি দেয়। তারপরও আমি রাজনীতি থেকে সরে যায়নি।

আমি এই ওয়ার্ডের সাধারণ সম্পাদক হিসেবে দায়িত্ব নেওয়ার পর থেকে চেষ্টা করে আসছি ওয়ার্ডের সকল সমস্যা দ্রুত সমাধান করতে। যতটুকু পারছি মহানগর নেতাদের পরামর্শ ও সহযোগীতা নিয়ে দ্রুত সমস্যা সমাধান করার চেষ্টা করছি। এই ওয়ার্ডের লোকজন আমার পথচলার সাথী। এই ওয়ার্ডবাসীর যে কোন ধরনের উপকার করতে পেরে আমি আনন্দিত।

তাই আগামীতে এই ওয়ার্ডবাসীর জন্য মহানগরের নেতাদের পরামর্শ ও সহযোগীতা নিয়ে আরো বেশি বেশি উপকারে আসতে পারি এজন্য আমি সকলেন নিকট দোয়া প্রার্থনা করছি।

মতিহার বার্তা ডট কম ১২ জানুয়ারী ২০১৯

খবরটি শেয়ার করুন..

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *