শিরোনাম :
গোদাগাড়ীতে ১০লাখ টাকার হেরোইন-সহ ৩জন মাদক কারবারী গ্রেফতার নগরীর তালাইমারীতে গাঁজা কারকারী মল্লিক গ্রেফতার রাজশাহীতে প্রস্তাবিত বঙ্গবন্ধু রিভার সিটি নিয়ে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত রুয়েটকে স্মার্ট বিশ্ববিদ্যালয় হিসেবে রুপান্তর করতে হলে সকল ক্ষেত্রে সুশাসন প্রতিষ্ঠা করা জরুরী চিপস্ খাওয়ানোর প্রলোভন দেখিয়ে ৬ বছরের নাবালিকাকে ধর্ষণ চেষ্টা: আসামি নাইম গ্রেফতার এইচএসসি পরীক্ষা উপলক্ষ্যে আরএমপি’র নোটিশ জারি তানোরে ক্লুলেস হত্যা মামলার পলাতক আসামি ইকবাল গ্রেফতার কৃষিতে বির্পযয়ের আশঙ্কা তানোরে চোরাপথে আশা মানহীন সারে বাজার সয়লাব বাঘায় বাবুল হত্যা মামলায় চেয়ারম্যানসহ ৭ জনকে রিমান্ড শেষে কারাগারে প্রেরণ সিংড়ায় ক্যান্সারে আক্রান্ত ২২ ব্যক্তির মাঝে চেক বিতরণ
রাজশাহীতে ব্যাপকভাবে শুরু হয়েছে পদ্মার ভাঙ্গন, স্কুল, ফসলি জমি ও ঘর-বাড়ি নদীগর্ভে

রাজশাহীতে ব্যাপকভাবে শুরু হয়েছে পদ্মার ভাঙ্গন, স্কুল, ফসলি জমি ও ঘর-বাড়ি নদীগর্ভে

রাজশাহীতে ব্যাপকভাবে শুরু হয়েছে পদ্মার ভাঙ্গন, স্কুল, ফসলি জমি ও ঘর-বাড়ি নদীগর্ভে
পদ্মার ভাঙ্গন

নিজস্ব প্রতিনিধি : রাজশাহীতে ব্যাপকভাবে শুরু হয়েছে পদ্মার ভাঙ্গন। ইতোমধ্যে পবা উপজেলার হরিয়ান ইউপির প্রায় সাড়ে তিনশো বিঘা ফসলি জমিসহ অন্তত ৫০টি ঘর-বাড়ি পদ্মায় বিলীন হয়ে গেছে। গত ২০দিন ধরে এ অবস্থা চললেও কোন সহযোগিতা নেই বলে অভিযোগ করছেন ভূক্তভোগীরা।

খোঁজ নিয়ে দেখা গেছে, রাজশাহী নগরীর সাড়ে ৪ কিলোমিটার দক্ষিণে পদ্মার ওপারে পবা উপজেলার হরিয়ান ইউপি’র চরখিদিরপুর ও খানপুর ওয়াডে ২০দিন ধরে অব্যাহত ভাবে চলছে পদ্মার ভাঙ্গন।

এলাকাবাসী জানায়, খানপুর ও চরখিদিরপুর গ্রামের বহু মানুষের ঘরবাড়ি গত ১ সপ্তাহ থেকে নদীগর্ভে হারিয়ে গেছে।

এলাকার নাদের হোসেন (৬০) জানান, পদ্মার ভাঙ্গনে তাদের বসতভিটা। সাথে ৪০ বিঘা জমিও গেছে নদী গর্ভে। এসব জমিতে ছিল পটল, আমন ধান, পাট ও বিভিন্ন ধরনের শাক-সবজি। ফলে অসহায় এসব পরিবারের দিন কাটছে অর্ধঅনাহারে। এখন পালাক্রমে চলছে সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ক্লাস। গ্রামের প্রায় সাড়ে ৩শ বিঘা জমি ইতোমধ্যে ভাঙ্গনের কবলে পড়েছে।

এদিকে, যে যেভাবে পারছেন ঘর-বাড়ির আসবাব ও চালাসহ প্রয়োজনীয় জিনিজপত্র অন্যত্র সরিয়ে নিচ্ছেন। অনেকেই জমি ভাড়া নিয়ে বাড়ি ঘর স্থানান্তর করছেন। আবার কেউ কেউ খোলা আকাশের নিচেই দিন কাটাচ্ছেন। স্থানীয় ইউপি সদস্য জানান, ভাঙন কবলিত মানুষের সহায়তার জন্য তিনি ইউপি চেয়ারম্যানের কাছে লিখিতভাবে আবেদন করেও কোন সাড়া মেলেনি। এ ছাড়া সরকারের তরফ থেকে এখন পর্যন্ত কোনো সহায়তাও মেলেনি বলে জানান তিনি।

ঘর-বাড়ি হারানোর আতঙ্কে তাদের মতো একই আফসোস পদ্মাপাড়ের মানুষদের। কেননা নদীর তীরজুড়ে দেখা দিয়েছে প্রবল ভাঙন। কয়েকদিন ধরে ব্যাপক ভাঙন রাজশাহীর পবা, উপজেলার আলাইপুর নাপিতপাড়া, মধ্যপাড়া ও দক্ষিনপাড়া এলাকায়। এই ভাঙনে নদীর পেটে চলে গেছে শুকচাঁন, লালু, মুনছার, ছেতাব, টেনু, মহরম, রবিউল, অলতাফ, কমল, বাদশা, মিলন, আকরাম, আলম, সাধু, মনি, সেলিম, লাভ আলী, আখের ও বিকুলসহ অনেকের কয়েকশ’ বিঘা জমিসহ গাছপালা। ঘরবাড়ি হারানোর আতঙ্কে অধিক ঝুঁকির মুখে বসবাস করছে নদী তীরবর্তী শতাধিক পরিবার।

ভাঙন থেকে রক্ষায় বালুভর্তি জিও ব্যাগ ফেলছে পানি উন্নয়ন বোর্ড (পাউবো)। ধ্বসে যাওয়া স্থান মেরামত ও ভাঙন প্রতিরোধে এ কার্যক্রম চলছে বলে জানিয়েছে কর্তৃপক্ষ। পানি উন্নয়ন বোর্ড প্রয়োজনীয়তা দেখিয়ে স্থানীয় ঠিকাদারের মাধ্যমে বালুভর্তি জিও ব্যাগ ফেলছেন। তার আগে গোকুলপুর-জোতকাদিরপুর বাঁধের কাছে বালুভর্তি জিও ব্যাগ ফেলা হয়।

রাজশাহী পানি উন্নয়ন বোর্ডের উপ-সহকারি প্রকৌশলী মোজাম্মেল হকের নেতৃত্বে ভাঙন প্রতিরোধে বালি ভর্তি জিও ব্যাগ ডাম্পিং শুরু হয়েছে। ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠানের আরিফুল ইসলাম মাখন বালুভর্তি বস্তা ফেলার কাজ করছেন।

 মতিহার বার্তা ডট কম – ১১ অক্টোবর ২০১৯

খবরটি শেয়ার করুন..

Leave a Reply