শিরোনাম :
রাবির হল গুলোতে অভিযান ও সিসি ক্যামেরা স্থাপনের সিদ্ধান্ত

রাবির হল গুলোতে অভিযান ও সিসি ক্যামেরা স্থাপনের সিদ্ধান্ত

রাবির হল গুলোতে অভিযান ও সিসি ক্যামেরা স্থাপনের সিদ্ধান্ত
রাবি

রাবি প্রতিনিধি: রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের আবাসিক হলগুলোতে শিক্ষার্থীদের নিরাপত্তা বিষয়ে সতর্ক হচ্ছে অবস্থানে যাচ্ছে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন। এদিকে আবাসিক হলগুলো এখন পুরোপুরি ছাত্রলীগের দখলে। প্রতিটি হলে প্রাধ্যক্ষ থাকলেও ছাত্রলীগের কাছে এক ধরণের জিম্মি হয়ে পড়েছে। নিরাপত্তা সংকটে রয়েছে হলের আবাসিক শিক্ষার্থীরা।

সম্প্রতি বাংলাদেশ প্রোকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বুয়েট) শিক্ষার্থী আবরার হত্যাকান্ডের ঘটনার পর সারা দেশের শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে অভিযান চালানোর নির্দেশ দিয়েছেন। নিরাপত্তার স্বার্থে প্রত্যেক হলে তল্লাশি অভিযান পরিচালনা, সিসি ক্যামেরা স্থাপনসহ বিভিন্ন সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে বলে জানিয়েছেন একাধিক হল প্রোভোস্ট।

হল প্রাধ্যক্ষ পরিষদের আহ্বায়ক ড. আবু শামস মো. রেজাউল হাসান করিম বকসী জানান, বুয়েটে আবরার হত্যাকান্ডের ঘটনার পর, আমাদের হলগুলোতে যেন এমন অপ্রীতিকর ঘটনা না ঘটে, এজন্য নিরাপত্তা বিষয়ে বেশকিছু সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে। গত বৃহস্পতিবার বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্যের নেতৃত্বে হল প্রাধ্যক্ষরা অনেক বিষয়ে সিদ্ধান্ত নিয়েছে। হলগুলোতে তল্লাশি অভিযানের ব্যাপারে প্রধানমন্ত্রী যে নির্দেশনা দিয়েছেন তা কার্যকর করা হবে। হলগুলোতে সন্দেহজনক কোন কার্যক্রমের তথ্য পেলে পুলিশ যে কোন হলে তল্লাশি অভিযান চালাবে। এক্ষেত্রে হল প্রশাসন পুলিশকে সার্বিক সহযোগিতা করবে। বৈধ শিক্ষার্থীদের অবস্থান ও নিরাপত্তা নিশ্চিতে যা যা করা দরকার তাই করা হবে।

এ বিষয়ে মতিহার হলের প্রাধ্যক্ষ অধ্যাপক মুসতাক আহমেদ বলেন, নিরাপত্তা ব্যবস্থা জোরদার করতে প্রাথমিকভাবে প্রত্যেক হল ফটক, সিঁড়ি ও কমন রুমে সিসি ক্যামেরা লাগানো হবে। পরে অন্যান্য স্থানগুলোও সিসি ক্যামেরার আওতাভুক্ত করা হবে।

এছাড়া এখন থেকে হলগুলোতে কোন বহিরাগত বা অছাত্র থাকবে না। হলের ছাত্র কিন্তু অনাবাসিক, এরকমও কেউ থাকবে না। যে থাকবে তাকে আবাসিকতা নিয়েই থাকতে হবে। কারো অবৈধভাবে থাকার কোন সুযোগ নেই। এখন থেকে হলের আবাসিকতা দেয়া হবে সিনিয়রিটি ও একাডেমিক রেজাল্টের ভিত্তিতে।

মতিহার থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) হাফিজুর রহমান বলেন, রাবির আবাসিক হলগুলোতে অভিযানের বিষয়ে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের পক্ষ থেকে এখনও কোন নির্দেশা দেওয়া হয়নি। অনুমতি পেলে অভিযান শুরু হবে।

এ বিষয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর অধ্যাপক লুৎফর রহমান বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশ অনুযায়ী বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রশাসন আলোচনায় বসবে। পরে পুলিশ ও হলপ্রাধ্যক্ষদের সহায়তায় হলগুলোতে তল্লাশী অভিযান চালানো হবে।

মতিহার বার্তা ডট কম – ১২ অক্টোবর ২০১৯

খবরটি শেয়ার করুন..

Leave a Reply