শিরোনাম :
উদ্বেগ-উৎকণ্ঠার মধ্যে বাঘার ৪ ইউনিয়নে ভোট: হুমকি ও ভয়ভীতি দেখানোর অভিযোগ

উদ্বেগ-উৎকণ্ঠার মধ্যে বাঘার ৪ ইউনিয়নে ভোট: হুমকি ও ভয়ভীতি দেখানোর অভিযোগ

উদ্বেগ-উৎকণ্ঠার মধ্যে বাঘার ৪ ইউনিয়নে ভোট: হুমকি ও ভয়ভীতি দেখানোর অভিযোগ
বাঘা ইউপি নির্বাচন

উদ্বেগ-উৎকণ্ঠার মধ্যে বাঘার ৪ ইউনিয়নে আজ ভোট : হুমকি ও ভয়ভীতি দেখানোর অভিযোগ

বাঘা সংবাদদাতা: উদ্বেগ-উৎকণ্ঠার মধ্যে সোমবার রাজশাহীর বাঘা উপজেলার চারটি ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) নির্বাচনে ভোটগ্রহণ করা হবে।

ভোটগ্রহণের সব প্রস্তুতি সম্পন্ন হয়েছে। প্রশাসনের তরফ থেকে সুষ্ঠুভাবে ভোটগ্রহণ ও নিরাপত্তার স্বার্থে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্য মোতায়েন থাকবে। তবে ক্ষমতাসীন দলের প্রার্থীদের লোকজন প্রতিপক্ষের (স্বতন্ত্র) প্রার্থী ও তাদের সমর্থকদের হুমকি ও ভয়ভীতি দেখিয়ে অনেকটা একচেটিয়া মাঠ দখলে রেখেছেন।

এতে করে নির্বাচন কতটা সুষ্ঠু হবে এবং ভোটাররা নির্বিঘে কেন্দ্রে গিয়ে ভোট দিতে পারবেন কিনা তা নিয়ে ভোটারদের মধ্যে এক ধরণের শংকা দেখা দিয়েছে। এরআগে আ’লীগ মনোনীত নৌকা প্রতীকের প্রার্থীর বিরুদ্ধে অব্যাহতভাবে নির্বাচনী আচরণবিধি লঙ্ঘনের অভিযোগ উঠেলেও কোনো প্রতিকার মেলেনি বলে অভিযোগ রয়েছে।

স্থানীয়রা বলছেন, সব কটি ইউনিয়নেই নির্বাচনে মূল প্রতিদ্বন্দ্বীতা হবে ক্ষমতাসীন দল আ’লীগ মনোনীত প্রার্থীদের সাথে স্থানীয় বিএনপি মনোনীত স্বতন্ত্র প্রার্থীদের।

গড়গড়ি ইউনিয়নে চেয়ারম্যান পদে স্বতন্ত্র প্রার্থী আব্দুল্লাহ আল মাহমুদ বাচ্চু সাংবাদিকদের বলেন, আমি আশা করেছিলাম অবাধ, সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ নির্বাচন হবে। কিন্তু নির্বাচন কতটা সুষ্ঠু হবে এবং ভোটাররা নির্বিঘে কেন্দ্রে গিয়ে ভোট দিতে পারবেন কিনা তা নিয়ে ভোটারদের মধ্যে এক ধরণের শংকা দেখা দিয়েছে।

তিনি আরো বলেন, নির্বাচন উপলক্ষে এরআগে এলাকায় প্রচার-প্রচারণা করতে গেলে সরকার দলীয় নৌকা প্রতীকের প্রার্থী রবিউল ইসলামের লোকজন প্রতিনিয়তই আমার আনারস প্রতিকের পোষ্টার ছেঁড়া, প্রচার মাইকে বাধা, দুটি নির্বাচনী অফিস দখল, মামলার হুমকি ও ভয়ভীতি প্রদর্শন করেন।

আমাকে এলাকা ছাড়া করার হুমকি দিয়েছেন। তিনি আরো বলেন, আমি এর প্রতিকার চেয়ে নির্বাচন অফিসারসহ নির্বাচন সংশ্লিষ্ট বিভিন্ন দফতরে লিখিতভাবে জানিয়েছি। কিন্তু কোনো ধরণের প্রতিকার মেলেনি।

গড়গড়ী ইউনিয়নে বিএনপি সমর্থিত প্রার্থী মাসুদ করিম টিপু (টেবিলফ্যান) ও স্বতন্ত্র প্রার্থী জুলফিকার আলী (ঘোড়া) প্রতীক নিয়ে নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বীতা করছেন। তারাও প্রায় একই ধরণের অভিযোগ করেছেন। এছাড়া বাজুবাঘা, মনিগ্রাম ও পাকুড়িয়া ইউনিয়নেও নৌকা প্রতীক প্রার্থীদের বিরুদ্ধে বিএনপি সমর্থিত ও স্বতন্ত্র প্রার্থীদের পক্ষ থেকে অনুরুপ অভিযোগ তোলা হয়েছে।

তবে গড়গড়ী ইউনিয়নে নৌকা প্রতীকের প্রার্থী রবিউল ইসলামসহ অপর তিনটি ইউনিয়নে ক্ষমতাসীন দলের প্রার্থীরা অভিযোগ অস্বীকার করেছেন। তারা সাংবাদিকদের বলেন, কাউকে হুমকি বা ভয়ভীতি দেখানো হচ্ছে না। বরং স্বতন্ত্র প্রার্থীর লোকজনই নির্বাচনী প্রচারণায় বাধা সৃষ্টি করেন।

বাঘা উপজেলা নির্বাচন অফিস সূত্রে জানা গেছে, চারটি ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে ৫২ পদে ২৫২ জন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বীতা করছেন। এরমধ্যে চেয়ারম্যান পদে ১৯ জন, সংরক্ষিত নারী সদস্য পদে ৬৩ জন ও সাধারণ সদস্য পদে ১৭০ জনসহ মোট ২৫২ জন।

এছাড়া চারটি ইউনিয়নে মোট ভোট কেন্দ্রের সংখ্যা ৩৬টি। এরমধ্যে ঝুঁকিপূর্ণ কেন্দ্র (গুরুত্বর্পূর্ণ) ১৪টি, সাধারণ কেন্দ্র ২২টি, বুথ সংখ্যা ১৯৯টি। প্রিজাইডিং অফিসার ৩৬ জন, সহকারি প্রিজাইডিং অফিসার ১৯৯ জন, পোলিং অফিসার ৩৯৮ জন, প্রতিটি কেন্দ্রে পুলিশ ও আনসার ১৮ জন, ১৬ জন নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেটে, র‌্যাব ও বিজিবির স্ট্রাইকিং ফোর্সের ৮টি মোবাইল টিম থাকবে।

এদিকে চারটি ইউনিয়নে ১৯ জন চেয়ারম্যান প্রার্থীর মধ্যে বাজুবাঘা ইউনিয়নে আ’লীগের মনোনীত চেয়ারম্যান প্রার্থী ফজলুর রহমান (নৌকা) ও স্থানীয় বিএনপি সমর্থিত প্রার্থী ফিরোজ আহম্মেদ (আনারস), স্বতন্ত্র প্রার্থী সাইফুল ইসলাম (ঘোড়া), হাসমত আলী (টেবিল ফ্যান), সাহার উদ্দিন ঝুন্টু (মোটরসাইকেল), আসলাম মালিথা (টেলিফোন), আসাদুজ্জামান (রজনীগন্ধা), জিয়াউর রহমান (ঢোল), এমএ মানিক (চশমা)। এ ইউনিয়নে মোট ভোটর সংখ্যা ১০ হাজার ৭৩৭ জন। এরমধ্যে পুরুষ ভোটর ৫ হাজার ৩৩৬ ও নারী ভোটার ৫ হাজার ৪০২ জন।

গড়গড়ি ইউনিয়নে আ’লীগের মনোনীত চেয়ারম্যান প্রার্থী রবিউল ইসলাম রবি (নৌকা), স্থানীয় বিএনপি সমর্তিত প্রার্থী মাসুদ করিম টিপু (টেবিল ফ্যান), স্বতন্ত্র প্রার্থী জুলফিকার আলী (ঘোড়া), আবদুল্লাহ আল মাহমুদ (আনারস), জাহিদুল ইসলাম স্বপন (চশমা) ও আবুল কালাম আজাদ (মোটরসাইকেল)। এ ইউনিয়নে মোট ভোটার সংখ্যা ১২ হাজার ২১২ জন। এরমধ্যে পুরুষ ভোটর ৬ হাজার ১৭৯ ও নারী ভোটার ৬ হাজার ৩৩ জন।

পাকুড়িয়া ইউনিয়নে আ’লীগের মনোনীত চেয়ারম্যান প্রার্থী মেরাজুল ইসলাম সরকার (নৌকা) ও স্থানীয় বিএনপি সমর্তিত প্রার্থী ফকরুল হাসান বাবলু (আনারস)। এ ইউনিয়নে মোট ভোটর সংখ্যা ১৫ হাজার ৩৬৬ জন। এরমধ্যে পুরুষ ভোটার ৭ হাজার ৭৯৫ ও নারী ভোটার ৭ হাজার ৫৭১ জন।

মনিগ্রাম ইউনিয়নে আ’লীগের মনোনীত প্রার্থী সাইফুল ইসলাম (নৌকা) ও স্থানীয় বিএনপি প্রার্থী মুজিবুর রহমান জুয়েল (আনারস)। এ ইউনিয়নে মোট ভোটার সংখ্যা ২৩ হাজার ৪০৩ জন। এরমধ্যে পুরুষ ভোটর ১১ হাজার ৮৪৫ ও নারী ভোটার ১১ হাজার ৫৫৮ জন।

বাঘা উপজেলা সহকারী রিটার্নিং অফিসার ও নির্বাচন অফিসার মুজিবুল আলম জানান, নির্বাচন অনুষ্ঠানের সকল প্রস্তুতি সম্পন্ন হয়েছে। সুষ্ঠু ও শান্তিপূর্ণভাবে ভোট গ্রহণ হবে বলে আশা প্রকাশ করেন তিনি।
মতিহার বার্তা ডট কম – ১৩  অক্টোবর ২০১৯

খবরটি শেয়ার করুন..

Leave a Reply