শিরোনাম :
রাজশাহীতে গ্রেফতারকৃত সাবেক ব্যাংক ব্যাবস্থাপকের মুক্তির দাবিতে মানববন্ধন

রাজশাহীতে গ্রেফতারকৃত সাবেক ব্যাংক ব্যাবস্থাপকের মুক্তির দাবিতে মানববন্ধন

রাজশাহীতে গ্রেফতারকৃত সাবেক ব্যাংক ব্যাবস্থাপকের মুক্তির দাবিতে মানববন্ধন
রাজশাহীতে গ্রেফতারকৃত সাবেক ব্যাংক ব্যাবস্থাপকের মুক্তির দাবিতে মানববন্ধন

নিজস্ব প্রতিবেদক : রাজশাহীতে গ্রেফতারকৃত সাবেক ব্যাংকার আরিফুল হক কুমারকে অবিলম্বে মুক্তির দাবি জানিয়েছে রাজশাহী রক্ষা সংগ্রাম পরিষদ ও মুক্তিযোদ্ধা মঞ্চ।

আজ শুক্রবার সকালে নগরীর সাহেব বাজার জিরো পয়েন্টে অনুষ্ঠিত মানববন্ধন ও বিক্ষোভ সমাবেশ থেকে তার মুক্তি দাবি করা হয়। বিশিষ্ট সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব, লেখক ও কবি আরিফুল হক কুমারকে ব্যাংকের একটি লেনদেন নিয়ে দায়ের করা মামলায় গত ১৪ অক্টোবর রাতে গ্রেফতার করে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)। এরই প্রতিবাদে মানববন্ধন কর্মসূচির আয়োজন করে রাজশাহী রক্ষা সংগ্রাম পরিষদ ও মুক্তিযোদ্ধা মঞ্চ।

বিক্ষোভ সমাবেশ থেকে বক্তারা বলেন, আরিফুল হক কুমার রাজশাহীর বিশিষ্ট ব্যক্তিত্ব স্বনামধন্য কবি। তিনি বঙ্গবন্ধু পরিষদ রাজশাহী মহানগর শাখার সাধারণ সম্পাদক। এছাড়া রাজশাহীতে কবি লেখকদের বৃহত্তর সংগঠন কবিকুঞ্জের সাধারণ সম্পাদকও তিনি। অথচ কোনো তদন্ত না করেই তাকে সাধারণ অপরাধীদের মতো হাতে হ্যান্ডকাফ পরিয়ে ধরে নিয়ে যাওয়া হয়। এ ঘটনায় রাজশাহীর সংস্কৃতিমনা মানুষ বিস্ময় প্রকাশ করেছেন। বক্তারা বলেন, আরিফুল হক কুমার একজন সৎ জন ব্যাক্তি। তার কোনো অপরাধ থাকতে পারে, তাই বলে তাকে টেনে হিচড়ে নিয়ে যাওয়ায় সচেতন মানুষের মধ্যে চরম উদ্বেগের সৃষ্টি হয়েছে। মানববন্ধন কর্মসূচি থেকে বক্তারা বলেন, মুল অপরাধী রাজশাহীর ঠিকাদার রাকা এন্টারপ্রাইজের মালিক রফিকুল ইসলামকে গ্রেফতার না করে আরিফুল হক কুমারকে গ্রেফতার করা হয়েছে। তাকে আাত্মপক্ষ সমর্থনের সুযোগ দেওয়া হয়নি।

রাজশাহী রক্ষা সংগ্রাম পরিষদের সহসভাপতি ডা. আব্দুল মান্ননের সভাপতিত্বে বিভিন্ন শ্রেণী ও পেশার মানুষ অংশ নেন। অন্যদের মধ্যে এ কর্মসূচিতে অংশ নিয়ে বক্তব্য দেন, রাজশাহী রক্ষা সংগ্রাম পরিষদের সাধারণ সম্পাদক মোঃ জামাত খান, মুক্তিযোদ্ধা মঞ্চের সভাপতি নুরুল ইসলাম মতিন, রাবির প্রফেসর ড. সুজিত সরকার, বীর মুক্তিযোদ্ধা রবিউল ইসলাম, রফিকুল্লাহ খান বাবুল, নাজিমুদ্দিন, কবিকুঞ্জের সদস্য মাজেদা আক্তার বিথী, সেক্টর কমান্ডার ফোরামের সাধারণ সম্পাদক উজ্জ্বল হোসেন, প্রকৌশলী খাজা তারেক, বরেন্দ্র কলেজের অধ্যক্ষ আলমগীর মালেক, এ্যাডভোকেট এন্তাজুল হক বাবু, নারী নেত্রী ডা. সেলিনা বেগম, মুক্তিযোদ্ধা আলতাফ হোসেন, মিনহাজ উদ্দিন মিন্টু, বজলুর রহমান, নারীনেত্রী আকতার বানু, যুবনেতা কেএম. জোবায়েদ হোসেন জিতু, জাহিদ বাবু ও শফিকুল ইসলাম সুমন।

বক্তারা বলেন, আরিফুল হক কুমারকে ষড়যন্ত্রমূলকভাবে গ্রেফতার করা হয়েছে। তাকে নিঃশর্ত মুক্তি দিতে হবে। তারা বলেন, মুল অভিযুক্ত রাকা এন্টারপ্রাইজের রফিককে গ্রেফতার না করে একজন সম্মানিত ও সাংস্কৃতিক ব্যক্তিকে গ্রেফতার করায় ক্ষুদ্ধ হয়ে উঠেছে রাজশাহীর সচেতন মানুষ। দুদক ও পুলিশ প্রশাসনের এমন আচরনের তীব্র নিন্দা ও ক্ষোভ প্রকাশ করা হয় এ কর্মসূচি থেকে।
‘উল্লেখ্য, এর আগে সোমবার রাতে (১৪ অক্টোবর) নগরীর সিপাইপাড়ার নিজ বাড়ি থেকে সাউথইস্ট ব্যাংকের রাজশাহী শাখার সাবেক ব্যাবস্থাপক এএসএম আরিফুল হক কুমারকে গ্রেফতার করা হয়। জালিয়াতি ও প্রতারণার মাধ্যমে ব্যবসায়ীর সঙ্গে যোগসাজস করে দুই কোটি পাঁচ লাখ টাকা লুটে নেয়ার অভিযোগে তাকে গ্রেফতার করা হয়।

এএসএম আরিফুল হক কুমার সাউথইস্ট ব্যাংক লিমিটেডের রাজশাহী শাখার ব্যবস্থাপক ছিলেন। ইতিমধ্যে ব্যাংক কর্তৃপক্ষ তাকে বরখাস্ত করেছে। ব্যাংক কর্তৃপক্ষের দায়ের করা মামলাতেই তাকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। এ মামলার অপর এক আসামি রফিকুল ইসলাম (৪৫) নামে এক ব্যবসায়ী পলাতক রয়েছেন। নগরীর মাস্টারপাড়া এলাকায় তার বাড়ি। তার বাবার নাম জেসারত ম-ল। রফিকুল ‘মেসার্স রাকা এন্টার প্রাইজ’ নামের একটি ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের স্বত্তাধিকারী।

দুদক জানায়, ব্যবস্থাপক থাকাকালে জাল কাগজপত্র হওয়া স্বত্বেও রফিকুল ইসলামকে দুই কোটি পাঁচ লাখ টাকা ঋণ দেন আরিফুল হক। ব্যাংক কর্তৃপক্ষ মনে করেছে, নিজে লাভবান হওয়ার জন্যই এই কাজ করেছেন তিনি। তাই ব্যাংকের পক্ষ থেকে গেল বছর রাজশাহীর আদালতে একটি মামলা দায়ের করা হয়। মামলায় আরিফুল হক ও রফিকুল ইসলামকে আসামি করা হয়। সেই মামলায় আরিফুল হককে গ্রেফতার করে দুদক।

মতিহার বার্তা ডট কম – ১৮ অক্টোবর ২০১৯

খবরটি শেয়ার করুন..

Leave a Reply