শিরোনাম :
রাজশাহীতে তিন সাংবাদিকের বিরুদ্ধে মানহানি মামলা, বিএমএসএফ এর প্রতিবাদ

রাজশাহীতে তিন সাংবাদিকের বিরুদ্ধে মানহানি মামলা, বিএমএসএফ এর প্রতিবাদ

রাজশাহীতে তিন সাংবাদিকের বিরুদ্ধে মানহানি মামলা, বিএমএসএফ এর প্রতিবাদ
রাজশাহীতে তিন সাংবাদিকের বিরুদ্ধে মানহানি মামলা, বিএমএসএফ এর প্রতিবাদ

নিজস্ব প্রতিবেদক : রাজশাহীতে ৩ জন সাংবাদিকের বিরুদ্ধে মিথ্যা ও হয়রাণীমূলক মামলা দায়ের এবং বিভিন্ন মাধ্যমে অপপ্রচার করায়, বাংলাদেশ মফস্বল সাংবাদিক ফোরাম ( বিএমএসএফ) এর পক্ষ থেকে তিব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানানো হয়েছে।

আজ রবিবার সন্ধায় কেন্দ্রীয় কমিটির কায্য নির্বাহী সদস্য ও রাজশাহী জেলার অন্যতম সদস্য মোঃ ইফতেখার আলম বিশাল একটি প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে এ প্রতিবাদ জানান।

দৈনিক কালের কন্ঠের ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক ও দু’জন প্রতিবেদকের বিরুদ্ধে মানহানির মামলা করেছেন রাজশাহী মহানগর আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক আজিজুল আলম বেন্টু।

রোববার দুপুরে মুখ্য মহানগর হাকিম আদালতে মামলাটি দায়ের করেন তিনি। আদালতের বিচারক সাইফুল ইসলাম মামলাটি আমলে নিয়ে কাশিয়াডাঙ্গা থানার ওসিকে তদন্তের নির্দেশ দিয়েছেন।

মামলায় আসামী করা হয়েছে, কালের কন্ঠের রাজশাহী অফিসের প্রতিবেদক রফিকুল ইসলাম, ঢাকা অফিসের প্রতিবেদক আব্দুল্লাহ আল মামুন, এবং কালের কন্ঠের ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক ইমদাদুল হক মিলনকে।

বাদি পক্ষের আইনজীবী লোকমান আলী বলেন, ‘আদালত আমাদের অভিযোগ মনোযোগ সহকারে শুনেছেন এবং সংশ্লিষ্ট থানায় তদন্তের জন্য পাঠিছেন। আমরা মনে করি এটি সঠিক আদেশ হয়েছে। কারণ আমাদের বিরুদ্ধে যে সংবাদ প্রকাশিত হয়েছে তার সত্যতা নিরুপণ হওয়া প্রয়োজন। সত্য নিরুপণ হলে সমাজ জানবে। দেশের মানুষ জানবে আমার মক্কেল ব্যক্তি দোষি ছিলেন, নাকি ওই পত্রিকা ভুল তথ্য সরবরাহ করেছিল।’

মামলার বাদি আজিজুল আলম বেন্টু বলেন, ‘মিথ্যা তথ্য দিয়ে সংবাদ প্রকাশ করে রাজনৈতিক, সামাজিক ও ব্যক্তিগতভাবে আমার এবং আমার পরিবারের যে সুনাম, সম্মান ক্ষুন্ন করা হয়েছে তার প্রতিকার চেয়েছি। আশা করছি- আদালতের মাধ্যমে আমি ন্যায় বিচার পাব।’

এদিকে, এই মামলা দায়েরের প্রতিবাদ জানিয়েছে রাজশাহী সাংবাদিক ইউনিয়ন। এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে রাজশাহী সাংবাদিক ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক তানজিমুল হক জানিয়েছেন, তিন সাংবাদিকের বিরুদ্ধে দায়েরকৃত মামলা স্বাধীন সাংবাদিকতার পথকে রুদ্ধ করবে। বাধাগ্রস্ত করবে গণতান্ত্রিক সংস্কৃতির বিকাশ। পাশাপাশি গণমাধ্যমকর্মীরা হয়রানির শিকার হবেন।

অবিলম্বে এ মামলার প্রত্যাহারের দাবি করছি। অন্যদিকে বিএমএসএফ’র পক্ষ থেকে বলা হয়েছে, প্রতিনিয়ত সাংবাদিকদের বিরুদ্ধে একেরপর মামলা-হামলা, হয়রাণী অব্যাহত রয়েছে। সাংবাদিকরা নিরাপদে পেশাগত দায়িত্ব পালন করতে পারছেন না।

কারো অনিয়ম-দূর্নীতির বিরুদ্ধে সংবাদ প্রকাশ করলেই মামলা দিয়ে হয়রাণী করা যেন প্রথা হয়ে দাঁড়িয়েছে। এ সকল প্রথা ভাঙ্গতেই বিএমএসএফ’র পক্ষ থেকে সাংবাদিক নির্যাতন বন্ধে যুগোপযোগি আইন প্রণয়নের দাবি করে সরকার ও গণমাধ্যমসমুহকে ১৪ দফা দাবি মেনে নেয়ার দাবি তুলে আসছে।

মতিহার বার্তা ডট কম – ২০ অক্টোবর ২০১৯

খবরটি শেয়ার করুন..

Leave a Reply