শিরোনাম :
গোদাগাড়ীতে জমি সংক্লান্ত বিরোধের জেরে প্রতিপক্ষের হামলায় আহত ২ রাজশাহী মহানগরীতে ডাকাত দলনেতা গ্রেফতার রাজশাহী মহানগরীর ফ্লাইওভার নির্মাণ কাজ পরিদর্শন করলেন রাসিক মেয়র গোদাগাড়ীতে নদী ভাঙ্গনে ক্ষতিগ্রস্থ পরিবারের মাঝে খাদ্য সহায়তা দিলেন জেলা প্রশাসক রাজশাহীতে নাশকতার মামলায় বিএনপির চার নেতা গ্রেপ্তার, আহত ১ মেসিরা হারুন বা জিতুন, ব্রাজিল বিশ্বকাপ জিতলে বেশি খুশি হবেন আর্জেন্টিনার কোচ! রান্না করা খাবার গরম করে খান? কোন খাবারগুলি দু’বার গরম করলে মারাত্মক বিপদ হতে পারে? কিশোরীর পাকস্থলীতে ৩ কেজি চুল! বৃদ্ধের পেট থেকে পাওয়া গেল ১৮৭ টি কয়েন! লাগবে না টাকা, লাগবে না কার্ড, নেই চুরির ভয়, কেনাকাটা জন্য অভিনব উপায় বেছে নিলেন যুবক
পাক জঙ্গি ঘাঁটি গুঁড়িয়ে দিলো ভারতীয় বায়ুসেনা’ সরকারি বিবৃতিতে বিদেশ মন্ত্রক সচিব

পাক জঙ্গি ঘাঁটি গুঁড়িয়ে দিলো ভারতীয় বায়ুসেনা’ সরকারি বিবৃতিতে বিদেশ মন্ত্রক সচিব

আন্তর্জাতিক ডেস্ক :নিয়ন্ত্রণরেখার ওপারে পাক অধিকৃত কাশ্মীরে জইশ জঙ্গি ঘাঁটি ধ্বংস করল ভারতীয় বায়ুসেনা। পুলওয়ামা হামলার প্রত্যাঘাতে মারা গিয়েছে অনেক জইশ ই মহম্মদের সিনিয়র কমান্ডাররাও। সরকারি বিবৃতিতে জানালেন ভারতীয় বিদেশ মন্ত্রক সচিব বিজয়কেশব গোখলে।

মঙ্গলবার ভোর সাড়ে তিনটে নাগাদ নিয়ন্ত্রণরেখার ওপারে হামলা চালায় বায়ুসেনা। তাতে ২৫০ জঙ্গি নিকেশ করে সেনা। এর পরই প্রধানমন্ত্রীর বাসভবনে নিরাপত্তা উপদেষ্টা অজিত ডোভাল, প্রতিরক্ষামন্ত্রী নির্মলা সীতারমন-সহ উচ্চ পদস্থ মন্ত্রীদের নিয়ে জরুরি নিরাপত্তা বৈঠকে বসেন প্রধানমন্ত্রী। প্রধানমন্ত্রীর জরুরি নিরাপত্তা বৈঠকের পরই এই সরকারি বিবৃতি দেন বিদেশ মন্ত্রক সচিব বিজয়কেশব গোখলে।

বিদেশ সচিব একে ‘নন-মিলিটারি প্রিএমটিভ অ্যাকশন’ বলেছেন। তিনি জানিয়েছেন, ভারতের সেনা গোয়ান্দাদের কাছে খবর ছিল পাকিস্তান ভারতের উপর হামলা চালাতে পারে। এই সম্ভাব্য হামলা প্রতিরোধের উদ্দেশেই ভারতের এই সেনা অভিযান।

সরকারি বিবৃতিতে বিদেশ সচিব জানান, এই প্রত্যাঘাতে মারা গিয়েছে জইশ ই মহম্মদের অনেক সিনিয়র কমান্ডার। বালাকোটে সবচেয়ে বড় জইশ জঙ্গি প্রশিক্ষণ শিবির ছিল। সেটা সম্পূর্ণ ধ্বংস করেছে ভারত। বায়ুসেনার এই প্রত্যাঘাতে বহু জঙ্গির মৃত্যু হয়েছে।

এই জঙ্গি ঘাঁটিগুলো পরিচালনা করত জইশ ই মহম্মদের জঙ্গি নেতা ইউসুফ আজহার। সে মাসুদ আজহারের শ্যালক। হামলার তারও মৃত্যু হয়েছে বলে জানিয়েছেন বিদেশ সচিব।

গত দু’দশক ধরে নিয়ন্ত্রণ রেখার ওপারে এবং পাকিস্তানেরও বিভিন্ন জায়গায় জঙ্গি সংগঠনগুলো সক্রিয় ছিল। ভারত একাধিকবার এ বিষয়ে প্রমাণ-সহ নথি পাকিস্তানকে তুলে দিয়েছে। অনুরোধ করেছে অবিলম্বে ওই পরিকাঠামোগুলোকে ধ্বংস করার। কিন্তু পাকিস্তান সে অনুরোধে কান দেয়নি। বিদেশ সচিব জানান, সে জন্যই এই পদক্ষেপটা অত্যন্ত জরুরি হয়ে পড়েছিল।আনন্দবাজার

মতিহার বার্তা ডট কম ২৬ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯

খবরটি শেয়ার করুন..

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *