শিরোনাম :
গোদাগাড়ীতে জমি সংক্লান্ত বিরোধের জেরে প্রতিপক্ষের হামলায় আহত ২ রাজশাহী মহানগরীতে ডাকাত দলনেতা গ্রেফতার রাজশাহী মহানগরীর ফ্লাইওভার নির্মাণ কাজ পরিদর্শন করলেন রাসিক মেয়র গোদাগাড়ীতে নদী ভাঙ্গনে ক্ষতিগ্রস্থ পরিবারের মাঝে খাদ্য সহায়তা দিলেন জেলা প্রশাসক রাজশাহীতে নাশকতার মামলায় বিএনপির চার নেতা গ্রেপ্তার, আহত ১ মেসিরা হারুন বা জিতুন, ব্রাজিল বিশ্বকাপ জিতলে বেশি খুশি হবেন আর্জেন্টিনার কোচ! রান্না করা খাবার গরম করে খান? কোন খাবারগুলি দু’বার গরম করলে মারাত্মক বিপদ হতে পারে? কিশোরীর পাকস্থলীতে ৩ কেজি চুল! বৃদ্ধের পেট থেকে পাওয়া গেল ১৮৭ টি কয়েন! লাগবে না টাকা, লাগবে না কার্ড, নেই চুরির ভয়, কেনাকাটা জন্য অভিনব উপায় বেছে নিলেন যুবক
অভিনন্দনের পাশে দাঁড়ানো এই মহিলাকে কি তার পরিচয়?

অভিনন্দনের পাশে দাঁড়ানো এই মহিলাকে কি তার পরিচয়?

আন্তর্জাতিক ডেস্ক : রাত নটা বেজে ২০ মিনিট৷ আত্তারি-ওয়াঘা সীমান্তে এলেন ভারতীয় বায়ুসেনার উইং কমান্ডার অভিনন্দন বর্তমান৷ ভারতের হাতে অভিনন্দনকে তুলে দিতে কিছুক্ষণের জন্য খোলা হয় ওয়াঘার গেট৷ সেই গেট দিয়ে ৫৫ ঘণ্টা পর দেশের মাটিতে পা রাখেন উইং কমান্ডার অভিনন্দন বর্তমান৷

এরপরই ভারতীয় বায়ুসেনা অভিনন্দনকে ঘিরে ছোট বলয় তৈরি করে৷ সেই বলয়ে এক মহিলার উপস্থিতি সবার চোখে পড়ে৷ লাল চুড়িদার ও পায়জামা পড়া সেই মহিলা অভিনন্দনের পাশেই দাঁড়ান৷ মাঝে তাঁকে বায়ুসেনার এক অফিসারের সঙ্গে ফিসফিস করে কথা বলতে দেখা যায়৷

এরপরই অভিনন্দনের পাশে দাঁড়ানো এই মহিলার পরিচয় জানার জন্য তৈরি হয় কৌতুহল৷ কেউ কেউ ওই মহিলাকে অভিনন্দনের স্ত্রী ভেবে বসেন৷ কিন্তু ভুল ভাঙে কিছুক্ষণ পর৷ ওই মহিলা অভিনন্দনের স্ত্রী নন৷ না তো তিনি উইং কমান্ডারের পরিবারের সদস্য৷ তাঁর নাম ডঃ ফারিহা বুগতি৷ তিনি পাকিস্তানের ফরেন অফিসে কর্মরতা৷

তাঁর সম্পর্কে যতটুকু তথ্য পাওয়া গিয়েছে তা হল তিনি একজন এফএসপি৷ পদমর্যাদায় ইন্ডিয়ান ফরেন সার্ভিসের সমান৷ বিদেশের মাটিতে ভারত সংক্রান্ত কেসগুলি তিনি দেখভাল করেন৷ পাকিস্তানের হাতে বন্দি ভারতীয় কুলভূষণ যাদবের কেসটি তিনি দেখছেন৷ পাকিস্তানের অভিযোগ, যাদব আসলে ভারতের চর৷ গত বছর ইসলামাবাদে কুলভূষণ যাদবের সঙ্গে যখন তাঁর মা ও স্ত্রী দেখা করতে গিয়েছিল সেই সাক্ষাতকারের সময় উপস্থিত ছিলেন ডঃ বুগতি৷

মতিহার বার্তা ডট কম ০২ মার্চ ২০১৯

খবরটি শেয়ার করুন..

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *