শিরোনাম :
রাজশাহীতে বালু মজুদ করতে ১০ একর জমির কাঁচা ধান সাবাড় বিশ্বের দীর্ঘতম গাড়িতে রয়েছে সুইমিং পুল, হেলিপ্যাডও ছুটির দিনে হেঁশেলে খুব বেশি সময় কাটাতে চান না? রবিবারে পেটপুজো হোক তেহারি দিয়েই দাম দিয়ে ছেঁড়া, রংচটা জিন্‌স কিনবেন কেন? উপায় জানা থাকলে নিজেই বানিয়ে ফেলতে পারেন উন্মুক্ত বক্ষখাঁজ, খোলামেলা পিঠ, ভূমির মতো ব্লাউজ় পরেই ভিড়ের মাঝে নজরে আসতে পারেন আপনিও স্পর্শকাতর ত্বকের জন্য বাড়িতেই স্ক্রাব তৈরি করে ফেলতে পারেন, কিন্তু কতটা চালের গুঁড়ো দেবেন? গরমে শরীর তো ঠান্ডা করবেই সঙ্গে ত্বকেরও যত্ন নেবে বেলের পানা, কী ভাবে বানাবেন? গাজ়া এবং ইরানে হামলা চালাতে ইজ়রায়েলকে ফের ৮ হাজার কোটি টাকার অস্ত্রসাহায্য আমেরিকার! ইজ়রায়েলকে জবাব দিতে সর্বোচ্চ নেতার ফতোয়ার কথাও ভুলতে চায় ইরান, এ বার কি পরমাণু যুদ্ধ? দিনাজপুরে ড্রাম ট্রাকসহ ১০০ কেজি গাঁজা জব্দ, গ্রেপ্তার ৩
ঢাকায় বঙ্গবন্ধু মেডিকেলে সিঙ্গাপুরের চিকিৎসক দল

ঢাকায় বঙ্গবন্ধু মেডিকেলে সিঙ্গাপুরের চিকিৎসক দল

মতিহার বার্তা ডেস্ক : গুরুতর অসুস্থ হয়ে হাসপাতালে থাকা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদেরের শারীরিক পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণে বাংলাদেশে এসে পৌঁছেছে সিঙ্গাপুরের চিকিৎসক দল। রোববার সন্ধ্যার পর এয়ার অ্যাম্বুলেন্সে করে ঢাকায় পৌঁছান তারা। এই চিকিৎসক দলে রয়েছেন সিঙ্গাপুরের মাউন্ট এলিজাবেথ হাসপাতালের তিন বিশেষজ্ঞ।

আওয়ামী লীগের প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক তথ্যমন্ত্রী হাছান মাহমুদ বলেন, বিশেষজ্ঞ যে চিকিৎসকরা সিঙ্গাপুর থেকে এসেছেন তারা পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণ করে দেখবেন। যদি উনার অবস্থা এয়ার অ্যাম্বুলেন্সে নেওয়ার মত হয়, তাহলে আজই তাকে এই অ্যাম্বুলেন্সে করে নেওয়া হবে।

ওবায়দুল কাদের বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় হাসপাতালের করোনারি কেয়ার ইউনিটে চিকিৎসাধীন রয়েছেন। বঙ্গবন্ধু মেডিকেলের কার্ডিওলজির অধ্যাপক সৈয়দ আলী আহসান জানিয়েছেন, এনজিওগ্রাম করার পর সেতুমন্ত্রীর আর্টারিতে ব্লক ধরা পড়েছে। তিনটি রক্তনালীতে ব্লক ধরা পড়ে। তার অবস্থা আশঙ্কা মুক্ত নয়। ২৪ থেকে ৭২ ঘণ্টা না গেলে কিছু বলাও যাবে না বলে জানিয়েছেন তিনি।

সন্ধ্যা পৌনে ছয়টার দিকে ওবায়দুল কাদেরের শারীরিক অবস্থার সর্বশেষ পরিস্থিতি নিয়ে গণমাধ্যমকে অধ্যাপক আলী আহসান বলেন, খুব বেশি পরিমাণ ব্লক যেটা ছিল যেটাকে এলইডি বলে, সেটিকে খুলে দেওয়ার জন্য সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। খুলে দেওয়ার পর তিনি দুই ঘণ্টা ভালো ছিলেন। এরপর তার রক্তচাপ আবারো কমে যায়। ইলেকট্রোলাইট ইমব্যালেন্স হয়।

তিনি আরো বলেন, তবে এখন চোখ খুলছেন মন্ত্রী। কিন্তু ক্রিটিক্যাল স্টেজই (জটিল অবস্থা) এখনো রয়েছেন। এ জন্য দেশবাসীর কাছে দোয়া প্রার্থনা করছি।

আওয়ামী লীগের নেতারা জানান, ফজরের নামাজের পর হঠাৎ করে শ্বাসকষ্ট অনুভব করেন ওবায়দুল কাদের। অবস্থার অবনতি হলে তাকে দ্রুত বঙ্গবন্ধু মেডিকেলে নিয়ে আসেন তার স্ত্রী ইশরাতুন্নেসা কাদের। তখনই তাকে হাসপাতালের সিসিইউতে স্থানান্তর করা হয়।

মতিহার বার্তা ডট কম ০৩  মার্চ ২০১৯

খবরটি শেয়ার করুন..

Leave a Reply