শিরোনাম :
গোদাগাড়ীতে জমি সংক্লান্ত বিরোধের জেরে প্রতিপক্ষের হামলায় আহত ২ রাজশাহী মহানগরীতে ডাকাত দলনেতা গ্রেফতার রাজশাহী মহানগরীর ফ্লাইওভার নির্মাণ কাজ পরিদর্শন করলেন রাসিক মেয়র গোদাগাড়ীতে নদী ভাঙ্গনে ক্ষতিগ্রস্থ পরিবারের মাঝে খাদ্য সহায়তা দিলেন জেলা প্রশাসক রাজশাহীতে নাশকতার মামলায় বিএনপির চার নেতা গ্রেপ্তার, আহত ১ মেসিরা হারুন বা জিতুন, ব্রাজিল বিশ্বকাপ জিতলে বেশি খুশি হবেন আর্জেন্টিনার কোচ! রান্না করা খাবার গরম করে খান? কোন খাবারগুলি দু’বার গরম করলে মারাত্মক বিপদ হতে পারে? কিশোরীর পাকস্থলীতে ৩ কেজি চুল! বৃদ্ধের পেট থেকে পাওয়া গেল ১৮৭ টি কয়েন! লাগবে না টাকা, লাগবে না কার্ড, নেই চুরির ভয়, কেনাকাটা জন্য অভিনব উপায় বেছে নিলেন যুবক
বাঘায় প্রতিবন্ধী শিশু ধর্ষণের অভিযোগ আসামি গ্রেফতার না হওয়ায় ভিকটিমের পরিবারের ক্ষোভ

বাঘায় প্রতিবন্ধী শিশু ধর্ষণের অভিযোগ আসামি গ্রেফতার না হওয়ায় ভিকটিমের পরিবারের ক্ষোভ

নিজেস্ব প্রতিবেদক : রাজশাহীর বাঘা উপজেলায় বুদ্ধি প্রতিবন্ধী এক শিশুকে ধর্ষণের দেড় মাস হতে চললো। এ ঘটনায় থানায় মামলা দায়ের হলেও ঘটনার মূল হোতা ও মামলাটির একমাত্র আসামি মিজানুর রহমান ওরফে মিজানকে এখনো গ্রেফতার করতে পারেনি পুলিশ।

মামলার আসামি প্রভাবশালী ব্যক্তির ছত্রছায়ায় ঘুরে বেড়াচ্ছেন। কিন্তু পুলিশ তাকে গ্রেফতার করতে না পারায় ভিকটিমের পরিবার ক্ষোভ ও অসন্তোষ প্রকাশ করেছেন।
মামলার এজাহার, ভুক্তভোগী পরিবার ও স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, ভিকটিম বাঘা উপজেলার মনিগ্রাম সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের চতুর্থ শ্রেণির ছাত্রী। অন্যান্য দিনের মত গত ২৩ জানুয়ারি বেলা ১১টার দিকে স্কুলে যাচ্ছিল সে।

পথে একা পেয়ে ভিকটিমকে ফুসলিয়ে মনিগ্রাম দক্ষিণপাড়া এলাকার এক ব্যক্তির আম ও খেজুর বাগানের নির্জন স্থানে নিয়ে যায়। পরে তাকে ধর্ষণ করা হয়। ঘটনাটি জানতে পেরে ভিকটিমের পরিবারের সদস্যরা অভিযুক্ত ব্যক্তির বাড়িতে গিয়ে তার বিচার দাবি করেন।

এরপর অভিযুক্ত মিজানের চাচাতো ভাই বাদশা ঘটনার সুষ্ঠু বিচার করে দেবেন বলে ভিকটিমের পরিবারকে আশ^াস দেন। কিন্তু বিচারের নামে ঘটনাটিকে ধামাচাপা দেয়ার অপচেষ্টা করা হচ্ছে বুঝতে পেরে ভিকটিমের বাবা বাদী হয়ে ধর্ষণের অভিযোগে ২০ ফেব্রুয়ারি বাঘা থানায় একটি মামলা দায়ের করেন।
ভুক্তভোগী পরিবারের অভিযোগ, মামলার আসামি মিজান তার চাচাতো ভাই প্রভাবশালী বাদশার ছত্রছায়ায় থাকায় পুলিশ তাকে গ্রেফতার করতে পারছে না। তাই প্রশাসনের উর্ধ্বতন কর্মকর্তাসহ প্রধানমন্ত্রীর হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন ভিকটিমের পরিবারের সদস্যরা।

এছাড়া দ্রুত আসামিকে গ্রেফতার করে আইনের আওতায় আনার দাবি জানান তারা।
এ ব্যাপারে বাঘা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মহসীন আলী জানান, প্রাথমিকভাবে মেয়েটিকে ধর্ষণের প্রমাণ মিলেছে।

ওসি বলেন, ভিকটিমের পরিবার অনেক বিলম্বে থানায় অভিযোগ করেছেন। দ্রুত অভিযোগ পেলে আরো ভালো হতো। এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, পুলিশ আসামিকে গ্রেফতারে জোর প্রচেষ্টা অব্যাহত রেখেছে। খুব দ্রুতই আসামি গ্রেফতার হবে বলে জানান ওসি।

মতিহার বার্তা ডট কম ০৪ মার্চ ২০১৯

খবরটি শেয়ার করুন..

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *