শিরোনাম :
রাজশাহীতে গণসমাবেশ সফল করার লক্ষ্যে উপজেলার হাট বাজারে লিফলেট বিতরণ করলেন বিএনপি নেতা উজ্জল কমলগঞ্জে বিদেশি মদসহ আটক ১ ছাত্রীদের শ্লীলতাহানির অভিযোগে এক শিক্ষক আটক বাজারে এল ‘বিশ্বের সবচেয়ে দামি ওষুধ’, এক ডোজের দাম ২৮ কোটি টাকা! সারা দিনে দু’লিটার জল খাওয়ার কি সত্যিই কোনও প্রয়োজন রয়েছে? কী বলছে গবেষণা? শীতের সন্ধ্যায় বন্ধুরা আড্ডা দিতে আসবেন? অল্প খরচে বাড়ি সাজাবেন কী ভাবে? শীত আসতেই পা ফাটতে শুরু করেছে বয়স ১২৬! কী খান, কী পান করেন, ‘রহস্য’ জানতে ভিড় উপচে পড়ল কলকাতার হাসপাতালে যুদ্ধের নয়া অস্ত্র মিলিব্লগার! ‘ভদকা খেয়ে মরলে কেউ খোঁজ রাখে? ছেলে তো দেশের জন্য শহিদ হয়েছে’! রুশ সেনার মাকে পুতিন
রাজশাহী উপজেলায় আটটিতেই জয়ী নৌকা প্রার্থীরা

রাজশাহী উপজেলায় আটটিতেই জয়ী নৌকা প্রার্থীরা

নিজস্ব প্রতিবেদক : রাজশাহী উপজেলা নির্বাচনে আটটিতেই আওয়ামী লীগের প্রার্থীরা বিজয়ী হয়েছেন । প্রথম ধাপে উপজেলা নির্বাচনে রাজশাহীতে রোববার সকালে ভোটগ্রহণ শুরু হয়। শেষ হয় বিকাল চারটায় । বেসরকারি ফলাফলে এ বিষয়ে জানা গেছে।

দুর্গাপুরে বিজয়ী হয়েছেন নজরুল ইসলাম, পুঠিয়ায় জিএম হীরা বাচ্চু, গোদাগাড়ীতে জাহাঙ্গীর আলম, বাগমারায় অনিল কুমার সরকার, চারঘাটে ফকরুল ইসলাম এবং তানোরে বিজয়ী হয়েছেন লুৎফর হায়দার রশিদ ময়না।

এছাড়াও জেলার বাঘায় আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী লায়েব উদ্দিন লাভলু ও মোহনপুরে মনোনয়নপত্র প্রত্যাহারের শেষ দিনে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হন আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী আব্দুস সালাম।

দুর্গাপুরে নৌকা প্রতীকে নজরুল ইসলাম ভোট পেয়েছেন ৩৫ হাজার ৮০৬ ভোট এবং স্বতন্ত্র প্রার্থী আব্দুল মজিদ সরদার ঘোড়া প্রতীকে পেয়েছেন ২৮ হাজার ৫৪৯ ভোট। এতে ৭ হাজার ২৫৭ ভোট বেশি পেয়ে নৌকা প্রতীকে নজরুল ইসলাম বিজয়ী হয়েছেন।

গোদাগাড়ীতে আওয়ামী লীগের জাহাঙ্গীর আলম পেয়েছেন ৪৮ হাজার ৩০ ভোট। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী দলের বিদ্রোহী প্রার্থী মো. বদিউজ্জামান আনারস প্রতীকে পেয়েছেন ১৮ হাজার ২১ ভোট।

বাগমারায় আওয়ামী লীগের প্রার্থী অনীল কুমার সরকা নৌকা প্রতীকে পেয়েছেন ৩২ হাজার ২৪৭ ভোট। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী বাবুল হোসেন আনারস প্রতীকে পেয়েছেন ৩ হাজার ৮৩৪ ভোট।

এদিকে তানোরে আওয়ামী লীগের লুৎফর হায়দার রশীদ ময়না নৌকা প্রতীকে পেয়েছেন ৩৭ হাজার ২২ ভোট। মাত্র ৩৫৪ ভোট কম পেয়ে ময়নার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী বাংলাদেশের ওয়ার্কার্স পার্টির প্রার্থী শরিফুল ইসলাম হাতুড়ি প্রতীকে পেয়েছেন ৩৬ হাজার ৮৬৬ ভোট।

চারঘাটে নৌকার প্রার্থী ফকরুল ইসলাম পেয়েছেন ৫১ হাজার ৩৪৮ ভোট। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী টিপু সুলতান মোটরসাইকেল প্রতীকে পেয়েছেন ২৫ হাজার ৪০১ ভোট।

পুঠিয়ায় নৌকার প্রার্থী জিএম হিরা বাচ্চু পেয়েছেন ৩৯ হাজার ৯৫৭ ভোট। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী জাতীয় পার্টির অধ্যাপক আনসার আলী লাঙল প্রতীকে পেয়েছেন ১ হাজার ৪৪৩ ভোট।

সবমিলিয়ে নয়টি উপজেলার মধ্যে নির্বাচন অনুষ্ঠিত আটটিতেই আওয়ামী লীগের মনোনীত প্রার্থীরা চেয়ারম্যান নির্বাচিত হলেন। পবা উপজেলায় আগেই নির্বাচন স্থগিত করা হয়।

মতিহার বার্তা ডট কম- ১০  মার্চ ২০১৯

খবরটি শেয়ার করুন..

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *