শিরোনাম :
গোদাগাড়ীতে জমি সংক্লান্ত বিরোধের জেরে প্রতিপক্ষের হামলায় আহত ২ রাজশাহী মহানগরীতে ডাকাত দলনেতা গ্রেফতার রাজশাহী মহানগরীর ফ্লাইওভার নির্মাণ কাজ পরিদর্শন করলেন রাসিক মেয়র গোদাগাড়ীতে নদী ভাঙ্গনে ক্ষতিগ্রস্থ পরিবারের মাঝে খাদ্য সহায়তা দিলেন জেলা প্রশাসক রাজশাহীতে নাশকতার মামলায় বিএনপির চার নেতা গ্রেপ্তার, আহত ১ মেসিরা হারুন বা জিতুন, ব্রাজিল বিশ্বকাপ জিতলে বেশি খুশি হবেন আর্জেন্টিনার কোচ! রান্না করা খাবার গরম করে খান? কোন খাবারগুলি দু’বার গরম করলে মারাত্মক বিপদ হতে পারে? কিশোরীর পাকস্থলীতে ৩ কেজি চুল! বৃদ্ধের পেট থেকে পাওয়া গেল ১৮৭ টি কয়েন! লাগবে না টাকা, লাগবে না কার্ড, নেই চুরির ভয়, কেনাকাটা জন্য অভিনব উপায় বেছে নিলেন যুবক
ফেন্সিডিল হাতে গ্রেফতার মেডিকেল ছাত্র “,টাকার বিনিময়ে ছাড়লো চন্দ্রিমা থানা পুলিশ

ফেন্সিডিল হাতে গ্রেফতার মেডিকেল ছাত্র “,টাকার বিনিময়ে ছাড়লো চন্দ্রিমা থানা পুলিশ

নিজেস্ব প্রতিবেদক: বাংলাদেশ পুরিশের উদ্ধতম কর্মকর্তারা বলছেন, মাদক একটি সামাজিক ব্যাধি। মাদকের ছোবলে সমাজের অনেক মানুষ বিপথগামী হয়ে যাচ্ছে। তাই মাদকের বিরুদ্ধে আমরা জিরো টলারেন্স নীতি গ্রহণ করেছি।

মাদক সংক্রান্ত বিষয়ে কাউকে কোনো ছাড় দেয়া হবে না। এমনকি মাদকের সঙ্গে যদি কোনো পুলিশ সদস্যও সম্পৃক্ত থাকে তাহলে তাকেও ছাড় দেয়া হবে না। রিতিমত মাদকের বিরুদ্ধে যুদ্ধ ঘোষনা করেছেন সরকার।

এমন সময় পুলিশের ভাবমুর্তি ক্ষুন্ন করতে উঠে পরে লেগে আছে কিছু অসাদু পুলিশ সদস্য। সম্প্রতি ঘটে যাওয়া ঘটনা গত বৃহস্পতিবার (১৪ মার্চ) দুপুর সাড়ে তিনটার দিকে শিরোইল কলোনী রেলওয়ে কোয়াটার থেকে বারিন্দ্র মেডিকেল কলেজের ছাত্র রায়হান (১৮)  ও তার বন্ধুকে ফেন্সিডিলসহ আটক করেন চন্দ্রিমা থানার এস আই ইসমাইল হোসেন ও সঙ্গীয়রা এবং তাদের কাছে ফেন্সিডিল জব্দ হয়েছে বলে থানায় নিয়ে যান।

এ ঘটনার প্রত্যক্ষদর্শী একজন রিক্সা চালক বলেন,মোটর সাইকেল নিয়ে দুজন ছেলে কোয়টারের দিকে যাচ্ছিল,তখন বাজে দুপুর সাড়ে তিনটা এমন সময় পুলিশের একজন সদস্য তাদের গতিরোধ করে। তাদের কাছে একটি সাদা ব্যাগে ফেন্সিডিল উদ্ধার করে পুলিশ ।

পরে থানায় নিয়ে গিয়ে দেনদরবার শেষে রাত ১১ টার দিকে ছেড়ে দেয়া হয় তাদের। এই দিকে আটক রায়হানের বাবা আইনুল হক জানান আমার ছেলেকে গাড়ির কাগজের বিষয়ে ধরেছিল পুলিশ। তার কাছে কোন কিছু পাইনি, তাদের যাচাই বাচাই শেষে ঘটনাস্থলে ছেড়ে দিয়েছেন তারা । কিন্তু তার ছেলেকে থানায় নিয়ে যাওয়ার কথা অশিকার করেন তিনি।

এ বিষয়ে এস আই ইসমাইল বলেন তাদের সন্দেহ মুলক ভাবে নিয়ে আসা হয়েছিল,পরে তাদের অবিভাবকরা থানায় এসে বুঝিয়ে বল্ল, রিপোর্ট খারাপ কিছু না পেয়ে একটি মুচলেকা নিয়ে ছেড়ে দেয়া হয়েছে। ঘটনা স্থলে ছেড়ে দেয়া যেত যেহেতু তারা মেডিকেলের ছাত্র ?এমন প্রশ্নের জবাবে এসআই ইসমাইল বলেন তারা পরিচয় দিয়েছিলো না ।

ছেলে দুটির একজন রেলওয়ে পশ্চিমানচলে কর্মরত আইনুল হকের ছেলে রায়হান (১৮) ও তার বন্ধু  তারা উভয় নগরীর বারিন্দ্র মেডিকেল কলেজের ছাত্র ।

মতিহার বার্তা ডট কম ১৫ মার্চ ২০১৯

খবরটি শেয়ার করুন..

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *