শিরোনাম :
গোদাগাড়ীতে জমি সংক্লান্ত বিরোধের জেরে প্রতিপক্ষের হামলায় আহত ২ রাজশাহী মহানগরীতে ডাকাত দলনেতা গ্রেফতার রাজশাহী মহানগরীর ফ্লাইওভার নির্মাণ কাজ পরিদর্শন করলেন রাসিক মেয়র গোদাগাড়ীতে নদী ভাঙ্গনে ক্ষতিগ্রস্থ পরিবারের মাঝে খাদ্য সহায়তা দিলেন জেলা প্রশাসক রাজশাহীতে নাশকতার মামলায় বিএনপির চার নেতা গ্রেপ্তার, আহত ১ মেসিরা হারুন বা জিতুন, ব্রাজিল বিশ্বকাপ জিতলে বেশি খুশি হবেন আর্জেন্টিনার কোচ! রান্না করা খাবার গরম করে খান? কোন খাবারগুলি দু’বার গরম করলে মারাত্মক বিপদ হতে পারে? কিশোরীর পাকস্থলীতে ৩ কেজি চুল! বৃদ্ধের পেট থেকে পাওয়া গেল ১৮৭ টি কয়েন! লাগবে না টাকা, লাগবে না কার্ড, নেই চুরির ভয়, কেনাকাটা জন্য অভিনব উপায় বেছে নিলেন যুবক
রাবিতে ফাইনাল পরীক্ষায় ৫৩ জনকে বাদ দিয়ে ১১ জন নিয়ে পরীক্ষা, অনশনে শিক্ষার্থীরা

রাবিতে ফাইনাল পরীক্ষায় ৫৩ জনকে বাদ দিয়ে ১১ জন নিয়ে পরীক্ষা, অনশনে শিক্ষার্থীরা

রাবি প্রতিনিধি: রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের মনোবিজ্ঞান বিভাগের মাস্টার্সের ফাইনাল পরীক্ষায় ৫৩ জনকে রেখে মাত্র ১১ জনকে নিয়ে পরীক্ষা নেওয়ার অভিযোগ পাওয়া গেছে।

এ ঘটনায় পুনরায় পরীক্ষার দাবিতে আমরণ অনশনে নেমেছে বিভাগটির শিক্ষার্থীরা। আজ শনিবার সন্ধ্যায় বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রশাসন ভবনের সামনে অবস্থান নেন তারা।

আন্দোলনাকারী শিক্ষার্থীরা জানান, গত ১৪ তারিখে বিভাগের মাস্টার্সের শিক্ষার্থী কানিজ ফাতেমার বাবা মারা যান, এঘটনায় শনিবার পূর্বনির্ধারিত ৫০২ নং কোর্স কোগনেটিভ নিউরো সাইকোলজি পরীক্ষা না নেওয়ার অনুরোধ জানায় শিক্ষার্থীরা।

পরীক্ষা কমিটির সভাপতি সাবিনা সুলতানাকেও মোখিকভাবে জানানো হয় বিষয়টি। তবুও মাত্র ৫৩ শিক্ষার্থীকে রেখেই শনিবার সাড়ে ১২ টা থেকে সাড়ে ৪ টা পর্যন্ত বিভাগের ৩৪১-৪২ নং কক্ষে পরীক্ষার আয়োজন করে বিভাগ কর্তৃপক্ষ। এঘটনায় পুনরায় পরীক্ষা নেওয়ার দাবি জানিয়ে অনশন করছে তারা।

এ ব্যাপারে জানতে চাইলে মাস্টার্স বর্ষের পরীক্ষা কমিটির সভাপতি সাবিনা সুলতানা বলেন, পরীক্ষার তারিখ নির্ধারিত ছিলো। পরীক্ষা স্থগিত করার নোটিশও দেওয়া হয়নি। এখন যারা পরীক্ষা দিতে এসেছে তাদের নিয়েই পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়েছে।

শিক্ষার্থীর বাবা মারা যাওয়ার বিষয়টি সম্পর্কে জানতে চাইলে তিনি বলেন, শিক্ষার্থীরা বলেছিলো স্থগিত করতে তবে পরীক্ষা কমিটি, বিভাগীয় সভাপতি মনে করেছে পরীক্ষা স্থগিত করা হবে না তাই পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়েছে।

এ দায় কমিটির সভাপতির নয় বলেও দাবি করেন তিনি।

এদিকে এ বিষয়ে জানতে মনোবিজ্ঞান বিভাগের সভাপতি ড. এনামুল হকের মুঠোফোনে বারবার যোগাযোগ করা হলেও তিনি ফোন রিসিভ করেন নি।

 মতিহার বার্তা ডট কম- ১৬ মার্চ ২০১৯

খবরটি শেয়ার করুন..

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *