শিরোনাম :
গোদাগাড়ীতে জমি সংক্লান্ত বিরোধের জেরে প্রতিপক্ষের হামলায় আহত ২ রাজশাহী মহানগরীতে ডাকাত দলনেতা গ্রেফতার রাজশাহী মহানগরীর ফ্লাইওভার নির্মাণ কাজ পরিদর্শন করলেন রাসিক মেয়র গোদাগাড়ীতে নদী ভাঙ্গনে ক্ষতিগ্রস্থ পরিবারের মাঝে খাদ্য সহায়তা দিলেন জেলা প্রশাসক রাজশাহীতে নাশকতার মামলায় বিএনপির চার নেতা গ্রেপ্তার, আহত ১ মেসিরা হারুন বা জিতুন, ব্রাজিল বিশ্বকাপ জিতলে বেশি খুশি হবেন আর্জেন্টিনার কোচ! রান্না করা খাবার গরম করে খান? কোন খাবারগুলি দু’বার গরম করলে মারাত্মক বিপদ হতে পারে? কিশোরীর পাকস্থলীতে ৩ কেজি চুল! বৃদ্ধের পেট থেকে পাওয়া গেল ১৮৭ টি কয়েন! লাগবে না টাকা, লাগবে না কার্ড, নেই চুরির ভয়, কেনাকাটা জন্য অভিনব উপায় বেছে নিলেন যুবক
সুস্থ থাকতে শরীরে ২০ রকম ফলের রসের ইনজেকশন দিলেন মহিলা, তার পর…

সুস্থ থাকতে শরীরে ২০ রকম ফলের রসের ইনজেকশন দিলেন মহিলা, তার পর…

আন্তর্জাতিক ডেস্ক : চিকিৎসার জন্য আধুনিক পদ্ধতিতে বিশ্বাস নেই তাঁর। প্রাচীন প্রচলিত ঘরোয়া পদ্ধতিই তাঁর পছন্দ রোগ মুক্তির দাওয়াই হিসেবে। কিন্তু সেই পদ্ধতি প্রয়োগ করতে গিয়েই জীবন বিপন্ন করে বসেছিলেন চিনের এক মহিলা। ৫১ বছরের ওই মহিলার নাম জেং বলে জানা গিয়েছে।

সংবাদ সূত্রের খবর, জেং মনে করতেন ফলের রস স্বাস্থ্যের জন্য ভাল হলেও সরাসরি রক্তে মিশলে তা আরও ভাল কাজ করতে পারে। তাই প্রায় ২০ ধরনের ফলের রসের একটি মিশ্রণ তৈরি করেন তিনি। পান না করে, সেই ফলের রস সরাসরি সিরিঞ্জের মধ্যে ভরে ইনজেকশন নেন তিনি। কিন্তু তার ফল হয় মারাত্মক। অসম্ভব চুলকানি শুরু হয় সারা গায়ে। মারাত্মক বেড়ে যায় শরীরের তাপমাত্রাও। মৃতপ্রায় অবস্থায় ওই মহিলাকে ভর্তি করা হয় হাসপাতালের ইনটেনসিভ কেয়ার ইউনিট (আইসিইউ)-এ।

চিনের হুনান প্রদেশের যিয়াংগান ইউনিভার্সিটি হাসপাতালের ডাক্তাররা বলছেন, এর ফলে ওই মহিলার যকৃত, কিডনি, হৃদপিণ্ড এবং ফুসফুস মারাত্মক ভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে।

এই ঘটনা সামনে আসতেই শোরগোল পড়ে যায় চিনা সামাজিক মাধ্যমে। অনেকেই বলতে থাকেন, চিনে বহু মানুষের কাছেই যে এখনও স্বাস্থ্য রক্ষার নিরাপদ উপায় সম্পর্কে সঠিক তথ্য নেই, এই ঘটনায় তা প্রমাণিত। আধুনিক চিকিৎসার ব্যাপারে মানুষকে আরও বেশি করে জানানোর প্রয়োজনীয়তার কথাও বলেন অনেকে। সদ্য এখন হাসপাতাল থেকে ছাড়া পেয়ে নিজের বাড়িতে ফিরে গেছেন জেং।

মতিহার বার্তা ডট কম  ২০ মার্চ ২০১৯

খবরটি শেয়ার করুন..

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *