শিরোনাম :
সাধারণ মানুষ সমাবেশ প্রত্যাখান করেছে, রাসিক মেয়র লিটন রাজশাহী নগরীর ঐতিহাসিক মাদ্রাসা মাঠে বিএনপির গণসমাবেশ শুরু কাজ হল না বিষেও! আসামির মৃত্যু নিশ্চিত করতে ভয়ঙ্কর পন্থা নিলেন জেল কর্তৃপক্ষ সঙ্গ পেতে মহিলাকে নিয়ে কলকাতার হোটেলে, প্রতিশ্রুতি মতো টাকা না দেওয়ায় ধৃত ৩ বাংলাদেশি প্রি-কোয়ার্টার ফাইনালে উঠে এখন লজ্জায় মুখ দেখাতে পারছেন না স্পেনের কোচ, কেন? বদলের ব্রাজিলে নজিরের মুখে দাঁড়িয়ে আলভেস, পেলেকে শুভেচ্ছা জানিয়ে নামছে সেলেকাওরা বিশ্বকাপে নেমারের খেলার সম্ভাবনা নিয়ে এ বার মুখ খুললেন তাঁর বাবা রাজশাহীতে আনোয়ার হোসেন উজ্জলের নেতৃত্বে হাজার হাজার মানুষের মিছিল অনুষ্ঠিত শীত উপেক্ষা করে খোলা মাঠে রাত কাটালো বিএনপির নেতাকর্মীরা রাজশাহীতে বিএনপির সমাবেশে যেতে পথে পথে বাধা
হাসপাতালের নারী রোগীকে ধর্ষণ করলো চিকিৎসক’ সহযোগিতায় নার্স

হাসপাতালের নারী রোগীকে ধর্ষণ করলো চিকিৎসক’ সহযোগিতায় নার্স

আন্তর্জাতিক ডেস্ক :প্রচণ্ড শ্বাসকষ্ট নিয়ে নার্সিংহোমে ভর্তি হয়েছিলেন ২৯ বছর বয়সী এক নারী। অবস্থা গুরুতর হওয়ায় রোগীকে রাখা হয়েছিলো আইসিইউ-তে।

কিন্তু সেই অসুস্থ নারীকেই গণধর্ষণ করলেন এক ডাক্তার ও ওয়ার্ডবয়সহ চারজন মিলে।চাঞ্চল্যকর এ ঘটনাটি ঘটেছে ভারতের মিরাট শহরে।

গত বৃহস্পতিবার প্রচণ্ড শ্বাসকষ্টের সমস্যা নিয়ে মিরাটের এক নার্সিংহোমে ভর্তি হন ২৯ বছর বয়সী ওই নারী। তার ফ্যাটি লিভারের চিকিত্সা চলছিল। অবস্থার অবনতি হওয়ায় গত শনিবার তাকে আইসিইউ-তে স্থানান্তরিত করা হয়।

কিন্তু ওই দিন রাতেই তাকে ধর্ষণের চক্রান্ত করে হাসপাতালের চিকিৎসক ও ওয়ার্ডবয়রা। আর তাদের ওই অপরাধ বাস্তবায়িত করতে এগিয়ে আসে সেখানকারই এক নার্স।

শনিবার রাতে ওই নার্স রোগীকে ঘুমের ইনজেকশন দিয়ে অজ্ঞান করে দেন। তারপর ওই সংজ্ঞাহীন নারীর ওপর একে একে ঝাঁপিয়ে পড়েন ডাক্তার ও ওয়ার্ডবয়সহ মোট চারজন।
রোববার সকালে জ্ঞান ফেরার পরই ওই নারী বুঝতে পারেন তিনি ধর্ষিতা হয়েছেন। পরে এ নিয়ে স্থানীয় থানায় অভিযোগ করেছেন ওই নারী।

তিনি পুলিশকে জানিয়েছেন, জ্ঞান ফেরার পর তিনি দেখেন তার বেডে অর্ধনগ্ন অবস্থায় শুয়ে রয়েছে এক ওয়ার্ডবয়। ওই নারীর স্বামী তখন ওই ওয়ার্ডবয়কে ধরার চেষ্টা করতেই সে পালিয়ে যায়। ইতিমধ্যে ধর্ষণের অভিযোগে ওই নার্সিংহোমের চারজনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। এদের মধ্যে এক ডাক্তারও রয়েছে।

ধরা পড়ার পর তারা নিজেদের দোষ স্বীকার করেছে। তারা জানায়, ওই নারীকে নির্বিঘ্নে ঘর্ষণ করার জন্যই নার্স তাকে ঘুমের ইনজেকশন দিয়েছিল। কিন্তু অভিযুক্ত ওই নার্সকে এখনও গ্রেপ্তার করতে পারেনি পুলিশ। ঘটনার পর থেকেই তিনি পলাতক রয়েছেন।

মতিহার বার্তা ডট কম  ২৬  মার্চ ২০১৯

খবরটি শেয়ার করুন..

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *