শিরোনাম :
রাজশাহীতে বালু মজুদ করতে ১০ একর জমির কাঁচা ধান সাবাড় বিশ্বের দীর্ঘতম গাড়িতে রয়েছে সুইমিং পুল, হেলিপ্যাডও ছুটির দিনে হেঁশেলে খুব বেশি সময় কাটাতে চান না? রবিবারে পেটপুজো হোক তেহারি দিয়েই দাম দিয়ে ছেঁড়া, রংচটা জিন্‌স কিনবেন কেন? উপায় জানা থাকলে নিজেই বানিয়ে ফেলতে পারেন উন্মুক্ত বক্ষখাঁজ, খোলামেলা পিঠ, ভূমির মতো ব্লাউজ় পরেই ভিড়ের মাঝে নজরে আসতে পারেন আপনিও স্পর্শকাতর ত্বকের জন্য বাড়িতেই স্ক্রাব তৈরি করে ফেলতে পারেন, কিন্তু কতটা চালের গুঁড়ো দেবেন? গরমে শরীর তো ঠান্ডা করবেই সঙ্গে ত্বকেরও যত্ন নেবে বেলের পানা, কী ভাবে বানাবেন? গাজ়া এবং ইরানে হামলা চালাতে ইজ়রায়েলকে ফের ৮ হাজার কোটি টাকার অস্ত্রসাহায্য আমেরিকার! ইজ়রায়েলকে জবাব দিতে সর্বোচ্চ নেতার ফতোয়ার কথাও ভুলতে চায় ইরান, এ বার কি পরমাণু যুদ্ধ? দিনাজপুরে ড্রাম ট্রাকসহ ১০০ কেজি গাঁজা জব্দ, গ্রেপ্তার ৩
ঘুমন্ত স্বামীর গায়ে এক কড়ই গরম তেল ঢাললেন স্ত্রী!

ঘুমন্ত স্বামীর গায়ে এক কড়ই গরম তেল ঢাললেন স্ত্রী!

আন্তর্জাতিক ডেস্ক : কলকাতার শেওড়াফুলি গড়বাগান এলাকায় স্ত্রীকে  সন্দেহ করতেন স্বামী। সেই নিয়ে নিত্যদিন চলত ঝগড়া-বিবাদ। মনে মনে স্বামীকে ‘শাস্তি’ দেওয়ার চিন্তা করলেন স্ত্রী। অভিযোগ, ঝগড়া এমনই চরম পর্যায় চলে যায় যে ঘুমন্ত স্বামীর গায়ে এক গামলা গরম তেল ঢেলে দেন তিনি। ঘটনার বীভৎসতায় চমকে উঠেছেন পুলিশ কর্তারাও। আশঙ্কাজনক অবস্থায় সেই ব্যক্তির চিকিৎসা চলছে হাসপাতালে।

শেওড়াফুলি গড়বাগান এলাকার বাসিন্দা অমিত সাহার গায়ে গরম তেল ঢেলে দেওয়ার অভিযোগ উঠল তাঁর স্ত্রী লিপিকার বিরুদ্ধে। পুলিশকে গোটা ঘটনারই বিবরণ দিয়েছে অমিত-লিপিকার ছেলে রিতেশ। মায়ের দিকেই অভিযোগের আঙুল তুলেছে কিশোর। তার বয়ানের ভিত্তিতেই লিপিকাকে আটক করেছে পুলিশ।

এলাকায় লুচি-পুরীর দোকান রয়েছে অমিতের। তাঁর পরিবার সূত্রে খবর, সতেরো বছর আগে লিপিকার সঙ্গে বিয়ে হয় অমিতের। বিয়ের পর থেকেই স্বামী-স্ত্রীয়ের মধ্যে বিশেষ বনিবনা ছিল না। প্রায়ই দু’জনের মধ্যে ঝগড়া, অশান্তি হত বলে জানিয়েছেন স্থানীয়রাও। অভিযোগ, লিপিকাকে নানা ভাবে সন্দেহ করতেন অমিত। সে পরকীয়ায় জড়িয়ে পড়েছে এমন দাবিও নাকি তুলেছিলেন তিনি। সেই নিয়ে বেশ কিছুদিন ধরেই বিবাদ চরমে ওঠে।

বৃহস্পতিবার ফের শুরু হয় অশান্তি। রিতেশের দাবি, রাত অবধি ঝগড়া করেন তার মা-বাবা। তার পর রাতে অমিত ঘুমিয়ে পড়লে লিপিকা এক কড়া তেল গরম করে স্বামীর গায়ে ঢেলে দেন। যন্ত্রণায় চিৎকার করে ওঠেন অমিত। বাবাকে চেঁচাতে দেখে ছুটে আসে রিতেশ। তার কথায়, “চিৎকার শুনে আমি ছুটে গিয়ে দেখি যন্ত্রণায় কাতরাচ্ছে বাবা। সারা গা পুড়ে গেছে। মুখ সাদা। ঘরে মা নেই। আমি ছুটে গিয়ে পাশের বাড়ির লোকজনকে ডেকে আনি। ”

স্থানীয়রাই অমিতকে উদ্ধার করে প্রথমে শ্রীরামপুর ওয়ালস হাসপাতালে ভর্তি করেন। পরে অবস্থার অবনতি হলে তাঁকে নিয়ে যাওয়া হয় কলকাতা মেডিক্যাল কলেজে।

লিপিকার নামে পুলিশের কাছে লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন অমিতের বোন প্রিয়ঙ্কা পাল। পুলিশ জানিয়েছে, অভিযোগ প্রমাণিত না হওয়া পর্যন্ত লিপিকাকে পুলিশি হেফাজতেই রাখা হবে। তাঁকে জিজ্ঞাসাবাদ করা চলছে।

মতিহার বার্তা ডট কম ২৯ মার্চ ২০১৯

খবরটি শেয়ার করুন..

Leave a Reply