ভয়ঙ্কর এক জীবন যুদ্ধে ক্ষতবিক্ষত দুই যোদ্ধা

ভয়ঙ্কর এক জীবন যুদ্ধে ক্ষতবিক্ষত দুই যোদ্ধা

মতিহার বার্তা ডেস্ক : ওয়াশিংটন: নাগপাশে ছটফট করছে বিশাল বাজের দেহ৷ ক্রমে তাকে পেঁচিয়ে ধরছে প্রতিদ্বন্দ্বী ব়্যাট স্নেক৷ আর শিকারী বাজ খুঁজছে একটা সুযোগ৷ তীক্ষ্ণ নখের আঁচড়ে ক্ষতবিক্ষত করছে সাপটাকে৷ এক সময় মিলে গেল সুযোগ- আঁকশির মতো নখ দিয়ে সাপের দেহ খুবলে নেওয়ার ভয়ঙ্কর চাপ দিল পাখিটা৷ একেই বলে মরণ চেষ্টা ? হতেই পারে৷

দু পক্ষই মরণের মুখে৷ তবে জিতবে একজনই৷ আর যে জিতবে সেই সিকন্দর৷

ঘটনা মার্কিন মুলুকের৷ টেক্সাসের একটি বিদ্যালয়ের পড়ুয়া ঘুরতে গিয়েছিল৷ ঘোরার মাঝেই তারা জঙ্গলে দেখতে পায় এই অদম্য লড়াইয়ের মুহূর্ত৷ একটি শিকারী বাজ ও ব়্যাট স্নেক পরস্পরকে জাপটে নিয়েছে৷ তারা লড়াই করছে অরণ্যের প্রাচীন সত্যকে প্রতিষ্ঠা করার৷ এই লড়াইয়ে হয় জয় নয় মৃত্যু৷

স্তম্ভিত হয়ে সবাই সেই লড়াই দেখে৷ কেউ কেউ সেই ছবি ক্যামেরা বা মোবাইলে বন্দি করে৷ তারপর যা হওয়ার তাই হয়েছে৷ ভয়ঙ্কর এক জীবন যুদ্ধে ক্ষতবিক্ষত দুই যোদ্ধার ছবি ছড়িয়ে পড়েছে বিশ্বজুড়ে৷ ঘটনাস্থল সেন্টার৷ সেখানেই এরকম আদিম লড়াইয়ের আখড়া৷

টেক্সাস বনভাগের কর্মীরা জানিয়েছেন, প্রথমদিকে পড়ুয়ারা মনে করেছিল বাজ আর সাপ দুটোই মৃত৷ কিন্তু পরে খতিয়ে দেখা যায় দুই যোদ্ধা একে অপরকে আঁকড়ে ধরে মেরে ফেলতে চাইছে৷ পরে এটাকেই বনবিভাগ জীবন-মৃত্যুর লড়াই হিসেবে চিহ্নিত করেছে৷ তাঁদের ভাষায়।

ধারণা করা হচ্ছে, শিকারী বাজ তার স্বভাবমতো উপর থেকে ছোঁ মেরে এসে মাটিতে থাকা সাপটিকে তুলে নিতে চেয়েছিল৷ কিন্ত কোনও কারণে সেই চেষ্টা সফল হয়নি৷ তারপরেই বাগে পেয়ে যায় ব়্যাট স্নেক৷ সে জড়িয়ে ধরে বাজকে৷ শুরু হয় মল্লযুদ্ধ৷ যে যুদ্ধের কোনও ইতি হয়নি৷ দু জনকেই উদ্ধার করেছে বনবিভাগ৷

মতিহার বার্তা ডট কম ২৯ মার্চ ২০১৯

খবরটি শেয়ার করুন..

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *