ভারতের অন্তত ছয় রাজ্যে হামলা হতে পারে বলে আশঙ্কা, কর্ণাটক পুলিশের

ভারতের অন্তত ছয় রাজ্যে হামলা হতে পারে বলে আশঙ্কা, কর্ণাটক পুলিশের

ফাইল ফটো

আন্তর্জাতিক ডেস্ক : শ্রীলঙ্কায় হামলার ভারতেও জারি হাই অ্যালার্ট। ১৯ জঙ্গির উপস্থিতির রিপোর্ট দিল কর্ণাটক পুলিশ। দেশের অন্তত ছয় রাজ্যে হামলা হতে পারে বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে।

জঙ্গি হামলার সতর্কবার্তা পেয়ে ছয় রাজ্যের ডিজি-কে চিঠি দিয়েছেন কর্ণাটকের ডিজি-আইজিপি নীলমনি এন রাজু। শুক্রবারই ওই চিঠি লিখেছেন তিনি। অ্যালার্ট জারি হয়েছে কেন্দ্র শাসিত অঞ্চলেও। মূলত দেশের দক্ষিণেই জঙ্গি হামলার আশঙ্কা করা হচ্ছে।

পুলিশ অফিসারের চিঠি অনুযায়ী, তাঁর কাছে এক অজ্ঞাতপরিচয় ব্যক্তির ফোন এসেছিল। সেই ফোনেই দেশের ছয় রাজ্যে হামলার ব্যাপারে সতর্ক করা হয়েছে। হিট লিস্টে রয়েছে তামিলনাড়ু, কর্ণাটক, কেরল, অন্ধ্রপ্রদেশ, তেলেঙ্গানা, পুদুচেরী, গোয়া ও মহারাষ্ট্র।

বিশেষত ট্রেনে হামলা হতে পারে বলে ওই ফোনে সতর্ক করা হয়েছে। কর্ণাটক পুলিশের তরফ থেকে জানানো হয়েছে, তামিলনাড়ুর রামনাথপুরমে অন্তত ১৯ জঙ্গি লুকিয়ে থাকতে পারে বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে।

কোনও ঘটনা ঘটার আগে যাতে যথাযথ ব্যবস্থা নেওয়া হয়, সে ব্যাপারে সতর্ক করেছে কর্ণাটক পুলিশ। গত সপ্তাহেই ইস্টারের সকালে পরপর বিস্ফোরণে কেঁপে উঠেছে শ্রীলঙ্কা। অন্তত ২৫০ জনের মৃত্যুর খবর পাওয়া গিয়েছে। এরপরই ভারতের দক্ষিণে হামলার আশঙ্কা বেড়েছে।

এদিকে, সূত্রের খবর, কর্ণাটকের একাধিক শহর জঙ্গিদের নিশানায় আছে৷ স্বরাষ্ট্রমন্ত্রক ও গোয়েন্দা এজেন্সির এমন সতকবার্তাকে মোটেই হালকা ভাবে নিচ্ছে না রাজ্য প্রশাসন৷ রাজ্যের আইটি হাব বলে পরিচিত বেঙ্গালুরুতে তাই জারি হয়েছে হাই অ্যালার্ট৷ পাশাপাশি মহীশূরেও সতর্কতা জারি করা হয়েছে৷

বেঙ্গালুরুর পুলিশ কমিশনার টি সুনেল কুমার জানিয়েছেন, শহরের সব শপিং মল, ধর্মীয় স্থান, এয়ারপোর্ট, রেল স্টেশন, বাস টার্মিনাস ও অন্যান্য পাবলিক প্লেসে অতিরিক্তি নিরাপত্তা বাহিনী মোতায়েন করা হয়েছে৷ শ্রীলঙ্কা বিস্ফোরণ থেকে শিক্ষা নিয়ে শহরের বিভিন্ন হোটেল, রেস্টুরেন্টের মালিকদেরও তাদের নিরাপত্তা পরিকাঠামো আরও শক্তিশালী করতে বলা হয়েছে৷ পুলিশ কমিশনার জানান, এই হোটেল, পাব ও রেস্টুরেন্টগুলিকে সিসিটিভি ক্যামেরার সংখ্যা বাড়াতে বলা হয়েছে৷ ফায়ার অ্যালার্ম ঠিক মতো কাজ করছে কিনা সেগুলি যাচাই করতে বলা হয়েছে৷ হোটেলে আসা গাড়িগুলিতে মেটাল ডিটেক্টর দিয়ে যেন চেকিং করা হয়৷

তিনি স্বীকার করে নেন, এত বড় শহরে সব জায়গায় নিরাপত্তা দেওয়া সম্ভব নয়৷ তাই নাগরিক হিসাবে অন্যান্যদের কর্তব্য নিজেদের নিরাপত্তা ব্যবস্থার দিকেও নজর রাখা৷ বেঙ্গালুরুতে সারা বছর জেনারেল অ্যালার্ট জারি থাকে৷ কারণ এখানে রয়েছে ৫০০টি গ্লোবাল আইটি ফার্ম, এরোস্পেস ইন্ডাস্ট্রি, ইসরো, ডিফেন্স ল্যাব ও অন্যান্য গুরুত্বপূর্ণ প্রতিষ্ঠান৷ সূত্র:কলকাতা ২৪x৭

মতিহার বার্তা ডট কম  ২৮  এপ্রিল  ২০১৯

খবরটি শেয়ার করুন..

Leave a Reply