শিরোনাম :
আরএমপি পুলিশের মাসিক অপরাধ পর্যালোচনা সভা অনুষ্ঠিত চারঘাটে গাঁজা- সহ ২জন মাদক কারবারীকে গ্রেফতার রাজশাহী মহানগরীতে পুলিশের অভিযানে গ্রেফতার ১৯ রাজশাহী বোর্ডে এইচএসসি পরীক্ষায় বসছে এক লাখ ৩৮ হাজার ১৫৭ শিক্ষার্থী রাজশাহীতে জমেছে পশুহাট, লাখের নিচে মিলছে না কোরবানিযোগ্য গরু দ্রুত সময়ে কোরবানির বর্জ্য অপসারণ বিষয়ে রাসিকের সমন্বয় সভা অনুষ্ঠিত রোদে পোড়া কালচে ত্বক নিয়ে চিন্তায় পড়েছেন? ঘরোয়া টোটকা দিচ্ছেন প্রিয়ঙ্কা চোপড়া তেল বেশি গরম করলে কি খাদ্যগুণ চলে যায়? কী বলছেন পুষ্টিবিদ‌রা? বিশ্বকাপের প্রথম ম্যাচের আগে ধাক্কা পাকিস্তানে, চোটে বাদ অবসর ভেঙে ফেরা ক্রিকেটার সিঙ্গাপুর, হংকংয়ের পর এ বার ভারতের মশলা নিষিদ্ধ করল পড়শি ‘বন্ধু’ দেশ
গুরুদাসপুরে কন্যা সন্তানের মা হলেন ৪র্থ শ্রেণির স্কুল ছাত্রী

গুরুদাসপুরে কন্যা সন্তানের মা হলেন ৪র্থ শ্রেণির স্কুল ছাত্রী

গুরুদাসপুরে কন্যা সন্তানের মা হলেন ৪র্থ শ্রেণির স্কুল ছাত্রী
গুরুদাসপুরে কন্যা সন্তানের মা হলেন ৪র্থ শ্রেণির স্কুল ছাত্রী

নাটোর প্রতিনিধি : চতুর্থ শ্রেণীর শিক্ষার্থী। ১০ মাস পূর্বে ধর্ষণের শিকার হয়ে অন্তঃসত্ত্বা হয়েছিলো। প্রতিবেশী দুসম্পর্কের অভিযুক্ত নানা জাহিদুল খাঁ (৫০) ধর্ষণ মামলায় গ্রেফতার হয়ে কারাগারে রয়েছে।

এ দিকে শনিবার (২ সেপ্টেম্বর) গুরুদাসপুর স্ব্যাস্থ্য কমপ্লেক্সে সিজারের মাধ্যমে দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে ওই স্কুলছাত্রীর কোল জুড়ে জন্ম নিয়েছে ফুটফুটে এক কন্যা সন্তান। বাঁচ্চাটিকে এক নজর দেখতে উৎসুক জনতার ভির জমেছে হাসপাতালে।

ওই স্ব্যাস্থ্য কমপ্লেক্সের গাইনি বিশেজ্ঞ ডাক্তার নারগিস তানজিমা ফেরদৌস ও পঃপঃ কর্মকর্তা ডঃ মোজাহিদুল ইসলাম জানান, স্কুল ছাত্রীটি ছোট থাকায় মা ও নবজাতক কে বাঁচানো নিয়ে টেনশানে ছিলাম। যা হোক অবশেষে সফল অস্ত্র পাচার হয়েছে। মা ও নবজাতক সুস্থ্য রয়েছে।

ওই স্কুল ছাত্রীর দাদী হালিমা খাতুন (৬০) জানান, আমি গরিব মানুষ অন্যের বাড়িতে কাজ করে অতি কষ্টে সংসার চালাই। এব্যাপারে আমাদের কষ্টের কথা ভেবে প্রয়াত স্থানীয় সংসদ সদস্য অধ্যাপক আব্দুল কুদ্ধুস ১৫ দিন আগে ২০ হাজার টাকা দিয়েছিলেন। এগুলো দিয়েই ওর সেবা করেছি। এখন নানা চিন্তা আমাকে আঁকড়ে ধরেছে। কি করবো ভেবে পাচ্ছি না। নবজাতকটিকে যদি কেই দত্তক নিতো তাহলে কিছুটা হলেও সস্তি পেতাম।

উল্লেখ্য, সংসারে পারিবারিক কলহের কারণে শিশুটির বাবা-মার সংসার ভেঙে যায়। পরবর্তীতে বাবা ও মা অন্যত্র বিয়ে করে। এরপর থেকে শিশুটি তার নানীর কাছে থাকতো। এলাকার এক দুসম্পর্কের নানা জাহিদুল খাঁ মাঝে মধ্যে স্কুল ছাত্রীকে নিয়ে তার ভ্যানে করে স্কুলে আনা নেওয়া করতো। পরে ৫ মাস পর শিশুটির শারীরিক পরিবর্তন দেখে পরিবারের মানুষ জিজ্ঞেস করলে কোনো উত্তর দেয়নি স্কুল ছাত্রী।

তবে পরীক্ষা করার পর গর্ভে সন্তান থাকার কথা জানতে পারে পরিবার। পরবর্তীতে স্থানীয় একটি ক্লিনিকে নিয়ে আল্ট্রাসনোগ্রাফি করার মাধ্যমে চিকিৎসক অন্তঃসত্ত¦ার বিষয়টি জানাযায়। পরে স্কুল ছাত্রী এ ঘটনা তার পরিবারকে খুলে বলে। পরে গত ১৮ জুন শিশুটির দাদী হালিমা খাতুন বাদী হয়ে গুরুদাসপুর থানায় একটি ধর্ষণ মামলা দায়ের করেন।

দীর্ঘ সময় পরে র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়ন (র‌্যাব-৫) গত (২৬ আগস্ট) সকালে র‌্যাব-৫ এর অধিনায়ক ফরিদপুর জেলার আলফাডাঙ্গা থানার হেলেঞ্চা এলাকা থেকে তাকে গ্রেফতার করে। গ্রেফতার হওয়া জাহিদুল খাঁ গুরুদাসপুর উপজেলার ধারাবারিষা ইউনিয়নের দক্ষিণ নাড়িবাড়ি গ্রামের মৃত্য কালু খাঁর ছেলে।

ওই স্কুল ছাত্রী জানায়, অনেক আগে থেকেই তাকে আদর করতেন নানা জাহিদুল ইসলাম। বিভিন্ন সময়ে খাবার জিনিস কিনে দিতেন। প্রায়ই তার ভ্যানযোগে তাকে স্কুলে আনা-নেওয়া করতেন। ঘটনার দিন স্কুলে যাওয়ার জন্য গোসল করে বাড়ির ভেতর কাপড় পরিবর্তন করছিল শিশুটি। বাড়িতে কেউ না থাকার সুযোগে ধর্ষক জাহিদুল ইসলাম বাড়ির ভেতর ঢুকে ঘরে গিয়ে কাপড় পরিবর্তন করতে বলে। ঘরে ঢুকতেই পেছন থেকে তাকে জাপটে ধরে মুখে গামছা পেঁচিয়ে ধর্ষণ করেন। বিষয়টি কাউকে জানালে শিশুটিকে মেরে ফেলার হুমকি দেন তিনি। ফলে ওই ঘটনা কাউকে বলতে সাহস পায়নি শিশুটি।

খবরটি শেয়ার করুন..

Leave a Reply