শিরোনাম :
দ্রুত ওজন কমাতে পারে ফুলকপি!

দ্রুত ওজন কমাতে পারে ফুলকপি!

দ্রুত ওজন কমাতে পারে ফুলকপি!
দ্রুত ওজন কমাতে পারে ফুলকপি!

তুরজিম তানজিম : শীতের মরশুমে ফুলকপি রান্না হবেনা তা কি হয়? ফুলকপি শুধু খেতেই ভাল সেটা নয়, এতে রয়েছে বহু গুণ! এতে থাকা সালফার সুস্বাস্থ্য ধরে রাখার জন্য উপকারী। নানাগুণে গুণান্বিত এই সবজি রোগ প্রতিরোধক হিসেবে দারুণ উপকারী। খাওয়ার আগে জেনে নিন ফুলকপির পুষ্টিগুণ।

*ফুলকপিতে এমন কিছু উপাদান আছে যা ক্যান্সার প্রতিরোধ করতে সাহায্য করে। ফুলকপিতে থাকা সালফোরাফেন উপাদান ক্যানসারের স্টেম সেল ধ্বংস করতে সাহায্য করে।

*হৃৎপিণ্ড ভাল রাখতে ফুলকপি সহায়ক। সালফোরাফেন উপাদান রক্ত চাপ কমায় এবং কিডনি ভাল রাখে। শীতের সুস্বাদু সবজি ফুলকপির আরও একটি অন্যতম গুণ হল রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণে রাখা। যারা ডায়াবেটিস ও উচ্চরক্তচাপজনিত সমস্যায় ভুগছেন তারা ফুলকপি খাবারের তালিকায় রাখতে দ্বিধা করবেন না।

*হৃৎপিণ্ড ভাল রাখতে ফুলকপি সহায়ক। সালফোরাফেন উপাদান রক্ত চাপ কমায় এবং কিডনি ভাল রাখে। শীতের সুস্বাদু সবজি ফুলকপির আরও একটি অন্যতম গুণ হল রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণে রাখা। যারা ডায়াবেটিস ও উচ্চরক্তচাপজনিত সমস্যায় ভুগছেন তারা ফুলকপি খাবারের তালিকায় রাখতে দ্বিধা করবেন না।

*ফুলকপি ভাজা খাওয়া যতটা এড়িয়ে চলবেন ততটাই ভাল। ফুলকপি দিয়ে পাতলা মাছের ঝোল শীতকালে রক্ত চলাচল স্বাভাবিক রাখে।

*ফুলকপি খাওয়ার একটি অন্যতম উপকারিতা হল ফুসফুস রক্ষা করা। ফুসফুস রোগ বৃদ্ধির জন্য দায়ী ভয়াবহ জীবাণুগুলো ফুলকপি খাওয়ার মাধ্যমে সহজেই ধ্বংস করা যায়। তাই ফুসফুস ভাল রাখতে শীতের মরশুমে খাবারের পাতে রাখুন ফুলকপি।

*ফুলকপিতে থাকা ভিটামিন-বি মস্তিষ্কের ডেভেলপমেন্টে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখে। ফুলকপিতে প্রচুর অ্যান্টি অক্সিডেন্ট ও সালফার-জাতীয় উপাদান থাকায় এটি খাবার হজম প্রক্রিয়ায় সাহায্য করে।

*ফুলকপিতে থাকা ফাইবার খাবার হজম করতে কার্যকর ভূমিকা রাখে।

খবরটি শেয়ার করুন..

Leave a Reply