শিরোনাম :
বাজার থেকে পুরুষরা কেনেন মেয়েদের কুমারীত্ব

বাজার থেকে পুরুষরা কেনেন মেয়েদের কুমারীত্ব

বাজার থেকে পুরুষরা কেনেন মেয়েদের কুমারীত্ব
বাজার থেকে পুরুষরা কেনেন মেয়েদের কুমারীত্ব

সুমাইয়া তাবাস্সুম: বুলগেরিয়ায় রয়েছে কনের বাজার। এটা সেই দেশে একেবারেই বৈধ। অর্থোডক্স খ্রিস্টান লেন্টের প্রথম শনিবার কেউ যদি সেই দেশের স্টারা জাগোরা শহরে যান, তাহলে তিনি অভিনব এই বউ বাজারের দেখা পাবেন। গোটা শহরটি আনন্দ আর ব্যস্ততায় মুখর হয়ে ওঠে। সুন্দর সাজসজ্জা আর গয়নায় সজ্জিত হয়ে থাকে মেয়েরা।  মূলত সেখানকার দরিদ্র পরিবারগুলি এভাবেই মেয়েদের বিয়ে দিয়ে থাকে। আবার এটা কালাইদঝি সম্প্রদায়ের সংস্কৃতির অঙ্গও। এই সম্প্রদায়ের মানুষগুলি সাধারণত তামার কাজ করে থাকে। নিজেদের বিশ্বাস এবং আচারের কারণেই এই সম্প্রদায়ের মানুষগুলি সংবাদ শিরোনামে পৌঁছে গেছে। কনের বাজারে নানা ধরনের মানুষ জড়ো হয়ে নাচে-গানে মাতে। গল্প-আড্ডার ফাঁকে পানাহারও চলে। এই এলাকাটা আবার জিপসি ব্রাইড মার্কেট নামেও পরিচিত।

কনের সঙ্গে বাজারে আসেন তাঁদের মায়েরাও। সুন্দর সাজসজ্জা করে তাঁরাও থাকেন মেয়েদের পাশে। কনেদের মায়েদের মধ্যে একটা গরিমাও কাজ করে। কারণ মায়েরা ভাবেন যে, তাঁরা এমন একটা পর্যায়ে পৌঁছে গিয়েছেন, যেখানে তাঁরা নিজেদের সমাজের ঐতিহ্য-সংস্কৃতি পালন করতে সক্ষম হয়েছেন।

এই সম্প্রদায়ের মানুষগুলি এক সময় বুলগেরিয়াতে এসেছিল। শুধু সেখানেই নয়, পূর্ব ইউরোপের অন্যান্য অংশেও ছড়িয়ে পড়েছিল তারা। এটা ১২-১৪ শতকের ঘটনা। এই সম্প্রদায়ের সমাজের রীতিনীতি অনুসারে, গ্রামে তারা একে অপরের থেকে নির্দিষ্ট দূরত্ব বজায় রেখে বসবাস করে। গ্রামের পুরুষ সদস্যদের সঙ্গে মেয়ে এবং মহিলাদের দেখা করার কোনও অনুমতি থাকে না।

বুলগেরিয়ায় রয়েছে এই কনের বাজার। এটা সেই দেশে একেবারেই বৈধ। অর্থোডক্স খ্রিস্টান লেন্টের প্রথম শনিবার কেউ যদি সেই দেশের স্টারা জাগোরা শহরে যান, তাহলে তিনি অভিনব এই বউ বাজারের দেখা পাবেন। গোটা শহরটি আনন্দ আর ব্যস্ততায় মুখর হয়ে ওঠে। সুন্দর সাজসজ্জা আর গয়নায় সজ্জিত হয়ে বাজারে আসেন সম্ভাব্য কনেরা। হাই হিল জুতো এবং মিনি স্কার্ট পরে মোহময়ী আবেদনে পুরুষদের আকৃষ্ট করেন তাঁরা।

সম্প্রদায়ের বাইরে অন্য কোনও পুরুষকে বিয়ে করার অধিকার নেই মেয়েদের। আজ আধুনিক যুগেও এমন বাজারের কথা শুনে স্বাভাবিক ভাবেই চমকে উঠছেন গোটা বিশ্ববাসী। মার্কিন সংবাদমাধ্যমের একটি পত্রিকার প্রতিবেদনে তো এই কনের বাজারের বিষয়ে বলা হয়েছে যে, “ওই বাজার থেকে পুরুষরা আসলে বউ কেনেন না, বরং কেনেন মেয়েদের কুমারীত্ব।”

খবরটি শেয়ার করুন..

Leave a Reply