শিরোনাম :
প্রেমিকার বাড়ির সামনে বিষপানে প্রেমিকের মৃত্যু; বেরিয়ে আসছে চাঞ্চল্যকর তথ্য ‘শাড়ি ক্যানসার’ কেন হয়? তার উপসর্গই বা কী? জানালেন চিকিৎসক ডায়াবেটিকেরাও ভাত খেতে পারেন, তবে মানতে হবে কিছু নিয়ম মল্লিকার সঙ্গে চুমু বিতর্ক, মুখ দেখাদেখি বন্ধ কুড়ি বছর, সাক্ষাৎ পেয়ে কী করলেন ইমরান? ক্যাটরিনার জন্যই সলমনের সঙ্গে সম্পর্কে দূরত্ব, ইদে স্বামীকে নিয়ে ভাইজানের বাড়িতে আলিয়া! রাজশাহী মহানগরীতে পুলিশের অভিযানে গ্রেফতার ২৬ ১৬ মাসের মেয়েকে বাড়িতে একা রেখে ছুটি কাটাতে যান মা, না খেয়ে, জল না পেয়ে মৃত্যু! সাজা যাবজ্জীবন রাজশাহীতে ট্রাকে টোল আদায়ের নামে চাঁদাবাজি, আটক ২ পুঠিয়ায় পুলিশের উপর হামলার অভিযোগে গ্রেফতার ৩ ঈদের সাথে যুক্ত হওয়া নববর্ষের উচ্ছ্বাসে বিনোদন স্পট পরিপূর্ণ
রাজশাহীর তানোরে পুকুরে বিষ দিয়ে ১৬ লাখ টাকার মাছ নিধন

রাজশাহীর তানোরে পুকুরে বিষ দিয়ে ১৬ লাখ টাকার মাছ নিধন

রাজশাহীর তানোরে পুকুরে বিষ দিয়ে ১৬ লাখ টাকার মাছ নিধন
রাজশাহীর তানোরে পুকুরে বিষ দিয়ে ১৬ লাখ টাকার মাছ নিধন

মিজানুর রহমান (টনি): রাজশাহীর তানোরে শত্রুতা করে একটি পুকুরে বিষ প্রয়োগ করায় বিপুল পরিমান মাছ মারা গেছে। বৃহস্পতিবার ভোরে উপজেলার চান্দুড়িয়া ইউনিয়নের হারদহ এলাকার সিলিমপুরে এ ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় মাছ চাষি গিয়াস উদ্দিন তানোর থানায় লিখিত অভিযোগ করেছেন।

জানা যায়, তানোর উপজেলার হারদহ সিলিমপুর গ্রামের ১ একর একটি পুকুর প্রায় ৫ বছর ধরে লিজ নিয়ে মাছ চাষ করেন পবা উপজেলার নওহাটা পৌরসভার তেঘর গ্রামের আজিম উদ্দিনের ছেলে মৎস্য চাষি গিয়াস উদ্দিন। পুকুরটিতে রুই,কাতলা, তেলাপিয়া, সিলভার কার্প, মৃগেলসহ বিভিন্ন প্রজাতির প্রায় ১৬ লাখ টাকার ছিলো। মাছগুলো আর কিছুদিন পরেই বিক্রি করার কথা ছিল। তবে এর আগেই বৃহস্পতিবার ভোরে পুকুরে বিষ প্রয়োগ করেছে দুর্বৃত্তরা। ফলে পুকুরের সব মাছ মরে ভেসে ওঠে।

মাছচাষি গিয়াস উদ্দিন বলেন, আমি পাঁচ বছর থেকে পুকুরটি লিজ নিয়ে মাছ চাষ করছি। স্থানীয়দেও সাথে আমার সম্পর্কও ভালো কিন্তু শত্রুতা করে আমাকে আর্থিকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত করতে আজ ভোরে কে বা কারা পুকুরে বিষ প্রয়োগ করে। ফলে পুকুরের সমস্ত মাছ মরে ভেসে উঠে। আর ভেসে উঠা অধিকাংশ মাছ আমি জানার আগেই এলাকার মানুষ নিয়ে যায়। এতে করে আমার প্রায় ১৬ লক্ষ টাকার মাছ মারা যায় ও লুট হয়ে যায়। যারা রাতের আঁধারে বিষ দিয়ে মাছ মেরে ফেলেছে আমি তাদের উপযুক্ত বিচার দাবির আশায় থানায় লিখিত অভিযোগ করেছি।

বাঘা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আব্দুর রহিম জানান, এ সংক্রান্ত একটি অভিযোগ পেয়েছি। তদন্ত সাপেক্ষে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে।

খবরটি শেয়ার করুন..

Leave a Reply