শিরোনাম :
রাজশাহীতে বালু মজুদ করতে ১০ একর জমির কাঁচা ধান সাবাড় বিশ্বের দীর্ঘতম গাড়িতে রয়েছে সুইমিং পুল, হেলিপ্যাডও ছুটির দিনে হেঁশেলে খুব বেশি সময় কাটাতে চান না? রবিবারে পেটপুজো হোক তেহারি দিয়েই দাম দিয়ে ছেঁড়া, রংচটা জিন্‌স কিনবেন কেন? উপায় জানা থাকলে নিজেই বানিয়ে ফেলতে পারেন উন্মুক্ত বক্ষখাঁজ, খোলামেলা পিঠ, ভূমির মতো ব্লাউজ় পরেই ভিড়ের মাঝে নজরে আসতে পারেন আপনিও স্পর্শকাতর ত্বকের জন্য বাড়িতেই স্ক্রাব তৈরি করে ফেলতে পারেন, কিন্তু কতটা চালের গুঁড়ো দেবেন? গরমে শরীর তো ঠান্ডা করবেই সঙ্গে ত্বকেরও যত্ন নেবে বেলের পানা, কী ভাবে বানাবেন? গাজ়া এবং ইরানে হামলা চালাতে ইজ়রায়েলকে ফের ৮ হাজার কোটি টাকার অস্ত্রসাহায্য আমেরিকার! ইজ়রায়েলকে জবাব দিতে সর্বোচ্চ নেতার ফতোয়ার কথাও ভুলতে চায় ইরান, এ বার কি পরমাণু যুদ্ধ? দিনাজপুরে ড্রাম ট্রাকসহ ১০০ কেজি গাঁজা জব্দ, গ্রেপ্তার ৩
পাচারকারীদের হাত থেকে উদ্ধার বনরুইটি এল রাজশাহীতে

পাচারকারীদের হাত থেকে উদ্ধার বনরুইটি এল রাজশাহীতে

নিজস্ব প্রতিবেক: গত ২৩ মে কুড়িগ্রামের নাগেশ্বরে পাচারকারীদের হাত থেকে উদ্ধার হওয়া বনরুইটি আনা হয়েছে রাজশাহীতে। গতকাল শনিবার এটি রাজশাহী বন বিভাগের কাছে হস্তান্তর করা হলে রাজশাহীতে বন বিভাগের বন্য প্রাণী উদ্ধার ও সংরক্ষণ কেন্দ্রে আজ রোববার এ বনরুই আনা হয়। যা বাংলাদেশের বিলুপ্ত প্রাণীদের একটি।

রাজশাহী বিভাগীয় বন কর্মকর্তা জিল্লুর রহমান জানান, বাংলাদেশের সিলেট ও শ্রীমঙ্গলে কখনো কখনো এদের দেখা পাওয়া যায়। আসলে এরা বাংলাদেশে বিলুপ্ত প্রায়। এরা শরীরে আঁশযুক্ত স্তন্যপায়ী প্রাণী। বনরুই থেকে ওষুধ তৈরি হয় এবং এর চামড়া দিয়ে দামি জিনিস তৈরি হয় বলে এদের পাচার করার একটা প্রবণতা রয়েছে।

বন বিভাগ সূত্র জানায়, ২৩ মে পাচারকারীদের হাত থেকে পুলিশ এটি উদ্ধার করে রংপুর বন বিভাগের কাছে হস্তান্তর করে। সেখান থেকে গতকাল শনিবার দিবাগত রাত আড়াইটার দিকে রাজশাহীতে আনা হয়।

জিল্লুর রহমান বলেন, এরা রাতের বেলায় বাইরে বের হয়। পিঁপড়া ও পিঁপড়াজাতীয় প্রাণী এদের প্রধান খাদ্য। রাজশাহীতে আনার পর একে সেই জাতীয় খাবার সরবরাহ করা হচ্ছে। তা ছাড়া বিকল্প খাদ্য হিসেবে এরা সেদ্ধ ডিম ও গুঁড়া দুধ খায়। এই খাবারও প্রাণীটিকে দেওয়া হয়েছে। সে তা খেয়েছে। তিনি বলেন, আরও আট-দশ দিন তারা প্রাণীটিকে পর্যবেক্ষণ করবেন। তারপর সম্পূর্ণ ছেড়ে দেওয়ার মতো সুস্থ হলে এটাকে শ্রীমঙ্গলের প্রাকৃতিক পরিবেশে ছেড়ে দেওয়া হবে।

আজ রোববার দুপুরে গিয়ে দেখা যায়, সংরক্ষণ কেন্দ্রে বনরুইটি গুটিসুটি মেরে শুয়ে রয়েছে। বন বিভাগের একজন কর্মী এটিকে জাগিয়ে তোলেন, তখনো এটি চোখ বন্ধ করে ছিল।

 মতিহার বার্তা ডট কম – ২৭  মে ২০১৯

খবরটি শেয়ার করুন..

Leave a Reply