শিরোনাম :
আরএমপি পুলিশের মাসিক অপরাধ পর্যালোচনা সভা অনুষ্ঠিত চারঘাটে গাঁজা- সহ ২জন মাদক কারবারীকে গ্রেফতার রাজশাহী মহানগরীতে পুলিশের অভিযানে গ্রেফতার ১৯ রাজশাহী বোর্ডে এইচএসসি পরীক্ষায় বসছে এক লাখ ৩৮ হাজার ১৫৭ শিক্ষার্থী রাজশাহীতে জমেছে পশুহাট, লাখের নিচে মিলছে না কোরবানিযোগ্য গরু দ্রুত সময়ে কোরবানির বর্জ্য অপসারণ বিষয়ে রাসিকের সমন্বয় সভা অনুষ্ঠিত রোদে পোড়া কালচে ত্বক নিয়ে চিন্তায় পড়েছেন? ঘরোয়া টোটকা দিচ্ছেন প্রিয়ঙ্কা চোপড়া তেল বেশি গরম করলে কি খাদ্যগুণ চলে যায়? কী বলছেন পুষ্টিবিদ‌রা? বিশ্বকাপের প্রথম ম্যাচের আগে ধাক্কা পাকিস্তানে, চোটে বাদ অবসর ভেঙে ফেরা ক্রিকেটার সিঙ্গাপুর, হংকংয়ের পর এ বার ভারতের মশলা নিষিদ্ধ করল পড়শি ‘বন্ধু’ দেশ
ধর্ষকের এনকাউন্টার করে ‘হিরো পুলিশ অফিসার

ধর্ষকের এনকাউন্টার করে ‘হিরো পুলিশ অফিসার

আন্তর্জাতিক ডেস্ক : সম্প্রতি সোশ্যাল মিডিয়ায় ঘোরাফেরা করছে এক পুলিশ অফিসারের ছবি। ৬ বছরের শিশুর ধর্ষককে সরাসরি গুলি করেছেন তিনি। ধর্ষককে উপযুক্ত সাজা দেওয়ায় সবাই স্যালুট জানাচ্ছেন তাঁকে।

উত্তরপ্রদেশের রামপুরের এই পুলিশ অফিসারের নাম অজয় পাল শর্মা। এক শিশুকে ধর্ষণের ঘটনায় অভিযুক্ত ব্যক্তিকে লক্ষ্য করে গুলি করেছেন তিনি।

‘ইন্ডিয়া টিভি’র রিপোর্ট অনুযায়ী, গত ৭ মে উত্তরপ্রদেশে এক ৬ বছরের নাবালিকাকে ধর্ষণের অভিযোগ সামনে আসে। অভিযুক্তের নাম নাজিল। ঘটনার পরই পালিয়ে গিয়েছিল এই নাজিল। সম্প্রতি তাকে ধরতে গিয়ে তার পায়ে পরপর তিনটি গুলি করেন এই পুলিশ অফিসার। এই অজয় পাল শর্মাকে এনকাউন্টার স্পেশালিষ্টের তকমা দেওয়া হয়।

পরে স্থানীয় হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে নাজিলকে। বর্তমানে তাঁর চিকিৎসা চলছে। এনকাউন্টারের কথা জানিয়েছে রামপুর পুলিশ। অফিসারের এই এনকাউন্টারের প্রশংসা করছেন সবাই। অনেকেই তাঁকে ফোন করে বা মেসেজ পাঠিয়ে অভিনন্দন জানাচ্ছেন।

ট্যুইটারে অজয় পাল শর্মা লিখেছেন, ‘ধর্ষক ও খুনির বিরুদ্ধে পুলিশের অ্যাকশনে আপনাদের সমর্থন পেয়ে আমি ধন্য। অন্তত হাজার খানেক ফোন পেয়েছি দেশের বিভিন্ন জায়গা থেকে। কেউ বলছেন ভাই, কেউ বলছেন ছেলে।’ উত্তরপ্রদেশ পুলিশের একজন সদস্য হওয়ায় গর্বিত তিনি।

উত্তরপ্রদেশের ‘সিংহম’ বলে পরিচিত এই অজয় পাল শর্মা। অপরাধীদের এনকাউন্টার করে বারবার শিরোনামে এসেছেন তিনি। এই ধরনের এনকাউন্টার ও দোষীদের গ্রেফতার করার জন্য তাঁর বিশেষ জনপ্রিয়তা আছে। দোষীদের উপযুক্ত শাস্তি দেওয়ার জন্য পুরস্কার পেয়েছেন, হয়েছে প্রোমোশনও।

২০১১ ব্যাচের এই অফিসার আগে ছিলেন ডেন্টিস্ট। লুধিয়ানার বাসিন্দা অজয় পাল শর্মা গত আট বছর ধরে পুলিশে রয়েছেন। কাজ করেছেন গাজিয়াবাদ, গৌতম বুদ্ধ নগর, প্রয়াগরাজের মত শহরে। বর্তমানে রামপুরের এসএসপি তিনি। এনকাউন্টার প্রসঙ্গে তিনি বলেন, ‘এনকাউন্টার ইচ্ছাকৃতভাবে করা হয় না। আমরা দোষীদের গ্রেফতার করতে চাই। তাদের কাছ থেকে যত বেশি সম্ভব তথ্য জোগাড় করতে চাই।

গত বছর মে মাসে সাদা পোশাকে রিক্সায় ঘুরে তিনি তদন্ত করেছিলেন যে কোথায় পুলিশ ঘুষ নিচ্ছে।

মতিহার বার্তা ডট কম  ২৪ জুন  ২০১৯

খবরটি শেয়ার করুন..

Leave a Reply