গোঁজামিলের রাজনীতি বন্ধ করতে মির্জা ফখরুলকে আমান উল্লাহ’র আহ্বান

গোঁজামিলের রাজনীতি বন্ধ করতে মির্জা ফখরুলকে আমান উল্লাহ’র আহ্বান

মতিহার বার্তা ডেস্ক : বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলামকে গোঁজামিলের রাজনীতি বন্ধ করে সঠিকভাবে দল চালানোর পরামর্শ দিয়ে সমালোচনার শিকার হয়েছেন বেগম খালেদা জিয়ার উপদেষ্টা আমান উল্লাহ আমান।

পাশাপাশি, নাগরিক আন্দোলন বাদ দিয়ে বিএনপিকে আন্দোলনমুখী করতে ব্যর্থ হলে মির্জা ফখরুলকে পদ ছেড়ে দিয়ে নতুনদের হাতে নেতৃত্ব তুলে দেয়ারও আভাস দেয়ায় দলের অভ্যন্তরে সমালোচনার শিকার হচ্ছেন আমান উল্লাহ আমান। আমান বয়স ও রাজনীতিতে মির্জা ফখরুলদের অনুজ হয়েও দায়িত্বের চেয়ে বেশি কথা বলে খালেদা জিয়ার অনুগামীদের এক ধরণের অপমান করার চেষ্টা করছেন বলেও দলের অভ্যন্তরে গুঞ্জন চাউর হয়েছে।

রোববার (৭ এপ্রিল) রাজধানীর ইঞ্জিনিয়ার্স ইন্সটিটিউশনে বিএনপি আয়োজিত গণঅনশন কর্মসূচিতে গোঁজামিলের রাজনীতির জন্য মির্জা ফখরুলকে দায়ী করে আমান উল্লাহ আমান এমন বিস্ফোরক মন্তব্য করলে সমালোচনা ঝড় ওঠে বিএনপির রাজনীতিতে।

আমান উল্লাহ তার বক্তব্য বলেন, ম্যাডামের মুক্তি আন্দোলনেও হেয়ালি করছেন দলের সিনিয়র নেতৃবৃন্দ। ৩৫ জন ভাইস চেয়ারম্যান, ১শ জন উপদেষ্টা, ৩শ জন সম্পাদক মণ্ডলীর সদস্যরা এখন কোথায়? প্রয়োজনের সময় উনারা কোথায় গিয়ে আড্ডা দিচ্ছেন? রাজধানীর ৪৩ থানার ৪৩ হাজার লোক থাকার কথা থাকলেও তারা অনুপস্থিত কেন? শুধু সিনিয়র নেতাদের সমন্বয়হীনতা এবং অনীহার কারণে আজকের কর্মসূচিও পছন্দ মতো হলো না। গোঁজামিল দিয়ে দল চালাচ্ছেন ফখরুল সাহেব।

তিনি ক্ষোভ প্রকাশ করে আরো বলেন, গোঁজামিলের কারণে বেগম জিয়া ও বিএনপির রাজনীতি নির্বাসনে যাওয়ার উপক্রম হয়েছে। আমরা এমন গোঁজামিলের রাজনীতির বদলে মির্জা ফখরুলকে রাজপথের রাজনীতিতে দেখতে চাই। না পারলে বিকল্প চিন্তা করতে বাধ্য হবে দল। তখন গতি বাড়িয়ে আর লাভ হবে না। সময় থাকতে সচেতন হতে হবে।

এদিকে আমান উল্লাহর বক্তব্যের বিষয়ে মির্জা ফখরুল বলেন, বর্তমান পরিস্থিতিতে বিএনপিকে চিন্তা-ভাবনা করে পদক্ষেপ নিতে হচ্ছে। আবেগের বশবর্তী হয়ে আমান এমন ক্ষুরধার বক্তব্য দিয়েছেন। তার আচরণ ছাত্র নেতাদের মতো। তিনি এখন পর্যন্ত প্রাপ্ত বয়স্ক রাজনীতিক হয়ে উঠতে পারেননি। আসলে রাজনীতিতে উন্নতি করতে হলে পরিস্থিতি অবজার্ভ করার সক্ষমতা থাকতে হয়। আফসোস, বিএনপির অনেক নেতা সেই পর্যায়ে যেতে পারেননি।

তিনি আরো বলেন, বর্তমান পরিস্থিতিতে মাথা গরম করা যাবে না। আগে বেগম জিয়াকে মুক্ত করতে হবে। আইনি প্রক্রিয়ার মাধ্যমেই আমরা ম্যাডামকে মুক্ত করবো। তাড়াহুড়ো করার ফল ভালো হয় না। সেটি অতীতে আমরা দেখেছি। সুতরাং উত্তেজিত হওয়ার বদলে কৌশল নিয়ে ভাবতে হবে, তবেই রাজনীতিতে শাইন করা যায়। সূত্র:বাংলা নিউজ ব্যাংক .কম

মতিহার বার্তা ডট কম ০৯ এপ্রিল ২০১৯

খবরটি শেয়ার করুন..

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *