শিরোনাম :
মূক ও বধির তরুণীকে গণধর্ষণ! ছাগল চরাতে গিয়ে লালসার শিকার দলিত কন্যা রশ্মিকার ভুলের শাস্তি? তাঁর নাম উচ্চারণ করতেও এ বার ভুলে গেলেন পরিচালক ঋষভ সৎকারের আয়োজনের মাঝে উঠে বসল ‘মড়া’! হাসপাতালে ছুটলেন আত্মীয়-পরিজন রাজশাহীতে অবহেলিত মানুষের গ্রাম চর-মাঝারদিয়া! বিশ্বের সবচেয়ে শক্তিশালী পারমাণবিক শক্তি হওয়া উত্তর কোরিয়ার লক্ষ্য: কিম কাতারে বিশ্বকাপ ভক্তদের গ্রামের কাছে ভয়াবহ আগুন রাবিতে সমন্বিত হল সমাপনী ২৮ ডিসেম্বর সমকামিতা নিষিদ্ধ করলো রাশিয়ার পার্লামেন্ট রাজশাহীতে অবহেলিত মানুষের গ্রাম চর-মাঝারদিয়া! কানেকটিকাটে বাংলাদেশি ফ্রেন্ডস সোসাইটির ‘থ্যাঙ্কস গিভিং’ উদযাপন
উইং কম্যান্ডার অভিনন্দনকে নিয়ে টুইট করে সোশ্যাল মিডিয়ায় বিদ্রুপের মুখে সানিয়া

উইং কম্যান্ডার অভিনন্দনকে নিয়ে টুইট করে সোশ্যাল মিডিয়ায় বিদ্রুপের মুখে সানিয়া

আন্তর্জাতিক ডেস্ক : পাক সেনার কব্জায় ৬০ ঘণ্টা আটক থাকার পর দেশে ফিরেছেন ভারতীয় বায়ুসেনার উইং কম্যান্ডার অভিনন্দন বর্তমান। তাঁকে স্বাগত জানিয়েছে গোটা দেশ। আট থেকে আশি। আমজনতা থেকে সেলিব্রিটি। এই তালিকাতেই পড়েন ভারতের টেনিস কুইন সানিয়া মির্জা। তিনিও টুইট করে স্বাগত জানিয়েছেন অভিনন্দনকে। কিন্তু তাঁর টুইটের জবাবে তাঁকেই নিশানা বানালেন নেটিজেনরা। সোশ্যাল মিডিয়ায় চলল বিদ্রুপ।

অভিনন্দন দেশের মাটিতে পা রাখার পর সানিয়া টুইট করে বলেন, “স্বাগতম উইং কম্যান্ডার অভিনন্দন। সত্যি করেই তুমি আমাদের হিরো। তোমার সাহস ও আত্মসম্মানের জন্য দেশ তোমাকে স্যালুট জানাচ্ছে। জয় হিন্দ।” সানিয়ার এই টুইটের পরেই সোশ্যাল মিডিয়ায় তাঁকে নিয়ে শুরু হয় ব্যঙ্গ। শুধু ভারত নয়, পাকিস্তানের নেটিজেনদের তরফেও শুরু হয় বিদ্রুপ।

পাকিস্তানের এক মহিলা বলেন, ‘ভাবিজি, আপনার জন্যই আমরা এটা করেছি। যাতে বাপের বাড়ি যাতায়াত হয় মাঝে মাঝে।” একজন আবার বলেন, ‘ভাবি রকড, শোয়েব শকড।’ কেউ বলেন, ‘বুঝতে পারছি, বাধ্য হয়েই আপনাকে এই টুইট করতে হয়েছে। আরেকজন খোঁচা দিয়ে বলেন, ‘দেখে মনে হচ্ছে, আপনি জীবনে কোনও দিন সত্যিকারের হিরো দেখেননি। আপনার জন্য দুঃখ লাগছে।’

তবে এই প্রথম নয়, এর আগেও বিভিন্ন সময়ে ট্রোলের শিকার হতে হয়েছে সানিয়া মির্জাকে। পাক ক্রিকেটার তথা প্রাক্তন অধিনায়ক শোয়েব মালিককে বিয়ে করার পর থেকেই এই ট্রোলিংয়ের শুরু। কখনও বিশ্বকাপে ভারত-পাকিস্তান ম্যাচ নিয়ে টুইট করে খোঁচা খেতে হয়েছে সানিয়াকে। কখনও আবার পাকিস্তানের স্বাধীনতা দিবসে ( ১৪ অগস্ট ) শুভেচ্ছা জানিয়ে ভারতীয়দের ব্যঙ্গ-বিদ্রুপের শিকার হয়েছেন ভারতের এক নম্বর মহিলা টেনিস তারকা। বাধ্য হয়েই ভারত-পাকিস্তান ছেড়ে দুবাইয়ে থাকা শুরু করেছেন শোয়েব-সানিয়া।

যদিও এইসব ব্যঙ্গের জবাবে কোনও দিন তীব্র মন্তব্য করেননি সানিয়া। তিনি বরাবরই ঠাণ্ডা মাথায় জবাব দিয়েছেন। কোনও কোনও সময় আবার চুপ থেকেছেন। বিশ্বকাপের আগে তো নিজের সোশ্যাল মিডিয়া অ্যাকাউন্ট বন্ধই করে দিয়েছিলেন সানিয়া। কিন্তু তারপরেও ট্রোলিং থামেনি তাঁকে ঘিরে। এ বার ফের তাঁকে ঘিরে বিদ্রুপের ঝড় দেখা গেল সোশ্যাল মিডিয়ায়।

মতিহার বার্তা ডট কম ০৪মার্চ ২০১৯

খবরটি শেয়ার করুন..

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *