শিরোনাম :
গোদাগাড়ীতে ১০লাখ টাকার হেরোইন-সহ ৩জন মাদক কারবারী গ্রেফতার নগরীর তালাইমারীতে গাঁজা কারকারী মল্লিক গ্রেফতার রাজশাহীতে প্রস্তাবিত বঙ্গবন্ধু রিভার সিটি নিয়ে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত রুয়েটকে স্মার্ট বিশ্ববিদ্যালয় হিসেবে রুপান্তর করতে হলে সকল ক্ষেত্রে সুশাসন প্রতিষ্ঠা করা জরুরী চিপস্ খাওয়ানোর প্রলোভন দেখিয়ে ৬ বছরের নাবালিকাকে ধর্ষণ চেষ্টা: আসামি নাইম গ্রেফতার এইচএসসি পরীক্ষা উপলক্ষ্যে আরএমপি’র নোটিশ জারি তানোরে ক্লুলেস হত্যা মামলার পলাতক আসামি ইকবাল গ্রেফতার কৃষিতে বির্পযয়ের আশঙ্কা তানোরে চোরাপথে আশা মানহীন সারে বাজার সয়লাব বাঘায় বাবুল হত্যা মামলায় চেয়ারম্যানসহ ৭ জনকে রিমান্ড শেষে কারাগারে প্রেরণ সিংড়ায় ক্যান্সারে আক্রান্ত ২২ ব্যক্তির মাঝে চেক বিতরণ
দাড়ানো দুটি বাইকের ওপর তুলে দিল ট্রাকের চাকা, অল্পের জন্য রক্ষা পেলো পথচারী

দাড়ানো দুটি বাইকের ওপর তুলে দিল ট্রাকের চাকা, অল্পের জন্য রক্ষা পেলো পথচারী

দাড়ানো দুটি বাইকের ওপর তুলে দিল ট্রাকের চাকা, অল্পের জন্য রক্ষা পেলো পথচারী
দাড়ানো দুটি বাইকের ওপর তুলে দিল ট্রাকের চাকা, অল্পের জন্য রক্ষা পেলো পথচারী

এসএম বিশাল: রাজশাহী নগরীতে দাড়ানো দুটি মোটরসাইকেলের ওপর চাপিয়ে দেয়া হলো ট্রাকের চাকা। পিসে দেয়া হলো মুল্যবান পালসার ও ডিসকাভার মডেলের নতুন দুটি মোটরসাইকেল। অল্পের জন্য প্রাণে রক্ষা পেলেন পথচারীরা।

একমাত্র ওয়ার্ড কাউন্সিলর তৌহিদুল হক সুমনের সহায়তায় উত্তেজিত জনতার হাত থেকে রক্ষা পেয়েছে সহকারী চালক (হেলফার) শরিফুল ইসলাম (৪০) ও ট্রাকটি।

ঘটনাটি রবিবার (২০ জানুয়ারী) বেলা সাড়ে ১১টায় ১৯ নং ওয়ার্ড কার্যালয়ের সম্মুখে। এসময় কার্যালয়ে উপস্থিত ছিলেন কাউন্সিলর সুমন।

কাউন্সিলর সুমন জানান, আমার চেম্বারের সামনে সেবা প্রত্যাশী মাসুদ ও মিজনুর রহমান তাদের বাইক স্ট্যান্ড করে আমার সাথে কথা বলছিলেন। এসময় হঠাৎ ঢাকা মেট্র ট ১৬-৪২৯৫ নং একটি ট্রাক দাড়ানো বাইক দুটিকে চাপা দিয়ে পিসে দেয়।

সাথে সাথে স্থানীয়রা চালককে আটক করে এবং ট্রাক ও চালকের ওপর হামলা চালানোর চেষ্টা করে। পরে আমি সুষ্ঠু বিচার ও ক্ষতিপূরণের আশ্বাস দিয়ে তাদের সান্ত করি।

এ ঘটনায় ট্রাকের মালিক তাহেরপুর পৌরসভার সাবেক মেয়র শামসুর রহমান মিন্টু, ট্রাক মালিক সমিতির সভাপতি আবুল কালাম আজাদ ও ট্রাক শ্রমিক ইউনিয়নের সভাপতি ফরিদ উদ্দিনের উপস্থিতিতে বিচার সালিশে বসি।

কাউন্সিলর সুমন বলেন, মোটরসাইকেল মালিক মাসুদকে ১৫ হাজার ও মিজানুর রহমানকে ৩২ হাজার টাকা ক্ষতিপূরণ আদায় করে দেয়া হয়।

এ ব্যাপারে চন্দ্রিমা থানার ওসি তদন্ত মঈনুল ইসলাম বলেন, একজন ওয়ার্ড প্রতিনিধি বিষয়টি মিমাংসা করে দিয়েছেন। এছাড়া কারো কোনো অভিযোগ না থাকায় আইনগত পদক্ষেপ নেয়া সম্ভব হয়নি।

ট্রাক ও সহকারী চালকের বিষয়ে ওসি মঈনুল বলেন, কাউন্সিলর তৌহিদুল হক সুমনের সহায়তায় ট্রাক ও চালক শরিফুল ইসলাম উত্তেজিত জনতার হাত থেকে রক্ষা পেয়েছে। তারা কোনো প্রকার হামলার শিকার হয়নি বলেও জানান তিনি।

মতিহার বার্তা / ইএবি

খবরটি শেয়ার করুন..

Leave a Reply