নেত্রীর মুক্তির জন্য অনশনে এবার রিজভী-ফখরুলের দ্বন্দ্ব!

নেত্রীর মুক্তির জন্য অনশনে এবার রিজভী-ফখরুলের দ্বন্দ্ব!

মতিহার বার্তা ডেস্ক : দীর্ঘ এক বছরেরও বেশি সময় ধরে কারাগারে থাকা বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তি ও সুচিকিৎসার দাবিতে গণ-অনশন করেছে বিএনপির নেতাকর্মীরা। তবে দলের শীর্ষ নেতাদের অংশগ্রহণে বিএনপির অনশন রাজধানীর রমনায় ইঞ্জিনিয়ার্স ইন্সটিটিউশন মিলনায়তনে হলেও সিনিয়র যুগ্ম-মহাসচিব রুহুল কবির রিজভীকে সেখানে দেখা যায়নি। তিনি এ কর্মসূচি দলের নয়াপল্টনের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে পালন করেছেন।

রোববার (৭ এপ্রিল) সকাল সাড়ে ১০টা থেকে বিকেল ৩টা পর্যন্ত এ কর্মসূচি পালন করে বিএনপির নেতারা।

ইঞ্জিনিয়ার্স ইন্সটিটিউশন মিলনায়তনে না আসার বিষয়ে রিজভী বলছেন, ১৪ মাসেরও বেশি সময় নয়াপল্টন কার্যালয়ে অবস্থান করছি। কিছু সময়ের জন্য বিক্ষোভ-মিছিলে অংশ নিলেও আবার কার্যালয়ে ফিরে আসি। কারণ মামলাসহ বিভিন্ন কারণে কার্যালয় থেকে বের হই না। বিএনপি কর্মীরা যখন ইঞ্জিনিয়ার্স ইন্সটিটিউশন মিলনায়তনে অনশনে ছিলো, তখন আমিও নয়াপল্টন কার্যালয়ে অনশনে ছিলাম। এটা নিয়ে বিতর্কে যাওয়া কিছু নেই।

এদিকে অনশনে বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, আমাদের এই অনশন বেগম খালেদা জিয়ার সুস্থতা কামনার অনশন। যেসব নেতা খালেদা জিয়াকে ভালোবাসেন তারা এসেছেন। যারা আসেননি তারা নিজেদের মতো করে ভেবেছেন। এ বিষয় আমরা তেমন বিচলিত নই।

ফখরুল আরো বলেন, ভাবতে অবাক লাগে, আজ খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবিতে আমরা অনশন করছি। অথচ অনেক নেতাই নয়াপল্টন কার্যালয়ে বসে বসে ঘুমাচ্ছে। এই হচ্ছে বর্তমান বিএনপির রাজনীতি। এ থেকে প্রমাণ হয় না কি, যে দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়া আজ অনেকে নেতার কাছেই অবহেলিত?

তবে বিষয়টিকে ভিন্নভাবে ব্যাখ্যা করে রুহুল কবির রিজভী বলেন, মির্জা ফখরুল অতি-আবেগী মানুষ। অনেকে ফখরুল সাহেবের কাছে বলেছেন, আমি নাকি তার মহাসচিব পদটি কেড়ে নিতে পারি। আর সে কারণে তিনি আমাকে নিয়ে নিরাপত্তাহীনতায় ভোগেন। যার কারণেই তিনি আমাকে নিয়ে বাজে মন্তব্য করেছেন। যদিও আমি খালেদা জিয়ার অনশন অনুষ্ঠানে যাই নি কিন্তু আমার মন তো সেখানেই ছিলো।

অনশনে বিএনপি নেতা ড. মঈন খান, আমান উল্লাহ আমান, আব্দুস সালাম, হাবিবুর রহমান হাবিব, আবদুল আউয়াল মিন্টু, বেগম সেলিমা রহমান, মেজর (অব.) হাফিজ উদ্দিন আহমেদ, শামসুজ্জামান দুদু, এজেডএম জাহিদ হোসেন, আহমদ আযম খান, সৈয়দ মোয়াজ্জেম হোসেন আলাল, খায়রুল কবির খোকন, মুজিবর রহমান সারোয়ার, এমরান সালেহ প্রিন্স, বিলকিস জাহান শিরিন, আব্দুস সালাম আজাদ, শহীদ উদ্দিন চৌধুরী এ্যানী, শামীমুর রহমান শামীমসহ দলটি অঙ্গ-সহযোগী সংগঠনের নেতাকর্মীরা উপস্থিত ছিলেন। সূত্র:  বাংলা নিউজ ব্যাংক

মতিহার বার্তা ডট কম ০৯ এপ্রিল ২০১৯

খবরটি শেয়ার করুন..

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *