শিরোনাম :
চিরবিদায় নিলেন গজ়ল শিল্পী পঙ্কজ উধাস বাঘায় ফেনসিডিল-সহ গ্রেফতার- ৩ রাজশাহী এডিটরস ফোরামের সভাপতি লিয়াকত সম্পাদক অপু সিঙ্গাপুরের স্কুল থেকে পড়াশোনা শেষ হওয়ার আগেই তাড়িয়ে দেওয়া হয় কাজল-কন্যা নিসাকে! বচ্চনদের সঙ্গে বনিবনা হচ্ছে না ঐশ্বর্যার, এ বার আরাধ্যাকে নিয়ে মুখ খুললেন নব্যা ইউক্রেন যুদ্ধের দ্বিতীয় বর্ষপূর্তিতে হামলার তীব্রতা বাড়াল রাশিয়া, নিশানায় ওডেসা-সহ বিভিন্ন শহর ইজ়রায়েলের আচরণে ক্ষুব্ধ আমেরিকা গাজ়ায় যুদ্ধের প্রতিবাদ, ওয়াশিংটনের ই‌জ়রায়েলি দূতাবাসের সামনে গায়ে আগুন, আমেরিকার সেনার ‘ভারতীয় সেনাদের নিয়ে মিথ্যা বলছেন মুইজ্জু’! এ বার প্রাক্তন মন্ত্রীর তোপের মুখে মলদ্বীপের প্রেসিডেন্ট মাদক ব্যবসা : দেনাদারের বাসায় পাওনাদারের লাশ
বিএনপিকে ঐক্যফ্রন্ট ভেঙ্গে দিতে বললেন ব্যারিস্টার আন্দালিব পার্থ

বিএনপিকে ঐক্যফ্রন্ট ভেঙ্গে দিতে বললেন ব্যারিস্টার আন্দালিব পার্থ

বেগম খালেদা জিয়া,ওয়ান ইলাভেন,rtvonline,

মতিহার বার্তা ডেস্ক : আপদে-বিপদে বিগত দেড় যুগেরও বেশি সময় ধরে বিএনপির সঙ্গে থাকলেও বর্তমানে বিএনপির কোনো মিটিংয়েই দেখা যাচ্ছে না ২০ দলীয় জোটের অন্যতম নেতা বাংলাদেশ জাতীয় পার্টির (বিজেপি) চেয়ারম্যান ব্যারিস্টার আন্দালিব রহমান পার্থকে। মূলত, ঐক্যফ্রন্টের ওপর ক্ষোভ থেকেই বিএনপির কোনো মিটিংয়ে উপস্থিত হচ্ছে না ব্যারিস্টার আন্দালিব। বাংলা নিউজ ব্যাংকের সঙ্গে একান্ত সাক্ষাৎকারে এমনটাই জানান তিনি।

আন্দালিব পার্থ বলেন, ঐক্যফ্রন্টের সঙ্গে জোট করে কোনো লাভই হয়নি। ঐক্যফ্রন্ট নেতাদের আন্দোলন করার কোনো শক্তি নেই। নির্বাচনে তাদের সঙ্গে অযথা জোট করে দুর্বল নেতাদের শক্তিশালী করে দেয়া হলো। যে জোট আন্দোলন করার সক্ষমতা কিংবা সাহস রাখে না তেমন জোটের প্রয়োজনটা কী?

পার্থ আরও বলেন, সরকারের সমালোচনা পরে হবে। কিন্তু বিএনপির বর্তমান অবস্থার জন্য কারা দায়ী? একের পর এক ভুল সিদ্ধান্তে জর্জরিত বিএনপি। বর্তমান বিএনপির এমন অবস্থা হয়েছে যে রাজপথে নামলে ১০ জন লোকও হয় না। রিজভী সাহেব যখন নয়াপল্টন অফিস থেকে বেরিয়ে ৭-৮ জন মানুষ নিয়ে মিছিল করে, তখন লজ্জায় মাথা নত হয়ে যায়। বিএনপির বর্তমান অবস্থা অবর্ণনীয়। এখন বিএনপির উচিত, ঐক্যফ্রন্ট ভেঙে দিয়ে নিজের শেকড়ে দাঁড়ানো। জোট থেকে বের হয়ে নতুন করে দল সাজানো। নতুবা বিএনপি ডুবে যাবে।

বিজেপির চেয়ারম্যান আন্দালিব রহমান পার্থ স্পষ্টবাদী বক্তা হিসেবে ইতিমধ্যে ব্যাপক পরিচিতি পেয়েছেন। বিভিন্ন সময়ে তিনি সরকারের সমালোচনায় মুখর থাকলেও বর্তমানে কোনো আলোচনায় নেই এই তরুণ ও উদীয়মান এ রাজনীতিক।

বেগম খালেদা জিয়া কারান্তরীণ হওয়ার আগে জোটের সব সভাতেই উপস্থিত থেকে সরকারের কঠোর সমালোচনা করতেন পার্থ। কিন্তু সাম্প্রতিক সময়ে অভিমান থেকে ২০ দলীয় জোটের বৈঠকে থাকছেন না তিনি। জোটের বিভিন্ন বৈঠকে পাঠান দলের মহাসচিবকে। একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে গুলশান আসনে নির্বাচন করে বিপুল ভোটে পরাজিত হওয়ার পরে রাজনৈতিক অঙ্গন থেকে নিজেকে অনেকটা গুটিয়ে নেন তিনি। তবে ঘরোয়া রাজনৈতিক বৈঠকগুলোতে উপস্থিত থেকে নিজের অবস্থান জানান দিতে পিছপা হন না ব্যারিস্টার পার্থ। সূত্র: বাংলা নিউজ ব্যাংক

মতিহার বার্তা ডট কম – ১১ এপ্রিল, ২০১৯

খবরটি শেয়ার করুন..

Leave a Reply