শিরোনাম :
রাজশাহীতে বালু মজুদ করতে ১০ একর জমির কাঁচা ধান সাবাড় বিশ্বের দীর্ঘতম গাড়িতে রয়েছে সুইমিং পুল, হেলিপ্যাডও ছুটির দিনে হেঁশেলে খুব বেশি সময় কাটাতে চান না? রবিবারে পেটপুজো হোক তেহারি দিয়েই দাম দিয়ে ছেঁড়া, রংচটা জিন্‌স কিনবেন কেন? উপায় জানা থাকলে নিজেই বানিয়ে ফেলতে পারেন উন্মুক্ত বক্ষখাঁজ, খোলামেলা পিঠ, ভূমির মতো ব্লাউজ় পরেই ভিড়ের মাঝে নজরে আসতে পারেন আপনিও স্পর্শকাতর ত্বকের জন্য বাড়িতেই স্ক্রাব তৈরি করে ফেলতে পারেন, কিন্তু কতটা চালের গুঁড়ো দেবেন? গরমে শরীর তো ঠান্ডা করবেই সঙ্গে ত্বকেরও যত্ন নেবে বেলের পানা, কী ভাবে বানাবেন? গাজ়া এবং ইরানে হামলা চালাতে ইজ়রায়েলকে ফের ৮ হাজার কোটি টাকার অস্ত্রসাহায্য আমেরিকার! ইজ়রায়েলকে জবাব দিতে সর্বোচ্চ নেতার ফতোয়ার কথাও ভুলতে চায় ইরান, এ বার কি পরমাণু যুদ্ধ? দিনাজপুরে ড্রাম ট্রাকসহ ১০০ কেজি গাঁজা জব্দ, গ্রেপ্তার ৩
শত অনুরোধেও গণফোরামে ফিরবেন না সুলতান মনসুর!

শত অনুরোধেও গণফোরামে ফিরবেন না সুলতান মনসুর!

মতিহার বার্তা ডেস্ক : একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে ঐক্যফ্রন্ট থেকে নির্বাচিত হয়ে শপথ নিয়েছেন সুলতান মনসুর। দেশের মানুষের কাছে দায়বদ্ধতার কথা চিন্তা করে শপথ নেয়ার পর বিএনপির সিদ্ধান্তে গণফোরাম থেকে বহিষ্কার করা হয় তাকে।

এদিকে, ২৮ এপ্রিল দলীয় সিদ্ধান্তে বিএনপির ৪ নেতা শপথ গ্রহণ করলে পুনরায় গণফোরামে ফিরে যাবার ডাক পান সুলতান মোহাম্মদ মনসুর। কিন্তু গণফোরামে ফিরতে চাইছেন না সুলতান মনসুর। সুলতান মনসুরের সঙ্গে আলাপকালে বিষয়টির সম্পর্কে বিস্তারিত জানা যায়।

এ প্রসঙ্গে সুলতান মনসুর বলেন, আমার শপথ নেয়া সঠিক ছিলো তা, বিএনপির এমপিদের শপথের মধ্য দিয়ে প্রমাণ হলো। দল আমাকে বহিষ্কার করেছে। বর্তমানে গণফোরামের অনেক নেতাই আমাকে দলে ফিরে আসতে বলছেন। তবে এতে আমার কোনো কিছু আসে যায় না। আমি এ দলের সাথে সম্পৃক্ত না। বর্তমান প্রেক্ষাপটে এ পার্টির অবস্থান জিরো প্লাস, জিরো প্লাস, জিরো-ইকুয়ালটু জিরো। যার কোনো ঠিক ঠিকানা নাই।

তিনি আরো বলেন, আমি শুধুমাত্র সংসদ নির্বাচনে অংশগ্রহণ করার জন্যই গণফোরামে যোগ দিয়েছিলাম। গণফোরামের নয় নির্বাচনী এলাকার মানুষের প্রতিনিধিত্ব করছি। এছাড়া গণফোরাম তো দুর্বল রাজনৈতিক দল, অতএব ভবিষ্যতহীন এ দলে যোগ দেয়ার কোনো মানেই হয় না। তবে ড. কামাল হোসেন একজন গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তি। আমি তাকে সম্মান করি।

এই বিষয়ে গণফোরামের সাধারণ সম্পাদক মোস্তফা মহসীন মন্টু বলেন, সুলতান মনসুরের বহিষ্কারাদেশ আমরা প্রত্যাহার করেছি। খুব শিগগিরই আমরা তাকে দলে ফিরিয়ে আনতে পারব বলে বিশ্বাস করি। সত্যি কথা বলতে গণফোরামের মূল কর্তৃত্ব বর্তমানে আমাদের হাতে নেই। তবে খুব শিগগির আমরা সুলতান মনসুরকে দলে ফিরিয়ে আনবো। যদিও সুলতান মনসুর বলেছেন তিনি গণফোরামের কেউ না, তবে আমরা তাকে ফিরিয়ে আনার চেষ্টা করছি।

গণফোরামের প্রেসিডিয়াম সদস্য জগলুল হায়দার আফ্রিক বলেন, সবকিছু পরিবর্তন হয়ে গেছে। এ অবস্থায় আমাদের দল থেকে নির্বাচিত দুই সদস্যের বিষয়ে দলের সিদ্ধান্ত পুনর্বিবেচনা করা হবে। আমরা তাদের সঙ্গে অন্যায় করেছি। শিগগিরই দলীয় ফোরামে নতুন কোনো সিদ্ধান্ত আসতে পারে।সূত্র: বাংলা নিউজ ব্যাংক

মতিহার বার্তা ডট কম – ০৬ মে, ২০১৯

খবরটি শেয়ার করুন..

Leave a Reply