শিরোনাম :
আরএমপি পুলিশের মাসিক অপরাধ পর্যালোচনা সভা অনুষ্ঠিত চারঘাটে গাঁজা- সহ ২জন মাদক কারবারীকে গ্রেফতার রাজশাহী মহানগরীতে পুলিশের অভিযানে গ্রেফতার ১৯ রাজশাহী বোর্ডে এইচএসসি পরীক্ষায় বসছে এক লাখ ৩৮ হাজার ১৫৭ শিক্ষার্থী রাজশাহীতে জমেছে পশুহাট, লাখের নিচে মিলছে না কোরবানিযোগ্য গরু দ্রুত সময়ে কোরবানির বর্জ্য অপসারণ বিষয়ে রাসিকের সমন্বয় সভা অনুষ্ঠিত রোদে পোড়া কালচে ত্বক নিয়ে চিন্তায় পড়েছেন? ঘরোয়া টোটকা দিচ্ছেন প্রিয়ঙ্কা চোপড়া তেল বেশি গরম করলে কি খাদ্যগুণ চলে যায়? কী বলছেন পুষ্টিবিদ‌রা? বিশ্বকাপের প্রথম ম্যাচের আগে ধাক্কা পাকিস্তানে, চোটে বাদ অবসর ভেঙে ফেরা ক্রিকেটার সিঙ্গাপুর, হংকংয়ের পর এ বার ভারতের মশলা নিষিদ্ধ করল পড়শি ‘বন্ধু’ দেশ
তথ্য ফাঁসে কর্মীদের গণ-দোষারোপ করায় তোপের মুখে মির্জা ফখরুল!

তথ্য ফাঁসে কর্মীদের গণ-দোষারোপ করায় তোপের মুখে মির্জা ফখরুল!

মতিহার বার্তা ডেস্ক : বিএনপির অতীত সকল রাজনৈতিক পরিকল্পনা ফাঁস হয়ে যাওয়ার জন্য নেতা-কর্মীদের পরোক্ষভাবে দায়ী করায় তোপের মুখে পড়েছেন দলটির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।

রোববার (৫ মে) রাজধানীর প্রেসক্লাবের একটি অনুষ্ঠানে দলীয় তথ্য ফাঁস হয়ে যাওয়ার বিষয়ে পরোক্ষ ইঙ্গিত দিয়ে পরিকল্পনা কেবল দলীয় ফোরামে আলোচনার পরামর্শ দেন মির্জা ফখরুল। এদিকে মির্জা ফখরুলের এমন পরামর্শে অনুষ্ঠান স্থলে গুঞ্জন ও হইচই শুরু হয়ে যায়। দলীয় স্বার্থে নেতা-কর্মীদের গণহারে অবিশ্বাস করার ইঙ্গিত দেয়ায় সমাবেশ স্থলে পরিস্থিতি কিছুটা অস্থিতিশীল হয়ে পড়ে। একাধিক দায়িত্বশীল সূত্রের বরাতে তথ্যের সত্যতা সম্পর্কে জানা গেছে।

ঘটনাস্থলে উপস্থিত গণমাধ্যমের একটি সূত্রের বরাতে জানা গেছে, অনুষ্ঠানে বিএনপির নির্বাহী কমিটির সদস্য আবু নাসের মুহাম্মদ রহমাতুল্লাহ বলেন, মির্জা ফখরুল যদি নেতা-কর্মীদের সঠিক নেতৃত্ব দেন, তাহলে অনেক নেতা তৈরি হবেন। এই বক্তব্যের পরিপ্রেক্ষিতে মির্জা ফখরুল বলেন, নেতাদের বলব, এসব কথা দলীয় ফোরামে বলবেন। বাইরে দলের বিষয়ে যত কম কথা বলবেন, তত মঙ্গলজনক হবে। কারণ আপনি একভাবে কথা বলবেন, আপনার অনুসারীরা সেটি বিকৃতভাবে বিভিন্ন জায়গায় উপস্থাপন করে আপনাকে ও দলকে বিব্রত করবে। দলের গোপনীয়তা বজায় রাখাটা জরুরি। কারণ অতীতে অনেকে দলের তথ্য ফাঁস করে কিছু মহলের কাছ থেকে নানাবিধ সুবিধা আদায় করেছে। যার কারণে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে বিএনপির রাজনীতি।

এসময় মির্জা ফখরুল আরো বলেন, অতীতে তথ্য ফাঁস হওয়ার কারণে দলের প্রতিটি আন্দোলন-কর্মসূচি মুখ থুবড়ে পড়ে। দলের অভ্যন্তরে আমাদের ঝামেলা রয়েছে। সুতরাং যাই করব আমরা, গোপনীয়তা বজায় রেখেই করব।

সূত্রটি আরো জানায়, মির্জা ফখরুলের এমন অভিযোগমূলক কথা-বার্তায় সমাবেশ স্থলে নানা গুঞ্জন শুরু হয়ে যায়। গণহারে নেতা-কর্মীদের অবিশ্বাস করা এবং গণ-দোষারোপ করাটাকে দলীয়ভাবে অবমূল্যায়ন করার সমান বলে উপস্থিত কর্মীরা প্রতিবাদ করলে বিব্রত হয়ে পড়েন মির্জা ফখরুল। পরবর্তীতে আবু নাসের মুহাম্মদ রহমাতুল্লার হস্তক্ষেপে পরিস্থিতি স্বাভাবিক হয়।সূত্র: বাংলা নিউজ ব্যাংক

মতিহার বার্তা ডট কম – ০৬ মে, ২০১৯

খবরটি শেয়ার করুন..

Leave a Reply