শিরোনাম :
গোদাগাড়ীতে বালু মজুদ করতে ১০ একর জমির কাঁচা ধান কর্তন রাজশাহীতে বালু মজুদ করতে ১০ একর জমির কাঁচা ধান সাবাড় বিশ্বের দীর্ঘতম গাড়িতে রয়েছে সুইমিং পুল, হেলিপ্যাডও ছুটির দিনে হেঁশেলে খুব বেশি সময় কাটাতে চান না? রবিবারে পেটপুজো হোক তেহারি দিয়েই দাম দিয়ে ছেঁড়া, রংচটা জিন্‌স কিনবেন কেন? উপায় জানা থাকলে নিজেই বানিয়ে ফেলতে পারেন উন্মুক্ত বক্ষখাঁজ, খোলামেলা পিঠ, ভূমির মতো ব্লাউজ় পরেই ভিড়ের মাঝে নজরে আসতে পারেন আপনিও স্পর্শকাতর ত্বকের জন্য বাড়িতেই স্ক্রাব তৈরি করে ফেলতে পারেন, কিন্তু কতটা চালের গুঁড়ো দেবেন? গরমে শরীর তো ঠান্ডা করবেই সঙ্গে ত্বকেরও যত্ন নেবে বেলের পানা, কী ভাবে বানাবেন? গাজ়া এবং ইরানে হামলা চালাতে ইজ়রায়েলকে ফের ৮ হাজার কোটি টাকার অস্ত্রসাহায্য আমেরিকার! ইজ়রায়েলকে জবাব দিতে সর্বোচ্চ নেতার ফতোয়ার কথাও ভুলতে চায় ইরান, এ বার কি পরমাণু যুদ্ধ?
রাগে-ক্ষোভে গণফোরাম ছেড়ে আওয়ামী লীগ দুর্গে ফিরছেন মোস্তফা মহসীন মন্টু!

রাগে-ক্ষোভে গণফোরাম ছেড়ে আওয়ামী লীগ দুর্গে ফিরছেন মোস্তফা মহসীন মন্টু!

মতিহার বার্তা ডেস্ক : গণফোরামের সাধারণ সম্পাদক পদ থেকে সরিয়ে দেয়া হয়েছে মোস্তফা মহসীন মন্টুকে। তাকে অপসারণ করে আওয়ামী লীগের সাবেক অর্থমন্ত্রী শাহ এমএস কিবরিয়ার ছেলে ড. রেজা কিবরিয়াকে সাধারণ সম্পাদকের দায়িত্ব দিয়েছেন ড. কামাল হোসেন।

এদিকে গণফোরামে গুঞ্জন উঠেছে, নব্য হাইব্রিড নেতাকে দলের গুরুত্বপূর্ণ দায়িত্ব দেয়ায় রাগে-ক্ষোভে গণফোরাম ছেড়ে পুনরায় আওয়ামী লীগে যোগ দেয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন মোস্তফা মহসীন মিন্টু।সূত্র: বাংলা নিউজ ব্যাংক

এ প্রসঙ্গে গণফোরামের নির্বাহী সভাপতি নেতা অ্যাডভোকেট সুব্রত চৌধুরী বলেন, গুঞ্জন যা শুনেছেন তা সত্যি। শুধু মোস্তফা মহসীন মিন্টু নয়, আমি নিজেও আওয়ামী লীগে যোগ দিতে চাচ্ছি। কথায় কথায় গঠনতন্ত্রের বাইরে গিয়ে বিএনপির সিদ্ধান্ত মানতে বাধ্য করানো হচ্ছে গণফোরামকে। বিএনপির নেতারা ঐক্যফ্রন্টের অনেক সিদ্ধান্তই মানতে চান না। অথচ সেসব সিদ্ধান্ত আমাদের ঘাড়ে জোর করে চাপিয়ে দিচ্ছেন ড. কামাল।

তিনি আরো বলেন, নির্বাচনে গণফোরাম থেকে বিজয়ী সদস্যরা শপথ নিলে তারেক রহমানের কথায় বাধ্য হয়ে সুলতান মনসুর ও মোকাব্বির খানকে বহিষ্কার করা হলো। কিন্তু বিএনপি নেতারা শপথ নিলো তারেকের নির্দেশে। অথচ বিএনপি দলীয় সাংসদদের বহিষ্কার করলো না। এসব ঘটনায় আমরা বিব্রত হয়ে গণফোরাম ছেড়ে দিতে চাচ্ছি।

বিষয়টিকে ভিন্নভাবে ব্যাখ্যা করে মোস্তফা মহসীন মন্টু বলেন, মোকাব্বির খানকে আমরা ঘাড় ধাক্কা দিয়ে দল থেকে বের করে দিয়েছি। এখন সেই মোকাব্বির খানকে দেয়া হয়েছে দলের গুরুত্বপূর্ণ পদ। আমি কখনোই চাইনি মোকাব্বির খান পুনরায় দলে ফিরুক। কিন্তু আমার কথার প্রাধান্য না দিয়ে মোকাব্বির খানকে গণফোরামের বড় পদে বসানো হয়েছে। এটা শুধু মাত্র আমার সিদ্ধান্তকে অমান্য করে আমাকে ছোট করার সামিল। যে দল নেতাদের বক্তব্যকে মূল্যায়ন করে না, সেই দলে থাকার কোনো মানেই হয় না। এর চেয়ে আমার পুরনো দল বাংলাদেশ আওয়ামী লীগই ভালো। যেখানে সকলের মতকে প্রাধান্য দেয়া হয়।

উল্লেখ্য, গণফোরামের কোন পদেই রাখা হয়নি একাদশ সংসদ নির্বাচনে বিজয়ী সুলতান মোহাম্মাদ মনসুর আহমেদকে। মোকাব্বির খানকে ফিরিয়ে নিলেও সুলতান মনসুরের বেলায় কেন বিমাতাসুলভ আচরণ করা হচ্ছে তা নিয়েও গণফোরাম তথা ঐক্যফ্রন্টের রাজনীতিতে চলছে জোর সমালোচনা ও নানা গুঞ্জন।

রাজশাহীর সময় ডট কম – ০৭ মে, ২০১৯

খবরটি শেয়ার করুন..

Leave a Reply